৬ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, মঙ্গলবার ২০ নভেম্বর ২০১৮ , ৬:২১ অপরাহ্ণ

rabbhaban

নিহত ৪ জন সম্পর্কে মামা ভাগ্নে


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৭:৪২ পিএম, ২২ অক্টোবর ২০১৮ সোমবার


নিহত ৪ জন সম্পর্কে মামা ভাগ্নে

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় উদ্ধার করা চারজন ও রূপগঞ্জে নিহত একজনের মধ্যে ৪ জন ছিল সম্পর্কে মামা ভাগ্নে। যার মধ্যে নিহত ৩ জন ছিল একে অপরের খালাতো ভাই। জীবিকার অন্বেষনে সম্প্রতি তারা দূর সম্পর্কের মামা ফারুকের ডাকে সাড়া দিয়ে তারা এসেছিলেন রূপগঞ্জে। কথা ছিল তাদেরকে রূপগঞ্জের একটি বেকারীতে চাকুরীতে লাগিয়ে দিবে ফারুক।

জানা গেছে, আড়াইহাজারে নিহত ৪ জন হলেন পাবনা জেলার আতাইউল্লা থানাধীন পুষ্টপাড়া ধর্মগ্রাম এলাকার মৃত সোলেমানের পুত্র ফারুক প্রামানিক (৩৭), একইগ্রামের মোঃ লোকমান সরদারের পুত্র জহিরুল (২৫), খায়রুল ইসলামের পুত্র সবুজ (২২), ফরিদপুরের ভাঙা থানার উত্তর আকনবাড়িয়া এলাকার মৃত মনসুর মোল্লার পুত্র লুৎফর রহমান মোল্লা। রূপগঞ্জে নিহত হলেন পাবনা জেলার আতাইউল্লা থানাধীন পুষ্টপাড়া ধর্মগ্রাম এলাকার লিটন।

জহিরুলের লাশ শনাক্ত করে শ্বশুর নজরুল ইসলাম হাসপাতালে জানান, নিহতদের মধ্যে জহিরুল, সবুজ ও লিটন সম্পর্কে একে অপরের খালাতো ভাই। তাদের গ্রামের বাড়িও পাশাপাশি। আর মৃত ফারুক প্রামানিক তাদের দূর সম্পর্কের মামা। জহিরুল, সবুজ ও লিটন পাবনা এলাকার একটি বেকারিতে কাজ করতো। কিন্তু বেশ কিছুদিন হলো তাদের বেকারিটি বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। কয়েক মাস আগে ফারুক এলাকায় গেলে তাদেরকে রূপগঞ্জের ভুলতায় একটি বেকারিতে কাজে লাগিয়ে দেয়ার কথা বলেছিল। লিটন কয়েকস মাস আগে রূপগঞ্জে এসেছিল আর জহিরুল ও সবুজ এসেছিল ১০ দিন আগে।

নিহত সবুজের বাবা ইসলাম জানান, অভাবের তাড়নায় পরিবারের ঋণের কিস্তির টাকা পরিশোধের জন্য বাড়তি আয়ের উদ্দেশ্যে গত ১৫ অক্টোবর ঢাকায় এসেছিল। এরপরদিন থেকেই সবুজের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকলে তার কোন সন্ধান পাচ্ছিল না। ঢাকার একটি বেকারিতে কাজে যোগদান করবে বলে সে বাড়িতে বলে এসেছিল। তাকেও ডিবি পরিচয়ে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়।

রোববার ২১ অক্টোবর ভোরে ৪ জনের লাশ উদ্ধারের পর গাড়ি চালকের লুৎফর রহমানের পরিচয় শনাক্ত হয়। আর সোমবার শনাক্ত হওয়া অপর তিনজন হলেন পাবনা জেলার সদর আতাইকুল থানা ধর্মগ্রাম এলাকার লোকমান হোসেনের ছেলে জহিরুল (৩০), একই গ্রামের জামালউদ্দিন প্রামাণিকের ছেলে ফারুক প্রামানিক (৩৫) ও খায়রুল সরদারের ছেলে সবুজ সরদার (২০)। তাদের চারজনের মধ্যে তিনজনকে শটগানের গুলি করে হত্যা করা হয় উঠে এসে ময়না তদন্ত রিপোর্টে। আর একজনকে ভারী কোন বস্তু দিয়ে মাথা ও মুখমন্ডল থেতলে দেয়া হয়েছে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

মহানগর -এর সর্বশেষ