৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, রবিবার ১৮ নভেম্বর ২০১৮ , ১১:১৯ অপরাহ্ণ

rabbhaban

নারায়ণগঞ্জ যেন লাশের ডাম্পিং পয়েন্ট!


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৩৭ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০১৮ রবিবার


নারায়ণগঞ্জ যেন লাশের ডাম্পিং পয়েন্ট!

লাশ আর লাশ, লাশের পাহাড়ে নারায়ণঞ্জ যেন ডাম্পিং পয়েন্টে পরিণত হয়েছে। একের পর এক লাশ উদ্ধারের ঘটনার মধ্য দিয়ে আতঙ্ক চারদিকে ছড়িয়ে পড়ছে। তবে এসব হত্যার প্রকৃত ঘটনা আড়াল করতে কথিত বন্দুক যুদ্ধ সহ নানা ঘটনার প্রেক্ষাটত সাজানো হয়। এতে করে অপরাধীরা আইনের ফাঁক দিয়ে ধরা ছোয়ার বাইরে চলে যায়। এসব খুন হত্যার ঘটনায় স্বজনহারাদের কান্নার রোলে পরিবেশ ক্রমশ ভারী হয়ে উঠছে।

সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ শহরের বিভিন্ন স্থানে খুনের ঘটনা বেড়ে গেছে। তবে এসব খুনের ঘটনার অধিকাংশ ঘটার পর নিরব স্থানগুলোতে রাতের অন্ধকারে লাশ ফেলে দেয়ার চিত্র অহরহ ঘটছে। বিশেষ করে শীতলক্ষ্যা নদীতে, রুপগঞ্জ, আড়াইহাজার এলাকার মত নিরব স্থানগুলোতে লাশ ফেলার ডাম্পিং পয়েন্ট হিসেবে অপরাধীরা ব্যবহার করছে।

২১ অক্টোবর আড়াইহাজার উপজেলায় মাথা থেঁতলানো অবস্থায় ৪ যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।  ভোরে এলাকাবাসী জানালে পুলিশ গিয়ে লাশ গুলো উদ্ধার করে। এসময় লাশের পাশে পরে থাকায় অবস্থায় ২টি দেশীয় পিস্তল ও ১টি প্রাইভেটকার  (নোয়া- ঢাকা মেট্রো-চ-১৩-০৫০১) জব্দ করে। নিহতদের প্রত্যেকের মাথার পেছনে শর্টগান দিয়ে গুলি করা হয়েছি। মুখ থেঁতলে দেওয়া হয়েছে যাতে পরিচয় না জানা যায়। তাদের প্রত্যেকের বয়স ৩০ থেকে ৩৫ এর মধ্যে। একই দিন নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার এশিয়ান হাইওয়ে বাইপাস সড়কে অজ্ঞাত এক যুবকের (৪০) লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাকে হত্যার পর মুখের একপাশে থেতলে দেয়া হয়েছে। পুলিশের ধারনা ডাকাতদের ডাকাতি করা মালামাল ভাগাভাগি করতে গিয়ে প্রতিপক্ষ তাকে হত্যা করে সড়কের পাশে ফেলে রেখে যায়।

১৯ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে মুক্তিপণের ৫ লাখ টাকা না পেয়ে জুঁই আক্তার নামে অপহৃত ৩ বছরের শিশুকে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বাড়ির পাশ থেকে ওই দিন সকাল ৭টায় অপহৃত শিশুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। জুঁই আক্তার উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের টেকপাড়া গ্রামের ব্যবসায়ী আনোয়ার হোসেনের মেয়ে।

১২ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলায় মো. সাগর (২১) নামে এক ইজিবাইক চালকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রাতে অন্য কোথাও দুর্বৃত্তরা তাকে হত্যা করে লাশ এখানে ফেলে যায় বলে ধারণা পুলিশের। উপজেলার দাউদপুর ইউনিয়নের ঢাকা বাইপাস সড়কের পাশে পূর্বাচল ৬ নং সেক্টরের মাঝিপাড়া এলাকার কলা বাগান থেকে ওই লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহত মো. সাগর উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের কেওঢালা এলাকার সাজি উদ্দিনের ছেলে।

একই দিনে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও পৌর এলাকার দৈলেরবাগ গ্রামের শাহজাদা মিয়া নামের ব্যবসায়ীর লাশ উদ্ধার করেছে সোনারগাঁও থানা পুলিশ। ওই দিন ভোরে সোনারগাঁও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

২৭ সেপ্টেম্বর সোনারগাঁ উপজেলায় একটি ঘর থেকে দুই যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তাদের মধ্যে একজনের গলাকাটা ও অন্যজন দড়ি দিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় ছিল। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ দুইজনকে আটক করেছে।

১৯ সেপ্টেম্বর সদর উপজেলার সিদ্ধিরগঞ্জে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সিদ্ধিরগঞ্জের নয়াআটি মুক্তিনগর কিসমত মার্কেটের সামনে ডিএনডি খাল থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়। সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) রাসেল আহমেদ জানায়, স্থানীয়রা ডিএনডি খালে লাশটি ভাসতে দেখে পুলিশে খবর দেয়। লাশের শরীরে কয়েকটি আঘাতের চিহ্ন পরিলক্ষিত হয়েছে। তবে ময়নাতদন্তের পর হত্যাকান্ডের প্রকৃত কারণ জানা যাবে।

১৪ সেপ্টেম্বর রূপগঞ্জের পূর্বাচল উপশহর থেকে রাজধানীর ৩ ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সকালে উপজেলার পূর্বাচল উপ শহরের কাঞ্চন-কুড়িল বিশ্বরোড (৩০০ ফিট) সড়কের আলমপুর এলাকার ১১ নং সেতুর নিচ থেকে লাশগুলো উদ্ধার করা হয়। পরিবারগুলো দাবি করছেন তাদেরকে সাদা পোশাকধারী কিছু লোক পুলিশ পরিচয়ে তাদের আটকের পর পরিকল্পিতভাবে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। নিহতরা হলেন মুন্সিগঞ্জের টংগীবাড়ি উপজেলার বিক্রমপুর গ্রামের মৃত আব্দুল ওহাবের ছেলে নূর হোসেন বাবু (২৯), তার ভায়রা ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার গুড়েলা এলাকার আব্দুল মান্নানের ছেলে শিমুল আজাদ (২৬), বর্তমানে রাজধানীর মুগদা মান্ডা এলাকার হাজীর বাড়ির ভাড়াটিয়া এবং তাদের বন্ধু ও ব্যবসায়ীক অংশিদার রাজধানীর বনানী মহাখালী দক্ষিনপাড়া এলাকার মৃত শহিদুল্লাহর ছেলে সোহাগ ভূইয়া (৩৪)। তারা ৩ জনই মুগদা এলাকায় অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে গার্মেন্ট পণ্যের ব্যবসা করতেন। এদের মধ্যে নিহত শিমুলের প্যান্টের পকেট থেকে নেশাজাত ৬৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে। নিহত প্রত্যককেই মাথায় বুকেসহ একাধিকস্থানে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে বলে জানান রূপগঞ্জ থানার ওসি মনিরুজ্জামান।

১১ সেপ্টেম্বর নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে নির্মমভাবে প্রহার করে মামুন মিয়া (২৫) নামে যুবককে দুবৃর্ত্তরা হত্যা করেছে। রাতের যেকোন সময় দুবৃর্ত্তরা তাকে এলোপাথারী পিটিয়ে ও শ^াসরোধে হত্যা করেছে বলে পুলিশের ধারণা। সকালে উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার বিরাব বীর ফকির তলার টেক এলাকা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে। অরপরদিকে পুলিশ উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের দক্ষিপাড়া গ্রাম থেকে অজ্ঞাত পরিচয়ের তরুনীর (২৩) মুখ-পা বাধা লাশ উদ্ধার করেছেন।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘খুনের নেশা যেন নারায়ণগঞ্জের ভৌগোলিকতার রক্তে মিশে গেছে। তাইতো ক্রমশ এই নেশা চারদিকে ছড়িয়ে পড়ছে; যেকাণে এসব ঘটনার সংখ্যাও বাড়ছে। যদিও পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে তৎপড়তা বৃদ্ধির দাবি করা হচ্ছে। কিন্তু বাস্তবে খুনের ঘটনার বৃদ্ধির ফলে পুলিশ প্রশাসনের প্রতি জনগণের আস্থা দিন দিন কমে যাচ্ছে। আর স্বজনদের কান্নায় স্মৃতি বিজড়িতে দিনগুলো হৃদয়ের গহীনে কষ্টের পাল তুলছে।’

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ