জ্বর সর্দি শ্বাসকষ্টে ব্যবসায়ীর মৃত্যু, পুলিশের প্রহরায় দাফন

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:৪৬ পিএম, ৪ এপ্রিল ২০২০ শনিবার

জ্বর সর্দি শ্বাসকষ্টে ব্যবসায়ীর  মৃত্যু, পুলিশের প্রহরায় দাফন

নারায়ণগঞ্জ শহরের এক নং বাবুরাইল এলাকাতে ফয়সাল সুজন (৪৬) নামের এক ব্যবসায়ীর মৃত্যুর হয়েছে। তার স্ত্রী ও দুই সন্তান রয়েছে। তিনি ব্যবসায়িক কাজে ভারত ও চিনে যাতায়াত করতেন। জ্বর, সর্দি ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে শনিবার ৪ এপ্রিল সকালে তাঁর মৃত্যুর পর গুজবে মরদেহ দাফনের জন্য কেউ এগিয়ে আসেনি। পরে দুপুরে পুলিশের প্রহরায় দাফন করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি আসাদুজ্জামান বলেন, সিভিল সার্জন ও সিটি করপোরেশনের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা জানিয়েছেন ওই ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না। তিনি স্ট্রোক করে মারা গেছেন। সেহেতু এলাকাবাসীকে বলা হয়েছে তারা লাশ দাফনের প্রস্তুতি নিচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র-১ ও স্থানীয় কাউন্সিলর আফসানা আফরোজ বিভা বলেন, সুজন একজন ব্যবসায়ী। ব্যবসার প্রয়োজনে বিভিন্ন দেশে যাতায়াত করেন। তিনি গত ১০ থেকে ১২ দিন ধরে সর্দি, জ্বর, কাশি ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। প্রথম কয়েকদিন স্থানীয় ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ খেলেও গত ১ এপ্রিল তাকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানকার ডাক্তার তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। কিন্তু ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পর সেখানে চিকিৎসা না পেয়ে রাতেই বাসায় ফিরে আসেন। তারপর থেকে বাসায় ছিল সুজন। শুক্রবার রাত ১টায় হাঠাৎ বুকে ব্যথা ও শ্বাসকষ্টে বেড়ে গেলে তাকে হাসপাতালে নেওয়ার পথেই মারা যায় সে। ইতোমধ্যে পরিবারের ১৩ সদস্যকে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে বলা হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. শেখ মোস্তফা আলী বলেন, ‘সুজন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত নয়। তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে।’

সুজনের ছোট ভাই আজম হোসেন জানান, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে ভারত থেকে আসেন সুজন। এরপর ভারতে যাওয়ার কথা থাকলেও করোনা ভাইরাসের কারণে যাওয়া হয়নি। পরে তিনি বাসায় ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ছাড়া কোথাও যাওয়া আসা করেননি। তাছাড়া আমাদের পরিবারে এর মধ্যে কেউ বিদেশ থেকেও আসেনি। ডাক্তার জানিয়েছেন তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। কিন্তু এলাকায় মানুষ গুজব ছড়িয়েছে যে করোনায় আক্রান্ত ছিল।

নারায়ণগঞ্জ সিভিল সার্জন মুহাম্মদ ইমতিয়াজ বলেন, জ্বর সর্দি ও শ্বাসকষ্ট থাকলেই কেউ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত নয়। আমরা তার ডাক্তার ও পরিবারের সঙ্গে কথা বলে নিশ্চিত হয়েছি সে করোনায় আক্রান্ত ছিল না। তাই নমুনা পরীক্ষা করার কোন প্রয়োজন নেই।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও