নারায়ণগঞ্জে কিশোর গ্যাংয়ের উৎপাতে খুন মারামারি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:১৪ পিএম, ২৫ আগস্ট ২০১৯ রবিবার

নারায়ণগঞ্জে কিশোর গ্যাংয়ের উৎপাতে খুন মারামারি

কিশোরদের মাঝে গ্যাং কালচার এখন বেশ জনপ্রিয়। কোনো নাম দিয়ে গ্যাং পরিচালনা না করলেও তারা সংঘবদ্ধভাবে সক্রিয় হয়ে উঠেছে।

‘পার্টি’ করা, হর্ন বাজিয়ে প্রচন্ড গতিতে মোটরসাইকেল চালানো ও বিভিন্ন সড়কের মোড়ে দাঁড়িয়ে মেয়েদের উত্ত্যক্ত করা তাদের দৈনিক কর্মকান্ডের অংশ। নারায়ণগঞ্জ শহীদ মিনার, শহরের দেওভোগে রাসেল পার্ক, খানপুর ৩শ শয্যা হাসপাতাল সামনে আড্ডা দেয়া আর ঘুরতে আসা ও স্কুল-কলেজের মেয়েদের উত্ত্যক্ত করা তাদের নিত্য অভ্যাস।

কিন্তু এসব গ্যাংয়ের ব্যাপারে তাদের অভিভাবক এবং আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী উদাসীন। শহরবাসীর অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে তারা এসব কিশোরদের উৎপাত দেখে আসছেন। তাদের উচ্চগতির মোটরসাইকেলের রেস পথচারীদের আতঙ্কের অন্যতম কারণ।

এসব গ্যাংয়ের ব্যাপারে নারায়ণগঞ্জ সরকারী ও তোলারাম কলেজের কয়েকজন ছাত্ররা জানান, যখন যে দলের পাল্লা ভারী থাকে তখন সেই দলের ছেলেরা বড় ভাই। তারাই খেলার মাঠের নিয়ন্ত্রণ, মোটরসাইকেল রেস ইত্যাদি নিয়ন্ত্রণ করে। এর মধ্যেই যখন আরেক দল নিয়ন্ত্রণ নেয়ার চেষ্টা করে তখনই মারামারি হয়।

বড় ভাইদের ছত্রছায়ায়ই এসব কিশোররা বেপরোয়া হয়ে উঠে। যেকোন রাজনৈতিক মিটিং, মিছিলেও এরা বেশ সক্রিয়।

২৪ আগস্ট রাতে ফতুল্লার ইসদাইর কাপুড়াপট্রি এলাকায় প্রায় অর্ধ শতাধিক বাড়িঘর ভাংচুর করে লুটপাট চালিয়েছে সশস্ত্র একটি সন্ত্রাসী বাহিনী। ৪০-৫০ জনের একটি গ্রুপ ধারালো রামদা নিয়ে ওই এলাকায় সাধারণ মানুষের বাড়িঘরে হামলা চালায়। ওই সময় স্থানীয় বিভিন্ন দোকানে লুটপাট চালায় সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় পুরো এলাকায় ভয়ে সাধারণ মানুষ দিকবিদিক ছুটোছুটি করতে থাকে।

২৩ আগস্ট ফতুল্লা থানার তাতীপাড়ায় সোলেমান হোসেন অপু (২৮) নামের যুবক খুন হয়েছে। নিহত অপু বাবুরাইল এলাকার আজিজ মিয়ার বাড়ির ভাড়াটিয়া রমজান মিয়ার ছেলে। সে বাবুরাইল এলাকার কাশেম ডেকোরেটরের বৈদ্যুতিক মিস্ত্রি।

পরিবারের লোকজনদের বরাত দিয়ে ফতুল্লা থানার ওসি আসলাম হোসেন জানান, শুক্রবার রাতে বাসা থেকে বের হয়ে তাতীপাড়া এলাকায় যায় অপু। ওই সময়ে অজ্ঞাত লোকজন তাকে ছুরিকাঘাত করে। পরে তাকে আশংকাজনক অবস্থায় ১০০ শয্যা বিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে মৃত্যু ঘটে।

নিহত অপুর বাবা রমজান জানান, অপু কাশেম ডেকোরেটরের বৈদ্যুতিক মিস্ত্রি হিসাবে কাজ করতো। টাকা পয়সা নিয়ে স্থানীয় রায়হানের সাথে দ্বন্ধ ছিলো। আর সেই দ্বন্ধে রায়হানকে অপুকে হত্যার হুমকি দিয়েছিল। সেই জের ধরে রায়হান তার লোক দিয়ে অপুকে বাড়ি থেকে ডেকে এনে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে।

ঈদের দিন ভোরে সদর উপজেলার ফতুল্লার পাগলা রেলস্টেশন এলাকায় রাকিব (২২) নামের যুবককে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় বখাটেদের বিরুদ্ধে। রাকিব ফতুল্লার নয়ামাটি মুসলিমপাড়া এলাকার মজিদ হাওলাদারের বাড়ির ভাড়াটিয়া নওশেদ বেপারীর ছেলে। সে এলাকার একটি দোকানে পুরাতন টিন কেনাবেঁচা করতো।

১০ আগস্ট নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় প্রকাশ্যে মাদক ব্যবসায়ীদের গণপিটুনিতে জুম্মন নামে আরেক মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছে। দুপুর দেড়টায় উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের পূর্ব দেলপাড়া এলাকায় এঘটনা ঘটে। জুম্মনকে স্থানীয়রা আশঙ্কাজনক অবস্থায় জুম্মনকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

৩১ জুলাই বুধবার নারায়ণগঞ্জ শহরের খানপুর বরফকল এলাকাতে প্রেমিকার বাড়ির লোকজনদের প্রহারে ফয়সাল মিয়া (১৯) নামের যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ উঠেছে। পুলিশ এ ঘটনায় ৫জনকে আটক করেছে। রাতে শহরের খানপুরে অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতাল থেকে ফয়সালের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ১০০ শয্যা বিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

২৭ জুলাই শনিবার রাত ১১টার নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার দেওভোগে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে এলোপাথারী কোপে শাকিল (৩০) নামে যুবক নিহত ও আরো ৬জন আহত হয়েছে। নিহত শাকিল দেওভোগ পূর্বনগর এলাকার মৃত আমান উল্লাহর ছেলে।

২৭ জুলাই নারায়ণগঞ্জে শীতলক্ষ্যায় নোঙ্গর করে রাখা একটি জাহাজ থেকে স্কুল ছাত্র রিতুল ঘোষের (১৪) লাশ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সদস্যরা। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৪ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

২৩ জুলাই বন্দর উপজেলায় কাইতাখালি এলাকায় পূর্ব শত্রুতার জের, ইয়াবা বড়ি কিনে না দেওয়া ও মাত্র ৫০০ টাকা পয়সার লেনদেন সংক্রান্ত ঘটনায় মিশন (২৫) নামে এক যুবককে হত্যা করা হয়েছে। সোমবার (২২ জুলাই) দিনগত রাত ২ টার দিকে ৫ জনের একটি দল তাকে হত্যা করে। নিহত মিশর উপজেলার কাইতাখালি এলাকার মৃত টুক্কি শিকদারের ছেলে।

২১ জুলাই সিদ্ধিরগঞ্জের মিজমিজি আলআমিন নগর এলাকায় গণপিটুনীতে বাক প্রতিবন্ধী সিরাজ নিহতের ঘটনায় মামলা হয়েছে। ঘটনার পর রাতেই ৮ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জেলা পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের বরাত দিয়ে ডিআই-২ সাজ্জাদ রোমন জানান, কিশোর অপরাধীদের প্রতি আমাদের গোয়েন্দা নজরদারী রয়েছে। এছাড়া সকল থানার ওসিদের বিশেষ ভাবে নজর রাখার জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে। অপরাধ করার সাথে সাথে আইনের আওতায় আনা হবে। সে যেই হোক।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও