নারায়ণগঞ্জে ২ খুন ২ লাশ

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৪৭ পিএম, ২২ ডিসেম্বর ২০১৯ রবিবার

নারায়ণগঞ্জে ২ খুন ২ লাশ

নারায়ণগঞ্জে ফের বেড়েছে লাশের মিছিল। খুন ও লাশ উদ্ধারের ঘটনায় নানা চাঞ্চল্যকর তথ্য আলোচনায় উঠে আসছে। তবে অধিকাংশ লাশ উদ্ধারের ঘটনায় নৃশংস হত্যাকাণ্ডের তথ্য প্রকাশ পাচ্ছে। দিনে দিনে এর সংখ্যা ক্রমশ বেড়ে চলেছে। যেকারণে জনমনে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

১৫ ডিসেম্বর থেকে ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে ঘটে যাওয়া হত্যাকাণ্ড ও লাশ উদ্ধারের ঘটনার সচিত্র তুলে ধরা হল। এ সপ্তাহে ২টি হত্যাকাণ্ড ও ২টি লাশ উদ্ধারের ঘটনা ঘটেছে।

২১ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার বুড়িগঙ্গায় অজ্ঞাত যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। উপজেলার পাগলা মুন্সিখোলা এলাকার বুড়িগঙ্গা নদীর তীর থেকে লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেনারেল হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়।

ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মিজানুর রহমান জানান, জিন্স প্যান্ট ও শার্ট পড়নে থাকা ৩৫ বছর বয়সের এক যুবকের লাশ বুড়িগঙ্গা নদী দিয়ে ভেসে এসে মুন্সিখোলা এলাকায় তীরে আটকরা পড়ে। লাশটির দেহে কোথাও কোন আঘাতের দাগ নেই। তবে নাক দিয়ে রক্ত বেরুতে দেখা গেছে। ধারনা করা হচ্ছে দু’একদিন আগে হয়তো নদীতে পড়ে ডুবে গিয়েছিলো। লাশটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ময়না তদন্ত রিপোর্ট হাতে পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

১৯ ডিসেম্বর বন্দর থেকে ১২ বছরের অজ্ঞাত এক শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বন্দরের শীতলক্ষ্যায় সিএসডি এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ নৌ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল হাকিম জানান, শীতলক্ষ্যায় ১২ বছরের একটি শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তার পড়নে ছিল শার্ট আর জিনস প্যান্ট। ধারনা করা হচ্ছে লাশটি ৩/৪ দিন আগের।

১৮ ডিসেম্বর ফতুল্লার কাশীপুরে ঘুমানোর স্থান নিয়ে তর্কে জড়িয়ে ইট দিয়ে মাথায় আঘাত করে সুরুজ মিয়া (৫৭) নামে রিকশাচালককে হত্যার ঘটনায় আদালতে দোষস্বীকার করেছে আব্দুল গনি মিয়া নামে আরেক রিকশা চালক।

ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আসলাম হোসেন বলেন, ১৭ ডিসেম্বর মঙ্গলবার ভোর ৪টায় ফতুল্লার কাশিপুর খিলমার্কেট এলাকায় সেলিম মিয়ার ভাড়াবাড়িতে হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। গনি মিয়া আদালতে জবানবন্দিতে বলেছে সুরুজ তাকে বিড়ির মধ্যে ভরে কি যেন খাইয়েছে, এতে তার স্মৃতিশক্তি হারিয়ে ফেলে। ওইসময় তর্কে জড়িয়ে সুরুজকে সে মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করেছে।

১৫ ডিসেম্বর সিদ্ধিরগঞ্জের পাইনাদী কুয়েত প্লাজা এলাকায় বন্ধুদের ছুরিকাঘাতে বিকাশ গাইন ওরফে কালু (২৩) নামে যুবক নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ স্বপন (২৭) ও সবুজ (২৫) নামে দু’ বন্ধুকে গ্রেফতার করেছে। নিহত বিকাশ গাইন বরিশালের মেহেন্দীগঞ্জের তেতুলাপাড়া এলাকার বাসিন্দা কেশব গাইনের ছেলে।

পুলিশ ও নিহতের স্বজনরা জানায়, শনিবার দিনগত রাত সাড়ে ৩টায় দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের পাইনাদী কুয়েতপ্লাজার এলাকায় বিকাশ গাইন ওরফে কালুসহ কয়েক বন্ধু ঢাকার যাত্রাবাড়ি থেকে যৌনকর্মী নিয়ে আনন্দ ফূর্তি করতে আসে। রবিবার ভোর ৪টায় বন্ধুদের সঙ্গে বিকাশ গাইন ওরফে কালুর মধ্যে ঝগড়া হয়। এক পর্যায়ে বিকাশ গাইন ওরফে কালুকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়। নিহতের বন্ধুরা তার লাশ ফেলে পালিয়ে যাওয়ার সময় দুটি মোটরসাইকেল আরোহী তাদেরকে আটক করে। এ সময় টহল পুলিশ এসে স্বপন ও সবুজকে গ্রেফতার করে এবং নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠায়।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও