নারায়ণগঞ্জে ৫টি আসনে বাতিল হয়েছে ২১ হাজার ১৯৮ ভোট

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৪৭ পিএম, ৭ জানুয়ারি ২০১৯ সোমবার

নারায়ণগঞ্জে ৫টি আসনে বাতিল হয়েছে ২১ হাজার ১৯৮ ভোট

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনে ভোট বাতিল সর্বকালের রেকর্ড ছাড়িয়েছে। ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে যেখানে নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনে ভোট বাতিল হয়েছিল ৮ হাজার ৯১৫টি।

গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ভোট বাতিল হয়েছে ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের চেয়ে দ্বিগুনেরও বেশী। এবার ৫টি আসনে ভোট বাতিল হয়েছে ২১ হাজার ১৯৮টি।

জানা গেছে, ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে মোট ভোট ছিল ২ লাখ ৭৫ হাজার ৪৯ ভোট। ভোট পড়েছিল ২ লাখ ৪৫ হাজারটি। ভোটার উপস্থিতি ছিল ৮৯.০৮ ভাগ। ভোট বাতিল হয়েছিল ১৮১২ টি। বৈধ ভোট ছিল ২ লাখ ৪৩ হাজার ১৮৮টি। না ভোট পড়েছিল ৮৮০টি।

নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে মোট ভোট ছিল ২ লাখ ১৭ হাজার ৪৪৫ ভোট। ভোট পড়েছিল ১ লাখ ৯৯ হাজার ৯৩৬টি। ভোটার উপস্থিতি ছিল ৯১.৯৫ ভাগ। ভোট বাতিল হয়েছিল ১৪৫২ টি। বৈধ ভোট ছিল ১ লাখ ৯৮ হাজার ৬৯১টি। না ভোট পড়েছিল ৫৩৩টি।

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ ও সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে মোট ভোট ছিল ৩ লাখ ৬২ হাজার ৫৬২ ভোট। ভোট পড়েছিল ৩ লাখ ১৩ হাজার ৭৭০টি। ভোটার উপস্থিতি ছিল ৮৬.৫৪ ভাগ। ভোট বাতিল হয়েছিল ১৯৮৩ টি। বৈধ ভোট ছিল ৩ লাখ ১১ হাজার ৭৮৭টি। না ভোট পড়েছিল ১৪১০টি।

নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা) আসনে মোট ভোট ছিল ৩ লাখ ৬৫ হাজার ৫৯ ভোট। ভোট পড়েছিল ২ লাখ ৯৪ হাজার ২৯৪টি। ভোটার উপস্থিতি ছিল ৮০.৬২ ভাগ। ভোট বাতিল হয়েছিল ১৭৬১ টি। বৈধ ভোট ছিল ২ লাখ ৯২ হাজার ৫৩৩টি। না ভোট পড়েছিল ১ হাজার ৮৬৪টি।

নারায়ণগঞ্জ-৫ (শহর ও বন্দর) আসনে মোট ভোট ছিল ৩ লাখ ৬০ হাজার ৯৪৩ ভোট। ভোট পড়েছিল ৩ লাখ ১১ হাজার ৯০৯টি । ভোটার উপস্থিতি ছিল ৮৬.৪২ ভাগ। ভোট বাতিল হয়েছিল ১৯০৭ টি। বৈধ ভোট ছিল ৩ লাখ ১০ হাজার ২টি। না ভোট পড়েছিল ৫ হাজার ৫৫৭টি।

এদিকে গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনে ভোট বাতিল হয়েছে ২১ হাজার ১৯৮টি।

নারায়ণগঞ্জ-১ (রূপগঞ্জ) আসনে ১২৭টি ভোট কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৪৯ হাজার ৭৯১ জন। যার মধ্যে ৭৮ দশমিক ১৩ শতাংশ অর্থাৎ ২ লাখ ৭২ হাজার ৩১২ টি ভোট গৃহীত হয়েছে। ভোট বাতিল হয়েছে ৪ হাজার ৫১৬টি। এর মধ্যে মৈকুলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৩৪৬টি, তারাব পৌর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ১৬০ টি, কেন্দুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ২৯৫টি, আমদিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ২২৫টি, হিরনাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৩৭৬টি, নগরপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৩১৬টি, বড়ালু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ২৩৮টি, বরপা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ১৫৬টি, জিন্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ১৫২টি, মঙ্গলখালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ১৫৯টি ভোট বাতিল ছিল উল্লেখযোগ্য।

নারায়ণগঞ্জ-২ (আড়াইহাজার) আসনে ১১৩টি ভোট কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৮৩ হাজার ৮৬৭ জন। নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনের মধ্যে গড়ে সর্বোচ্চ ৮৬ দশমিক ৯১ শতাংশ (২ লাখ ৪৬ হাজার ৬২৪ টি ভোট) গৃহীত হয়েছে এই আসনে। ভোট বাতিল হয়েছে ৩ হাজার ৭৩৯টি। এর মধ্যে গির্দা চৌধুরীপাড়া আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম বাবু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ১৬৬টি, উজানগোবিন্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ২২৬টি, মারুয়াদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পুরুষ ভোটকেন্দ্রে ২৬৯টি, মারুয়াদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মহিলা ভোটকেন্দ্রে ৪৮৪টি, দামপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৪০৫টি, কল্যান্দী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ২৯২টি, শ্রীনিবাসদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পুরুষ ভোটকেন্দ্রে ২০৬টি ও মহিলা ভোটকেন্দ্রে ১১২টি, শালমদী গহরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ১০৮টি, সিংহদী এম এ মোতালেব হাইস্কুল ভোটকেন্দ্রে ২০৮টি ভোট বাতিল ছিল উল্লেখযোগ্য।

নারায়ণগঞ্জ-৩ (সোনারগাঁ) আসনে ১১৮টি ভোট কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৩ হাজার ৮৭২ জন। যার মধ্যে ৭৭ দশমিক ৩৯ শতাংশ অর্থাৎ ২ লাখ ৩৫ হাজার ১৬৬ টি ভোট গৃহীত হয়েছে। ভোট বাতিল হয়েছে ২ হাজার ৬৫২টি। যার মধ্যে শম্ভুপুরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ১৪৪টি, মহজমপুর উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৮২টি, ফতেপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৯৩টি, সুখেরটেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৭৯টি উল্লেখযোগ্য।

নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনে ২১৬টি ভোটকেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ৬ লাখ ৫১ হাজার ৯৯ জন। নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনের মধ্যে গড় সর্বনি¤œ ৭৬ দশমিক ১৮ শতাংশ অর্থাৎ ৪ লাখ ৯৬ হাজার ৯৬৫ টি ভোট গৃহীত হয়েছে এই আসনে। ভোট বাতিল হয়েছে ৪ হাজার ২৮৯টি। যার মিজমিজি পশ্চিমপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র-১ এ ৯০টি, গোপালনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ১৪৮টি, লক্ষ্মীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৮১টি, কমরআলী উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র-১ এ ১৩১টি, কমরআলী উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র-২ এ ১১৫টি, কমরআলী উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র-৩ এ ১১৬টি, আব্দুল আউয়াল (চি:) উচ্চ বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র-২ এ ১২৫টি ভোট বাতিল ছিল উল্লেখযোগ্য।

নারায়ণগঞ্জ-৫ (সদর ও বন্দর) আসনে ১৭১টি ভোট কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ৪ লাখ ৪৫ হাজার ৬১৬ জন। যার মধ্যে ৭৮.৫৮ শতাংশ অর্থাৎ ৩ লাখ ৫০ হাজার ১৬৩ টি ভোট গৃহীত হয়েছে। ভোট বাতিল হয়েছে ৬০০২টি। যার মধ্যে বারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৩১৬পি, চরশ্রীরামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ২৪৪টি, কাজীপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৩৪৭টি, জাঙ্গাল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ১৮৫টি, মনারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৩১২টি, শুভকরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৩৪৫টি, লক্ষনখোলা দক্ষিণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ৩৬৭টি, সরকারী তোলারাম কলেজ পুরুষ ভোটকেন্দ্রে ১৯৩টি, আদর্শ স্কুল পুরুষ ভোটকেন্দ্রে ২৩৭টি, কবি নজরুল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ১৩১টি উল্লেখযোগ্য।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও