শহরে আবারো গ্যাস সংকটে দুর্ভোগ

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৩০ পিএম, ১১ জানুয়ারি ২০১৯ শুক্রবার

শহরে আবারো গ্যাস সংকটে দুর্ভোগ

নারায়ণগঞ্জের শহর ও শহতলীর বিভিন্ন এলকায় আবারো গ্যাস সংকট দেখা দিয়েছে। শীতের এ মৌসুমে গ্যাসের সংকটের কারণে বিভিন্ন বসত বাড়িতে গৃহিনীরা চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। দিনের বেলায় গ্যাস সংকটের পাশাপাশি রাতেও সংকট দেখা দিচ্ছে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শহর ও শহরতলীর কোন কোন এলাকায় সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত গ্যাস থাকেনা। এরপর সন্ধ্যার পর থেকে গ্যাস থাকলেও এর পরিমাণ খুবই কম থাকে। আবারো রাতের সময়ে গ্যাসের পরিমাণ অনেকটা কমে আসে। তবে অধিকাংশ এলাকায় দুপুর ব্যতিত সকাল বিকেল দু বেলা গ্যাস থাকেনা। এরপর সন্ধ্যা থেকে গ্যাস আবার ফিলে এলেও তার পরিমাণ অনেকটা কম থাকে। আবার রাত হতেই গ্যাস চলে যায়। এভাবে গ্যাস নিয়ে তীব্র বিড়ম্বনার শিকার হতে হয় জনসাধারণকে। তবে রাতের বেলা গ্যাস থাকে বলে অনেক গৃহিনী রাত জেগে রান্না করে থাকে। এতে জনসাধারণকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

নতুন কোর্ট, ফতুল্লা স্টেডিয়ামের পাশে, নতুন পালপাড়া, কাশীপুর, ভূইগড়, জামতলা ধোপাপট্টি, আমলাপাড়া, দোওভোগ মাদ্রাসা এলাকা, ফতুল্লার নরসিংপুর, সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি, গোগনগর, মাসদাইর, সর্দার পাড়া, তল্লা বড় মসজিদ, পাইকপাড়া, ভোলাইল, জল্লার পাড়া, পাক্কা রোড, রঘুনাথপুর সহ বিভিন্ন এলাকায় অসংখ্য অভিযেগ রয়েছে গ্যাস নিয়ে।

১ নং বাবুরাইল এলাকার তাসলিমা আক্তার বলেন, ‘সকাল ৫ টা থেকে দুপুর ৩ টা পর্যন্ত থাকেনা। আবার সন্ধ্যা ৬ টা থেকে রাত ১২ টা পর্যন্ত গ্যাস থাকেনা। তাই অনেক সময় মাঝ রাতে জেগে জেগে রান্না করতে হয়। আর দিনের বেলায় ঘুমাতে হয়।

বিভিন্ন এলাকাতে গ্যাস সংকটের কারণে অনেকে ভীষণ দুর্ভোগ পোহচ্ছেন। আর উপায় না পেয়ে অনেকে বিকল্প ব্যবস্থা হিসেবে মাটির চুলো কিংবা স্টোভ দিয়ে রান্নার কাজ করছে। অন্যদিকে গ্যাসের বৈধ সংযোগ দেয়া হয়না বলে জেলার বিভিন্ন এলকাতে অবৈধ সংযোগ দেয়া হচ্ছে।

দেওভোগ এলাকার ভুক্তভোগীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘বিগত অনেক বছর ধরেই গ্যাস সংকটে আমরা ভুগছি। এমপি-মেয়র সবাই আছে তবুও এই সংকট থেকে মুক্তি পাচ্ছিনা। এ নিয়ে কারো মাথা ব্যাথা নেই। সবাই যার যার মত রয়েছে। ডিজিটাল বাংলাদেশের কথা বলে শুধু গ্যাস বিল বাড়ায় কিন্তু কেউ আমাদের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করেনা। গ্যাস নাই তবু গ্যাস বিল নিচ্ছে।

অথচ গ্যাস ব্যবহার করতে না পারলেও মাস শেষে গ্রাহকেরা বিল পরিশোধ করে যাচ্ছে। গ্রাহক গ্যাস পাচ্ছে কিনা সেদিকে দৃষ্টিগোচর না রেখে প্রায় সময় বিভিন্ন এলাকায় তিতাস কর্তৃপক্ষ গ্যাস বিচ্ছিন্ন করার জন্য চিরুনি অভিযান চালান। গ্যাস সংকটের কারণে বিভিন্ন এলাকাবাসী ফুঁসে উঠছেন। সকালে গ্যাস না থাকার কারণে অনেকেই মাটির চুলা ব্যবহার করতে বাধ্য হচ্ছেন। আবার কেউবা বাইরের হোটেল থেকে খাবার ক্রয় করে সেবন করতে বাধ্য হচ্ছেন। বিশেষ করে কর্মজীবি মানুষরা পড়েছেন চরম বিপাকে। সারাদিন পরিশ্রম করে রাতের বেলায় রান্না করতে হচ্ছে বলে একাধিক অভিযোগ রয়েছে। গ্যাস সংকটের কারণে বিভিন্ন এলাকায় দেখা দিয়েছে নানা সমস্যা যার কোন অন্ত নেই। এই সমস্যা সমাধান করার জন্য  কারো মাথা ব্যাথা নাই বললে চলে।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও