ওমরার আগে সেলিম ওসমান ‘স্বাধীনতা বিরোধীদের বিশ্বাস করবেন না’

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৭:১৭ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৮ বুধবার



ওমরার আগে সেলিম ওসমান ‘স্বাধীনতা বিরোধীদের বিশ্বাস করবেন না’
পবিত্র ওমরা হজ্জ পালনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ থেকে সৌদি আরবের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান। বুধবার ২১ নভেম্বর রাত ১টায় ঢাকায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে আমিরাত এয়ারলাইন্সের একটি বিমানে তিনি সৌদির উদ্দেশ্যে বাংলাদেশে ছেড়ে যান। তিনি বৃহস্পতিবার মক্কায় ওমরা হজ্জ পালন এবং শুক্রবার জুম্মার নামাজ আদায় করবেন। শনিবার তিনি মদিনায় অবস্থান করবেন। রোববার রাতে তিনি বাংলাদেশে ফিরে আসবেন।
এর আগে বুধবার বিকেলে সেলিম ওসমান মাসদাইরে অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় কবরস্থানে তাঁর দাদা, বাবা, মা এবং বড় ভাইয়ের কবর জিয়ারত করেন। পরে তিনি বন্দর কদমরসুল দরগা জিয়ারত করেন। দরগা জিয়ারত শেষে তিনি দোয়া অংশ নেন। দরগা জিয়ারত ও দোয়া অনুষ্ঠানে এমপি সেলিম ওসমানের সাথে নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকাও অংশ নিয়েছেন।
 
উক্ত দোয়ার পূর্বে তিনি সকলের উদ্দেশ্যে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন। পবিত্র ওমরা হজ্জে যাওয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আজকে রাতেই আমি ওমরা হজ্জ পালনের জন্য সৌদি আরবে চলে যাবো। সেখানে আমি আপনাদের সকলের জন্য আল্লাহ দরবারে দুই হাত তুলে দোয়া চাইবো। আপনারাও আমার জন্য দোয়া করবেন। হজ্জ শেষে দেশে ফিরে আমি আমার নির্বাচনী প্রচারনা শুরু করবো। আপাদের কাছে অনুরোধ থাকবে আপনার ভোট আপনি দিবেন যোগ্য ব্যক্তি দেখে দিবেন। যারা স্বাধীনতা বিরোধী, দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রকারী তাদেরকে বিশ্বাস করবেন না।
 
নারায়ণগঞ্জের উন্নয়ন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এখন মানুষ আর আশ্বাসের কথায় বিশ্বাস করেনা। অনেকের আবার নারায়ণগঞ্জের উন্নয়ন চোখেই পড়ে না। নারায়ণগঞ্জে উন্নয়ন হয়েছে নাকি হয়নাই তা আপনারা ১০ বছর আগে কি ছিল আর এখন কি আছে সেটা চিন্তা করলেই বুঝতে পারবেন। আশা করছি আগামী ১ বছরে নারায়ণগঞ্জ এবং বন্দরের উন্নয়নের চিত্র আরো ব্যাপক ভাবে লক্ষ্যনীয় হবে। সবাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করবেন। আগামী ৫ বছরের জন্য যদি আবারো শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী বানাতে পারি তাহলে সারা বাংলাদেশের উন্নয়নের পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জেও ব্যাপক উন্নয়ন হবে। নারায়ণগঞ্জের মানুষ তখন গর্ব করে বলতে পারবে আমরা নারায়ণগঞ্জের হারানো ঐতিহ্য প্রাচ্যের ডান্ডির রূপ আরো আধুনিক ভাবে ফিরে পেয়েছি বলে গর্বিত হবেন।
 
জেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক আবুল জাহের বলেন ইতোমধ্যে সেলিম ওসমান নিজের অর্থায়নে ৭টি ইউনিয়ন এলাকায় ৭টি স্কুল ভবন নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। যার মধ্যে তিনটি স্কুলে শিক্ষার্থীরা সম্পূর্ন বিনা খরচে লেখাপড়া করছেন। শীতলক্ষ্যা সেতু-৩ (নাসিম ওসমান সেতু) কাজ চলমান রয়েছে। হাজীগঞ্জ-নবীগঞ্জ ও ৫নংঘাট- ময়মনসিংহ পট্টি দিয়ে পৃথক দুটি ফেরী সার্ভিস চালু করা হয়েছে। ইতোমধ্যেই উক্ত ঘাট গুলোতে যাত্রী সেবার মান বৃদ্ধির লক্ষ্যে নতুন করে আরো ৫টি ফেরী বরাদ্দ পাওয়া গেছে। সরকার ৫নংঘাট দিয়ে আরো একটি সেতু নির্মাণের জন্য একনেকে অনুমোদন দিয়েছেন। খানপুর ৩০০ শয্যা হাসপাতালকে ৫০০ শয্যায় উন্নীত করনের কাজ শুরু করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে এটিকে মেডিকেল কলেজে রূপান্তরিত করা হবে। বন্দরে কদমরসুল কলেজ ও হাজী ইব্রাহিম আলম চাঁন স্কুল ও কলেজকে সরকারীকরন করা হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ কলেজের আধুনিক ১০তলা ভবন নির্মাণ করা হয়েছে কলেজের নিজস্ব ফান্ড থেকে। সরকারীভাবে আরো একটি বহুতল ভবন এই কলেজে নির্মাণ করা হবে। শহরে শিল্পকলা একাডেমী কমপ্লেক্স ও আধুনিক পাবলিক লাইব্রেরী ভবনের নির্মাণ কাজ প্রায় শেষ পর্যায় রয়েছে। বন্দর খেয়াঘাট এলাকায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মিত হয়েছে, শীতলক্ষ্যা নদীর পূর্বপাড়ে বন্দর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। বন্দর ও নবীগঞ্জ খেয়াঘাট দুটিকে ব্যক্তিগত উদ্যোগে টোল ফ্রি করে দিয়ে সেখানে যাত্রীদের পারাপারে উন্নত সেবার ব্যবস্থা করা হয়েছে। হিন্দুদের মহাতীর্থস্থান লাঙ্গলবন্দে হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে মেগা প্রকল্পের কাজ শুরু করা হয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে নতুন ৫টি ঘাটের নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। চাষাঢ়ায় শ্রম অধিদপ্তরের নতুন কার্যালয় নির্মাণ করা হয়েছে। তার পাশেই শ্রমিকদের জন্য একটি অত্যাধুনিক হাসপাতাল নির্মিত হবে। ঢাকা-কমলাপুর রেলপথকে ডাবল লেনে উন্নীত করনের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। খানপুরে একটি নাসিং ইনস্টিটিউট নির্মাণ করা হবে। ইতোমধ্যে বন্দরে নারী শ্রমিকদের জন্য মহিলা ডরমেটরি নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। সরকারী ভাবে বন্দর ও সদর উপজেলার প্রায় প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন সহ যাতায়াতে সুব্যবস্থায় রাস্তাঘাটের উন্নয়ন সম্পন্ন হয়েছে। বন্দরের মদনগঞ্জের শান্তিরচরে দেড় হাজার একর জমির নিয়ে অর্থনৈতিক অঞ্চল নীটপল্লীর কাজ এগিয়ে যাচ্ছে। যেটি বাস্তবায়িত হলে কমবেশি ২৫ লাখ মানুষের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে। আর নীটপল্লী বাস্তবায়িত হলে বন্দরের চেহারা পাল্টে যাবে। তাই আগামীতে উনার মত এমপি আমাদের আবারো প্রয়োজন। আপনার সবাই উনার জন্য দোয়া করবেন আগামীতে উনি যেন আবারো এমপি নির্বাচিত হতে পারেন।
 
এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, মহানগর জাতীয় পার্টির আহবায়ক সানাউল্লাহ সানু, সদস্য সচিব আকরাম আলী শাহীন, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আফজাল হোসেন, ২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইফুদ্দিন আহম্মেদ দুলাল প্রধান, ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সুলতান আহম্মেদ, ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হান্নান সরকার, মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি জুয়েল হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাফায়েত আলম সানি সহ আওয়ামীলীগ, জাতীয় পার্টি সহ মহাজোটের বিভিন্ন দল ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিরা।

বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও