হঠাৎ বৃষ্টি প্রশান্তির নয় বরং ভোগান্তির

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:০৩ পিএম, ৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ সোমবার

হঠাৎ বৃষ্টি প্রশান্তির নয় বরং ভোগান্তির

ষড়ঋতুর বাংলাদেশে শরৎকাল চলছে এখন। এখনো প্রকৃতি আচরণ করছে গ্রীষ্ম-বর্ষা মিলিয়ে। সারা দিনের সূর্যের তাপে পুড়তে থাকা নগরের ইট-পাথর, রাস্তা-ঘাট তপ্ত হলেও হঠাৎ বৃষ্টিতে তা শীতল হয়ে উঠছে। তবে এই বৃষ্টি অনেকের কাছে স্বস্তিদায়ক মনে হলেও কর্মজীবি ও নিম্ন আয়ের মানুষের কাছে তা অস্বস্তির কারণ। নারায়ণগঞ্জের বেশির ভাগ মানুষের কাছে এখন হঠাৎ বৃষ্টি প্রশান্তির নয় ভোগান্তির।

সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর দুইটা থেকে চারটা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জ শহরে তুমুল বৃষ্টি হয়। শহরের মধ্যে দিন দিন খাল-বিল গুলো ভরাট হয়ে যাওয়ার কারনে কয়েক ঘণ্টার বৃষ্টিতেই বদলে যায় শহরের চিত্র। কিছু সময়ের ভারী বর্ষনে শহরের প্রধান সড়কগুলো পরিণত হয় খালে। অনেক জায়গায় ফুটপাতেও পানি উঠে যায়।

চাষাঢ়া থেকে খানপুর পর্যন্ত নবাব সলিমুল্লাহ সড়কে জমে থাকা পানির ঢেউ হার মানিয়েছে ছোট-খাট নদীকেও। এই চিত্র শুধু প্রধান সড়কগুলোতেই নয় শহরের সব অলি-গলি, পাড়া-মহল্লার একই দশা। প্রধান সড়ক, ফুটপাত, মহল্লার গলি সব জায়গায় শুধু পানি আর পানি। যেন শহরে কোনো ড্রেনেজ ব্যবস্থাই নেই।

সরেজমিনে দেখা গেছে, শহরের বেশিরভাগ এলাকার রাস্তা ডুবে গেছে পানিতে। কোথাও কোথাও হাঁটু, আবার কোথাও কোমর পর্যন্ত পানি। এতে করে রাস্তায় চলাচল করা সাধারণ জনগণের ভোগান্তি ছিল চরমে। নগরীর দেওভোগ এলাকা, বাবুরাইল, মাসদাইর, গলাচিপা, আমলাপাড়া, মিশনপাড়া, ডনচেম্বার সহ বিভিন্ন এলাকাগুলোতে ড্রেনের পানি আর বৃষ্টির পানিতে একাকার হয়ে গেছে।

কাজের জন্য বাধ্য হয়ে দুর্গন্ধ ও ময়লা পানিতে চলাচল করা মানুষগুলোকে পড়তে হচ্ছে নানান বিড়ম্বনায়। এছাড়া অল্প সময়ের বৃষ্টিতে ঘড়বাড়ীতে বৃষ্টির পানি ঢুকে যাওয়ার ভোগান্তিও কম নয়। এদিকে বৃষ্টির অযুহাতে রিকশা ভাড়াও তিনগুন বেড়ে যায়। তাই এখন হটাৎ বৃষ্টি নারায়ণগঞ্জবাসীর কাছে প্রশান্তির নয় তুমুল ভোগান্তির।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও