উত্তেজনা বাড়ছে সিদ্ধিরগঞ্জে

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৪৫ পিএম, ৭ জানুয়ারি ২০১৯ সোমবার

উত্তেজনা বাড়ছে সিদ্ধিরগঞ্জে

নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জে ক্রমশ উত্তেজনা বাড়তে শুরু করেছে। জমি সংক্রান্ত ঘটনায় সেখানে পর পর কয়েকটি সংঘর্ষের ঘটনার কারণে ক্রমশ বাড়ছে সহিংশতা। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এসব সহিংশতা ও উত্তেজনায় প্রতীয়মান হচ্ছে ক্ষমতাসীন দলের অনেক নেতাদের উপরও ক্ষুব্ধ সাধারণ জনতা।

এর আগে সিদ্ধিরগঞ্জে একচ্ছত্র নিয়ন্ত্রক ছিলেন নূর হোসেন। আলোচিত সাত খুনের পর তিনি এখন কারাবন্দী। সাত খুনের পর মতিউর রহমানের বাড়িতে অভিযান চালিয়েছিল সিআইডি। ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মতিউর রহমান মতি একই সঙ্গে প্যানেল মেয়র। আছেন সিদ্ধিরগঞ্জ থানা যুবলীগের কমিটিতেও।

সিদ্ধিরগঞ্জে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরের সামনে জমির মালিককে ছুরিকাঘাত করে আহত করেছে ভূমি সন্ত্রাসীরা। ৬ জানুয়ারী রোববার সকাল ১০টায় সিদ্ধিরগঞ্জের নাসিক ১নং ওয়ার্ডের মিজমিজি পাইনাদী সিআইখোলা এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটেছে। ছুরিকাঘাতে গুরুতর আহত মো: ইব্রাহীম মিয়াকে (৫০) উদ্ধার করে প্রথমে নারায়ণগঞ্জ ৩’শ শয্যা বিশিষ্ট খানপুর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সিদ্ধিরগঞ্জের ৬নং ওয়ার্ডে আদমজী নতুন বাজার এলাকায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ৩ জানুয়ারী দুপুরে আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এসময় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র, ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা যুবলীগ সভাপতি মতিউর রহমান মতিকে কুপিয়ে জখম করে প্রতিপক্ষের লোকজন।

ওই ঘটনার জের ধরে মতির সমর্থকরা গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হওয়া একাদশ সংসদ নির্বাচন উপলক্ষ্যে গড়ে তোলা শামীম ওসমানের নির্বাচনী ক্যাম্পে আগুন ধরিয়ে দেয়। এছাড়া প্রতিপক্ষ আবদুল হান্নান ও ইসমাইলদের বাড়িতে ব্যাপক ভাংচুর চালানো হয়। এসময় কয়েকজন নারীও শ্লীলতাহানির শিকার হন। সংঘর্ষে উভয় পক্ষে কমপক্ষে ১৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যাবিশিষ্ট হাসপাতাল ও বিভিন্ন ক্লিনিকে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

৬নং ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিল ও বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন, নারায়ণগঞ্জ জেলার শাখার সভাপতি সিরাজুল ইসলাম মন্ডল জানান, রাজ্জাক, হানান শেখ ও ইসমাইল তারা সকলেই মতির সমর্থক। তারা আমার সমর্থক নয়। তাদের সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ রয়েছে। কিন্তু এ ঘটনায় মতির সমর্থকরা আমার এক সমর্থককে মারধর করেছে ও তারা বঙ্গবন্ধু কাউন্ডেশন, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা শাখার কার্যালয়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছে। ওই কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধুর ছবি, শেখ হাসিনার ছবি, শামীম ওসমানের ছবি পুুড়িয়ে দিয়েছে।

কাউন্সিলর মতির একান্ত সহযোগী আশরাফ উদ্দিন বলেন, হান্নান শেখের সঙ্গে রাজ্জাকের জমির নিয়ে বিরোধ চলে আসছিল। ওই বিরোধ মিমাংসা করার জন্য কাউন্সিলর মতি কয়েকবার বৈঠকও করেছে। ঘটনার দিন কাউন্সিলর মতিকে হান্নান শেখ গালিগালাজ করে। পরে মতি ঘটনাস্থলে গেলে তারা মতিকে মারধর করে মাথা ফাটিয়ে দেয়। তিনি আরও জানান, সুবিধা নিতে নিজেদের বাড়িঘর ভাংচুর ও কার্যালয়ে আগুন নিজেরাই দিয়েছে।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও