ডিশ বাবুর ছেলে আটক

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:৩৬ পিএম, ১৫ অক্টোবর ২০১৯ মঙ্গলবার

ডিশ বাবুর ছেলে আটক

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু ওরফে ডিশ বাবুর ছেলে রিয়েনকে আটক করেছে পুলিশ। ১৫ অক্টোবর মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় শহরের পাইকপাড়া এলাকা থেকে আটক করা হয়।

গত ১৩ অক্টোবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে রিয়েন নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতিকে নিয়ে বিরুপ মন্তব্য করেছিলেন। ওই ঘটনার প্রেক্ষিতেই মঙ্গলবার রাতে গ্রেপ্তার করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি আসাদুজ্জামান জানান, রিয়েনের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাহবুবুর রহমান মাসুম বাদী হয়ে তথ্য প্রযুক্তি আইনে একটি মামলা করেছেন। ওই মামলার প্রেক্ষিতেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

জানাগেছে, নারায়ণগঞ্জের পুলিশ সুপার হারুন অর রশিদের নেতৃত্বে পুলিশ প্রশাসনের কঠোর অবস্থানে গিয়ে বিতর্কিতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ শুরু করলে সেই জালে ক্ষমতাসীন ও প্রভাবশালী মহলের বিতর্কিতরা আটকা পড়ে। সেই জালে দুর্ধর্ষ সন্ত্রাসী ও চাঁদাবাজ ডিস বাবু ধরা পড়ে। নারায়ণগঞ্জের স্যাটেলাইট কেবল ব্যবসা তথা ডিশ লাইন ব্যবসার একচ্ছত্র নিয়ন্ত্রক আবদুল করিম বাবুর বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে তিনটি মামলা হয়েছে। এরই মধ্যে একটি মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। গত ১৭ এপ্রিল চাঁদাবজির অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়। ভূমিদস্যুতা, চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসীপনা, পিস্তল প্রদর্শনে ভীতি সৃষ্টি, প্রভাব বিস্তার সহ নানা অভিযোগ রয়েছে বাবুর বিরুদ্ধে। তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা এর আগেও ছিল। তবে কিছুদিন জেলে থাকলেও জামিনে এখন তিনি বাইরে আছেন।

এদিকে সিটি কর্পোরেশনের ১৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুল করিম বাবুর বিরুদ্ধে দায়ের করা একটি মামলার বাদীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ১৩ অক্টোবর দুপুরে নাজমুল হাসান বারেক নামের ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে বাবুর অফিসে বারেককে বসিয়ে বেশ কিছুক্ষণ মারধর করে সদর মডেল থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। পুলিশ বলছে একজন শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে বারেক নামের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আর বারেকের দাবী এটা তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র। তাকে ইচ্ছে করে ফাঁসিয়ে দেওয়া হয়েছে।

বারেক জানায়, তাকে ইচ্ছে করে ফাঁসিয়ে দেওয়া হয়েছে। ঘটনার সাথে তিনি জড়িত না। পরিকল্পিতভাবে তাকে ফাঁসিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া যে ব্যক্তি পুরো ঘটনাটি সাজিয়েছেন সে কাউন্সিলর বাবুর অফিসে চাকরি করে।

নাজমুল হাসান বারেকের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু। তিনি বলেন, এ ঘটনার সাথে আমার কোনো সম্পৃক্ততা নেই। সে আমার বিরুদ্ধে মামলা করেছিলো, করতেই পারে। মামলা করলেই যে আমি অপরাধী তা তো নয়। আদালত প্রমাণ করবে। বিচার করবে। মামলার সাথে এর কোনো যোগসূত্র নেই।

এর আগে আব্দুল করিম বাবুর বিরুদ্ধে স্কুলের জায়গা দখল করে ক্লাব ঘর নির্মাণের অভিযোগে এ বারেকই মামলা করেছিলেন। গত ১৯ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার ও সদর থানার ওসি বরাবর একটি অভিযোগ দায়ের করেন তিনি।

অভিযোগে বারেক উল্লেখ করেন, দীর্ঘ ৪৮ বছর যাবত আজিজিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসা পরিচালনা করে আসছি। মাদ্রাসার পাশে আমার মালিকানাধীন টিনসেট ৪ টি রুম করে একটি এনজিও সংস্থাকে শিশু কিশোরদের পড়ালেখার জন্য ভাড়া দেয়া হয়। সেই ভাড়ার টাকা মাদ্রাসায় খরচ করা হয়। গত জাতীয় নির্বাচনে বাবুর পক্ষ কাজ না করায় তার পালিত সন্ত্রাসীরা আমাকে মারপিট করে জোর করে ৬টি খালি স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর নিয়েছে। যার কারণে গত জানুয়ারীর প্রথম দিকে সদর থানায় অভিযোগ দিলেও আমার মামলাটি নেয়নি। পরে অভিযোগের বিষয়টি বাবু জানলে রাগান্বিত হয়ে আমার এনজিও সংস্থার দুটি রুমের দুই মাসের ভাড়ার ২৬ হাজার ৫শ টাকা  নিয়ে যায়। শুধু তাই নয় আমাদের পাইকপাড়া এইচ এল মেদ ভুড়ি নামীয় একতলা ভবনের দুটি রুম সন্ত্রাসী বাহিনা দ্বারা তালা ভেঙ্গে ২ লাখ টাকার মালামাল লুট করে ক্লাব হিসেবে স্থাপন করে। এ মামলায় বাবু গ্রেপ্তারও হন। একটি চাঁদাবাজী মামলায় তিনি কারাগারে থাকাবস্থায় এ বারেকের মামলায় পুলিশ বাবুকে শ্যোন এরেস্ট দেখায়।

গত ১৩ অক্টোবর নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনশৃৃঙ্খলা কমিটির সভায় নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাহাবুবুর রহমান মাসুম বলেন, নারায়ণগঞ্জ আদর্শ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি হলেন একজন বিতর্কিত ব্যক্তি। আবদুল করিম বাবু যিনি ডিশ বাবু হিসেবে পরিচিত তিনি এর ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি। কিছুদিন আগে নানা মামলায় জেল খেটেছেন।

এই অবস্থায় ডিস বাবুর ফের যখন বিতর্কে জড়িয়ে পড়ছেন তখন ডিস বাবুর পুত্র রিয়েন নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাহবুবুর রহমান মাসুদকে ‘রাজাকার পুত্র’ বলার পাশাপাশি জনতা ব্যাঙ্কের টাকা আত্মসাৎকারী হিসেবে বিরুপ মন্তব্য করে সেই বিতর্কের আত্তাপ আরো বাড়িয়ে দিয়েছে।

কাউন্সিলর আব্দুল করিম বাবু ওরফে ডিস বাবুর ছেলে রিয়েন লিখেছেন, ‘সভাপতি এড মাসুম তুই রাজাকারের সন্তান তুই জনতা ব্যাংকের কোটি কোটি টাকা মারসোত বাংলা সিমেন্ট নামে। তোর মতো বাটপার প্রেসক্লাবের সভাপতি কেমনে হয়। আমরা কিন্তু নারায়ণগঞ্জ এর সন্তান তোদের মত দালালদের নারায়ণগঞ্জ ছাড়া করা উচিত।

তিনি আরও লিখেন, তোদের মত লোকেরা আমাদের সুন্দর নারায়ণগঞ্জকে নষ্ট করতেছস। একজন জনপ্রিয় কাউন্সিল আব্দুল করিম বাবু এর নামে কথা বলার আগে ভাবা উচিত ছিলো সে যদি রাস্তায় নামে ৫০ হাজার লোক সাথে নিয়ে নামবে। পালানোর সুযোগ পাবি না। আমাদের শক্তি আমাদের সৎ সাহস।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও