এসপির গাড়ির জন্য সড়ক বন্ধে যানজটে জনভোগান্তি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:১৩ পিএম, ১০ জানুয়ারি ২০১৯ বৃহস্পতিবার

এসপির গাড়ির জন্য সড়ক বন্ধে যানজটে জনভোগান্তি

নির্বাচনের শেষ আর বছরের শুরু নিয়ে নগরজুড়ে রয়েছে থমথমে পরিবেশ। রোদোজ্জল পরিবেশ থাকলেও শীতের অনুভূতি যায়নি। এর মধ্যে বৃহস্পতিবার ১০ জানুয়ারী দুপুরে শহরের চাষাঢ়া শহীদ মিনারে নগরীর বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে প্রেস ব্রিফিংয়ের জন্য আসনে জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদ। এসব সমস্যাগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্যই ছিল নগরীর চিরচেনা নিত্যদিনের যানজট। যা তিনি জানুয়ারি মাসের মধ্যেই নিয়ন্ত্রনে নিয়ে আসার আশ্বাস দিয়েছেন ব্রিফিং শুরু হওয়ার আগেই। আশ্বাস দিলেও যানজটের নিরসনে এসে বরং যানজট বাধিয়ে দিলেন তিনি নিজেই। আসা যাওয়ায় দুইবারে আধা ঘণ্টা যানজটের ভোগান্তিতে ছিল নগরবাসী।

জানা গেছে, চাষাঢ়া কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে মাদক, ভূমিদস্যূ, ঝুট সন্ত্রাসী, জঙ্গীবাদ ও বাল্য বিবাহ সংক্রান্ত নগরীর সমস্যা সমাধান করে বসবাস যোগ্য নগরী গড়ে তোলার লক্ষ্যে জেলা পুলিশ প্রশাসনের উদ্যোগে ওই প্রেস ব্রিফিংয়ের আয়োজন করা হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) হারুন অর রশিদ।

বেলা সোয়া ১২টায় প্রেস ব্রিফিংয়ের জন্য নির্ধারিত থাকলেও এসপি হারুন অর রশিদ পৌনে ১টায় শহীদ মিনারে আসেন। কিন্তু তার আগমনের প্রায় ১০মিনিট আগে থেকেই শহীদ মিনারের সামনে যাত্রীর জন্য অপেক্ষমান থাকা রিকশা, সিএনজি অটোরিকশা সহ বিভিন্ন যানবাহন সরিয়ে দেয় হয়। তবে এর সঙ্গে চাষাঢ়া গোলচত্ত্বর এলাকার শুধু মাত্র ঢাকা থেকে যানবাহন প্রবেশের জন্য উন্মুক্ত রেখে অন্য দুই দিকের যানবাহন বন্ধ করে দেয়া হয়। ফলে চাষাঢ়া শহীদ মিনারের সামনে থেকে প্রেসক্লাবের দিকের রাস্তায় সৃষ্টি হয় দীর্ঘ যানজট। তারপরই বিশাল গাড়ি বহর সহ পুলিশ প্রশাসনের অন্যান্য সিনিয়র সদস্যদের নিয়ে উপস্থিত হন এসপি।

একই ভাবে শহীদ মিনারের সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে ব্রিফিং শেষে এসপি হারুন অর রশিদ বের হয়ে যাওয়ার বেলায় দেখা যায় একই দৃশ্য। তখন চাষাঢ়া গোল চত্ত্বরের সব দিকের রাস্তার যানবাহন থামিয়ে দেয়া হয়। প্রায় ৫ থেকে ৭মিনিট প্রশাসনের অন্য সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে বের হতে গিয়ে চারদিকের রাস্তায় যানজট সৃষ্টি হয়। আর সেই সময়ের সৃষ্ট যানজট থেকে মুক্তি পেতে নগরবাসীকে অপেক্ষা করতে হয় আরো কমপক্ষে এক ঘণ্টা।

ভুক্তভোগী সোহেল তাজ বলেন, জরুরী কাজে ঢাকা যাবো। কিন্তু প্রেসক্লাব থেকে চাষাঢ়া গোল চত্ত্বর পার হতে আধা ঘণ্টা লেগেছে। পুলিশ প্রশাসনের অনুষ্ঠান বলে রাস্তা বন্ধ করে রাখতে কখনো শুনি নাই। পুলিশ মানুষের সেবা না দিয়ে দুর্ভোগ বাড়িয়ে দিলে কি হয়।

আধা ঘণ্টা যানজটে আটকে থাকা ভুক্তভোগী মোসলেহ উদ্দিন বলেন, ‘‘এখানে কোন মন্ত্রী আসেনি। পুলিশ প্রশাসনের এসপি তিনি। তিনি মানুষের সেবায় কাজ করার জন্য এখানে এসেছেন। কিন্তু তার আগমনের কারণে যখন নগরীতে যানজট সৃষ্টি হয়। তাহলে কিভাবে যানজট নিরসন হবে।’’

ব্রিফিংয়ে পুলিশ সুপার (এসপি) হারুন অর রশিদ বলেন, যানজট নিরসনে আমরা ইতোমধ্যে শহীদ মিনারের আশেপাশের অবৈধ সিএনজি অটোরিকশার স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করেছি। এছাড়া নো পার্কিংয়ের জায়গায় পার্কিং করা যাবে না। এসবের কারণে শহরে যানজট শুরু হয়। আমরা জানুয়ারি মাসের মধ্যে শহরের যানজট নিয়ন্ত্রনে আনতে চাই। এছাড়াও তিনি নগরীর মাদক, ভূমিদস্যূ, হকার, ঝুট সন্ত্রাস সহ বিভিন্ন বিষয়ে কাজ করার আশ্বাস দেন। 

এসময় উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মোহাম্মদ আবদুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিবি) মোহাম্মদ নুরে আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ডিএসবি) মো. ফারুক হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ( ক সার্কেল) মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী প্রমুখ।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও