অবৈধ পার্কিং যেন গলার কাঁটা

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:০৫ পিএম, ৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ বুধবার

ফাইল ফটো
ফাইল ফটো

নারায়ণগঞ্জ শহরের নিত্য দিনকার সমস্যা হচ্ছে যানজট। এই অসহনীয় যানজটের কারণে যাত্রাপথে ১০ মিনিটের রাস্তা ৩০ থেকে ৪০ মিনিটে গিয়ে গড়াই। এভাবে প্রতিদিনই শহরবাসীর কাছ থেকে প্রায় কয়েক লাখ কর্মঘন্টা কেড়ে নিচ্ছে যানজট। যদিও সাম্প্রতিক পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের কঠোরতায় চাষাঢ়া এলাকার যানজট কিছুটা কমে এসেছে।

তবে শহরের অন্যান্য এলাকায় যানজট যেন পিছু ছাড়ছে না। আর এই অসহনীয় যানজটের অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে অবৈধ পার্কিং। ফলে শহরবাসীর যাত্রাপথে এই অবৈধ পার্কিং যেন গলার কাঁটা হিসেবে পরিণত হয়েছে।

জানা যায়, শহরের অন্যতম ব্যস্ত এলাকা শহরের গলাচিপা মোড়, ২নং রেলগেইট, ১নং রেলগেইট, ডিআইটি এলাকা, নিতাইগঞ্জ মোড়, কালীরবাজার ও চারারগোপ এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রায় প্রতিদিনই অসহনীয় যানজট লেগে থাকে। এসকল এলাকা দিয়ে যাত্রাপথে ১০ মিনিটের রাস্তা ৩০ থেকে ৪০ মিনিটে গিয়ে পৌছায়। আর ৩০ মিনিটের রাস্তা গিয়ে পৌছায় ঘণ্টায়। ফলে প্রতিদিন শহরবাসীর জীবন থেকে প্রায় কয়েক লাখ কর্মঘণ্টা হারিয়ে যাচ্ছে।

আর যাত্রাপথে এই দীর্ঘ বিলম্বের অন্যতম কারণ হিসেবে অবৈধ পার্কিং বলে দায়ী করছেন সাধারন নাগরিকবাসী। কারণ শহরের প্রধান সড়ক ঘেঁষে প্রায় শতাধিক মার্কেট রয়েছে। আর এসকল মার্কেটের অধিকাংশগুলোতেই গাড়ি পার্কিংয়ের ব্যবস্থা নেই। ফলে এসকল মার্কেট আসা লোকজন এলোমেলোভাবে যত্রতত্র গাড়ি পার্কিং করে রাখে। আর এই অবৈধ পার্কিংয়ের মাশুল গুনতে হয় সাধারণ নাগরিকদের। তাদেরকে দীর্ঘক্ষণ ধরে রাস্তায় আটকে থাকতে হয়।

শহরের নিতাইগঞ্জ এলাকার বাসিন্দা রাকিব হোসেন সরকারী তোলারাম কলেজের একাদশ শ্রেণীর দ্বিতীয় বর্ষে পড়াশোনা করছেন। নিউজ নারায়ণগঞ্জকে তিনি বলেন, ‘‘নিতাইগঞ্জ থেকে কলেজে যেতে তার প্রায় প্রতিদিনই ঘণ্টাখানেক সময় লেগে যায়। আর যেদিন যানজট থাকে না সেদিন তার কলেজে পৌছতে ১৫ মিনিট সময় লাগে।’’

রাকিব মনে করেন, যানজটের জন্য রাস্তার কর্ণার ঘেঁষে অবৈধ গাড়ি পার্কিং দায়ী। কখনও কখনও এই পার্কিংয়ের কারণে এক সাড়ি করে গাড়ী চলাচল করতে হয়।

শহরের বন্দর এলাকার এলাকা বাসিন্দা হচ্ছেন আল আমিন। তিনি শহরের চাষাঢ়া এলাকার একটি বেসরকারি অফিসে চাকরি করেন। তাকে সময় মত অফিস আসতে হয় অন্যথায় জরিমানা গুনতে হয়। তাই সময় মত অফিসে আসার জন্য প্রতিদিন ২ঘণ্টা সময় নিয়ে আসতে হয়। কারণ প্রতিদিন নদী পার হওয়ার পর প্রায় ঘণ্টাখানেকের মতো সময় লেগে যায় চাষাঢ়া এলাকায় পৌছাতে। তিনি মনে করেন, তার এই যাত্রাপথে বিলম্বের অন্যতম কারণ হচ্ছে গাড়ির অবৈধ পার্কিং।

ডিআইটি প্রধান সড়কের নিকটবর্তী জায়গার এক পান দোকানদার বলেন, প্রায় প্রতিদিনই সকাল নয়টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত এসব গাড়ি গুরুত্বপূর্ণ এই সড়কটির ওপর অবৈধভাবে গাড়ি পার্কিং করে রাখে। খেয়াল খুশিমতো যেকোনো গাড়ি এসে হঠাৎ রান্তার ওপর দাঁড়িয়ে যায়। ফলে এই পথে চলাচলকারীদের ব্যাপক ভোগান্তিতে পড়তে হয়।

আর এই অবৈধ পার্কিং রোধে পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন সচেতন নাগরিকবাসী। তিনি এর আগে চাষাড়া এলাকার অবৈধ স্ট্যান্ড সড়ানোর ক্ষেত্রে যেভাবে সোচ্চার ভূমিকা রেখেছেন ঠিক সেভাবে অবৈধ পার্কিং রোধে ব্যবস্থা নিলে শহরের যানজট কমে আসবে। ফলশ্রুতিতে সাধারণ শহরবাসীরও ভোগান্তি কমে আসবে।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও