গুম খুনের সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ধর্ষণ

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৩৮ পিএম, ১৪ মার্চ ২০১৯ বৃহস্পতিবার

গুম খুনের সাথে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ধর্ষণ

নারায়ণগঞ্জে খুন গুমের মত বাড়ছে ধর্ষণের ঘটনা। আর সেসব ঘটনার আড়ালে দেহ লোভী নরপশুদের মুখোশ উন্মোচিত হচ্ছে। তবে প্রভাবশালীদের ছত্রছাড়ায় এসব নরপিশাচরা বারবার অপরাধ করেও বেঁচে যাচ্ছে। যেকারণ সমাজ থেকে ধর্ষণ নামের কলঙ্ক কিছুতেই দূর করা সম্ভব হচ্ছেনা।

৭ মার্চ থেকে ১৪ মার্চ পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে ঘটে যাওয়া ধর্ষণের ঘটনার সচিত্র তুলে ধরা হল।

১২ মার্চ নারায়ণগঞ্জ বন্দর উপজেলায় চকলেট ও চিপসের প্রলোভন দেখিয়ে ৪ বছরের শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগে মোঃ সাকিব (২২) নামে যুবককে গ্রেপ্তার করেছে  থানা পুলিশ। ১১ মার্চ সোমবার দুপরে নবীগঞ্জ বাগবাড়ি এলাকা একটি বইয়ের লাইব্রেরীতে এ ঘটনা ঘটে।

মামলার বরাত দিয়ে তদন্তকারী অফিসার বন্দর থানার এস আই সাখাওয়াত মৃধা জানান, গত ১১ মার্চ দুপুরে বই বিক্রিতা মোঃ সাকিব নামে এক যুবক ৪ বছরের এক শিশুকে চকলেট ও চিপসের প্রলোখন দেখিয়ে তার লাইব্রেরীতে নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে রাতে ধর্ষিতার বাবা বাদি হয়ে একটি নারী ও শিশু নিযাতন আইনে একটি মামলা দায়ের দায়ের করে। মঙ্গলবার ১২ মার্চ ভোরে অভিযুক্ত সাকিবকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক যুবতীকে ধর্ষণের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে তার মুখে হারপিক ঢেলে হত্যার চেষ্টার অভিযোগে ২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে বন্দর ফাঁড়ি পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে বন্দর রুপালী আবাসিক এলাকা থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো মদনগঞ্জ ইসলামপুর নয়াপাড়া সীলু মিয়ার ছেলে বিয়ে পাগল দুলাল (৩৫) ও ফতুল্লা থানার কাশিপুর এলাকার মৃত হাবিব মিয়ার ছেলে শাহীন (২১)।

জানা গেছে, লম্পট দুলাল মিয়া মদনগঞ্জ এলাকার মৃত লিটন ওরফে লিডা মিয়ার অসহায় পরিবারকে সাহায্য করার কথা বলে রুপালী আবাসিক এলাকার একটি ফ্লাটে ঠাই দেয়। গত ২ ফেব্রুয়ারী রাত ১০টায় নারী লোভী লম্পট দুলাল মিয়া অসহায় যুবতীকে বিয়ের প্রলোভন দেখায়। এতে যুবতী রাজি না হলে ওই সময় লম্পট দুলাল মিয়া ও তার সহযোগী ফতুল্লা থানার কাশিপুর এলাকার হাবিব মিয়ার ছেলে শাহীন যুবতী মেয়েকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায়। ধর্ষণে ব্যর্থ হয়ে উল্লেখিত ২ লম্পটসহ কয়েকজন মিলে যুবতীকে হত্যার জন্য মুখে হারপিক ঢেলে দেয়। এ ঘটনায় নির্যাতিতা যুবতী বন্দর থানায়  নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা দায়ের করলে পুলিশ বৃহস্পতিবার রাতে ২ লম্পটকে গ্রেপ্তার করে শুক্রবার সকালে তাদেরকে আদালতে প্রেরণ করেছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ধর্ষণের আড়ালে ধর্ষিতা সহ তার পুরো পরিবার মানসিকভাবে ভেঙে পড়ে। আর ধর্ষিতাকে সারা জীবন এই কলঙ্কের বোঝা মাথায় নিয়ে বেঁচে থাকতে হয়। এছাড়া সমাজের মানুষজন তাকে আড় চোখে দেখা শুরু করে। এতে করে একদিকে যেমন মানবতা বিপর্যস্থ হচ্ছে। অন্যদিকে ধর্ষণের মত ঘটনায় সামাজিক অবক্ষয়ও বাড়ছে।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও