সপ্তাহে হত্যা ও লাশ উদ্ধার

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৩৯ পিএম, ৭ জানুয়ারি ২০১৯ সোমবার

সপ্তাহে হত্যা ও লাশ উদ্ধার

নারায়ণগঞ্জে পারিবারিক কলহের জের ধরে খুন গুমের ঘটনা বেড়ে চলেছে। আবার কখনো কখনো খুনের ঘটনা আড়াল করতে এসব ঘটনাকে আত্মহত্যার রুপ দেয়া হচ্ছে। যেকারণে খুন গুমের ঘটনাগুলো রহস্যের সৃষ্টি করছে। এতে করে নারায়ণগঞ্জ এক ভীতির নগরীতে পরিণত হচ্ছে।

১ জানুয়ারী থেকে ৭ জানুয়ারী পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে ঘটে যাওয়া খুনের ঘটনার সচিত্র তুলে ধরা হলো।

৩ জানুয়ারী নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে ফুসকার সঙ্গে কীটনাশক জাতীয় পর্দাথ মিশিয়ে উম্মেহানী (২৪) নামে এক গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। সে স্থানীয় ছনপাড়া এলাকার তুহিনের স্ত্রী। মেয়েকে হত্যার অভিযোগ এনে নিহতের মা খোদেজা বেগম একটি হত্যা মামলা দয়ের করেছেন। ঘটনার পর তুহিনকে গণপিটুনি দিয়ে এলাকাবাসী পুলিশে সোপর্দ করেন।

এজাহারে উল্লেখ্য করেন, গত ৯ মাস আগে গোপনে দ্বিতীয় বিয়ে করেন তুহিন। এনিয়ে তাদের মধ্যে পারিবারিক কলহ দেখা দেয়। তারই ধারাবাহিকতায় এক লাখ টাকা যৌতুক দাবী করে গত ২৮ ডিসেম্বর উম্মেহানীকে তার বাবার বাড়ি স্থানীয় বুরবুরিয়ারটেকে পাঠিয়ে দেয়া হয়। দাবীকৃত টাকা না দিলে তার সঙ্গে আর সংসার হবে বলেও সাফ জানিয়ে দেয় তুহিন। ৩ জানুয়ারি বিকালে সে তার ছোট মেয়ে ইকরাকে চিকিৎসক দেখানোর নাম করে উম্মেহানীকে সঙ্গে নিয়ে ছনপাড়ায় নিয়ে আসা হয়। পরে রাতে তাকে ফুসকার সঙ্গে কীটনাশক জাতীয় পদার্থ মিশিয়ে খাইয়ে দেয়া হয়। এতে তার মৃত্যু হয়। এজাহারে উল্লেখ্য বিবরণ থেকে আরও জানা যায়, নিহত উম্মেহানীর লাশ পরে বুরবুরিয়ারটেক তার বাবার বাড়িতে উঠানে ফেলে পালানোর সময় তুহিনকে আটক করে এলাকাবাসী। পরে তাকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

৩ জানুয়ারী নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার ইসদাইরে সাদিয়া আফরিন (২২) নামে তরুণীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। সাদিয়া ওই বাড়ির সুমন মিয়ার মেয়ে।

দেড় বছর পূর্বে পারিবারিক ভাবে চাদপুর জেলার হরিনা বাজার এলাকার ফজলুল হকের প্রবাসী ছেলে মাইনুদ্দিনের সঙ্গে ছাদিয়ার বিয়ে হয়। তাদের চার মাসের একটি পুত্র সন্তানও আছে। স্বামী সন্তান নিয়ে সাদিয়া বাবা মায়ে সঙ্গে বসবাস করেন।

নগরবাসী বলছে, নারায়ণগঞ্জে একের পর খুন গুমের ঘটনা ঘটে চলেছে। আমরা পরিবার স্বজনদের নিয়ে প্রতিনিয়ত আতঙ্কে থাকি। কিন্তু আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা এ বিষয়টিতে কোন নিশ্চয়তা দিতে পারছেনা। যেকারণে আমাদের আতঙ্ক কিছুতেই কাটছেনা।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘এমনিতে গুম খুনের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলাটি বেশ আলোচিত দেশজুড়ে। তাছাড়া প্রত্যেক সপ্তাহে এ জেলাতে খুন গুমের ঘটনা ঘটেই চলেছে। আর তাতে করে একদিকে লাশের মিছিল বাড়ছে। অন্যদিকে স্বজনহারাদের আহাজারিতে পরিবেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠছে। তবে এর ফলে এ শহর ক্রমশ আতঙ্কপুরিতে পরিণত হচ্ছে।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও