বাসে স্বাস্থ্য সচেতনতা, ছিল না লেগুনা টেম্পু অটো রিকশায় (ভিডিও)

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৭:৫১ পিএম, ১ জুন ২০২০ সোমবার

বাসে স্বাস্থ্য সচেতনতা, ছিল না লেগুনা টেম্পু অটো রিকশায় (ভিডিও)

করোনা সংক্রামণ রোধে ও জীবন যাত্রা সচল রাখতে টানা দুই মাস পর চালু হয়েছে নারায়ণগঞ্জ থেকে বাস চলাচল। শুরুর দিনেই যাত্রীদের ভীড় ছিল পরিবহনগুলোতে। পাশাপাশি সরকারি নিয়ম অনুসরণ করতেও দেখা গেছে পরিবহনগুলোতে। কিন্তু যাত্রীদের মধ্যে সচেতনতা ছিল কম। বাসগুলোর স্বাস্থ্য সচেতনতার দৃশ্য সন্তোষজনক হলেও বিপরীত দিকে লেগুনা, টেম্পু ও সিএনজি অটোরিকশায় এর কোন বালাই নেই। তবে ভাড়া কমানোর দাবি জানিয়েছেন যাত্রীরা।

১ জুন সোমবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত শহরের চাষাঢ়া বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা গেছে, নারায়ণগঞ্জ থেকে শিমরাইলগামী ও ঢাকাগামী প্রতিটি যাত্রীর হাতেই দেওয়া হচ্ছে হ্যান্ড স্যানেটাইজার, মাস্ক ব্যবহার করতে বলা হচ্ছে, পাশাপাশি দুটি আসনে একজন যাত্রী বসছেন। আবার কোন কোন বাসে তাপমাত্র পরীক্ষা, জীবাণুনাশক পানিতে জুতা ভিজিয়ে গাড়িতে উঠছে। এ সুবিধার জন্য যাত্রীদের গুনতে হচ্ছে ৬০ শতাংশ বেশি ভাড়া। এদিকে বাস মালিকেরা সচেতন হলেও যাত্রীদের মধ্যে সচেতনতা তেমন লক্ষ্য করা যায়নি। যাত্রীরা বাসে উঠতে কিংবা টিক কিনতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখছেন না। তবে এসব বিষয়ে প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন তদারকি দেখা যায়নি।

এ দৃশ্য দেখা যায় বন্ধন পরিবহন, উৎসব পরিবহন, শীতল পরিবহন, বিআরটিসি (ননএসি), বন্ধু পরিবহন, মৌমিতা পরিবহন, হিমাচল পরিবহন, আনন্দ পরিবহনে।

এ দৃশ্য দেখা যায়নি নারায়ণগঞ্জ থেকে শিমরাইলগামী কিংবা এ সড়কের অভ্যন্ত চলাচলকারী ছোট যানবাহনগুলো। এগুলো হলো লেগুনা, সিএনজি অটোরিকশা ও টেম্পুতে। লেগুনায় ১২জন যাত্রীর স্থলে ৮জন যাত্রী নেওয়া হচ্ছে। নেই মাস্ক ব্যবহারের জন্য আহবান, হ্যান্ড স্যানেটাইজার দেওয়া সহ স্বাস্থ্য সুরক্ষার কোন পদক্ষেপ। লেগুনা যাত্রী কয়েকজন কম নিলেও সিএনজি ও অটোরিকশায় কোন যাত্রী কম নেওয়া হচ্ছে না। ফরে সামাজিক দূরত্ব কিংবা স্বাস্থ্য সুরক্ষার কোন কিছু মানা হচ্ছে না।

পরিবহনগুলো থেকে জানা যায়, নারায়ণগঞ্জ থেকে ঢাকাগামী বন্ধন পরিবহন ও উৎসব পরিবহনে প্রতি যাত্রী থেকে নেওয়া হচ্ছে ৫৮ টাকা। যার মধ্যে ৫টাকা টোল। তবে এ করোনা পরিস্থিত আগেও এ ভাড়া ছিল ৩৬টাকা। বিআরটিসি নন এসি ৩০ টাকার ভাড়া ৬০ টাকা নেওয়া হচ্ছে। হিমাচল, মৌমিত, অনাবিল সহ বেশ কয়েকটি পরিবহনে পুরানো ভাড়ার হিসেবে ৬০ ভাগ বেশি নেওয়া হচ্ছে। এছাড়া শীতল এসি বাস ভাড়া নেওয়া হচ্ছে ৫৫ টাকার ভাড়া ৯০ টাকা ও বিআরটিসির ভাড়া ৫৫ টাকার ভাড়া ৭৫ টাকা। নারায়ণগঞ্জ থেকে শিমরাইলগামী বন্ধু পরিবহন ২০ টাকার ভাড়া ৩৮ টাকা নেওয়া হচ্ছে। তবে লেগুনা, টেম্পু ও সিএনজিতে আগের ভাড়াই নেওয়া হচ্ছে।

বন্ধন পরিবহনের সুপারভাইজার বাদল বলেন, ‘সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী আমরা যাত্রীদের সুরক্ষায় সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। হ্যান্ড স্যানেটাইজার, বাধ্যতামূলক যাত্রীদের মাস্ক ব্যবহার করা, ৪৮ আসনের মধ্যে ২২জন যাত্রী নিয়ে যাওয়া সহ সব কিছু মানা হচ্ছে। ভাড়ার ক্ষেত্রেও সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী ৬০ ভাগ বেশি নেওয়া হচ্ছে।’

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উৎসব পরিবহনের সুপার ভাইজার বলেন, অর্ধেক যাত্রী নিয়ে যাচ্ছে গাড়িগুলো। কিন্তু গাড়ির সিট খালি থাকছে। যাত্রী অনেক কম। আশা করছি কয়েকদিন পর যাত্রী সংখ্যা বাড়বে।

অনাবিল পরিবহনের হেলপার মো. আরিফ বলেন,‘আজকে প্রথম টিপ নিয়ে যাচ্ছি। তাই যাত্রী কেমন সেটা বলা যাচ্ছে না। প্রথম টিপেই গাড়ির ৬টি সিট খালি রয়েছে।’

নাম প্রকাশ না করে বিআরটিসি (ননএসি) সুপারভাইজার বলেন,‘সকালে অফিসের সময় যাত্রীর চাপ ছিল। কিন্তু ১১টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত গাড়ির আসনগুলো পূরণ হচ্ছে না।’

শীতল পরিবহনের যাত্রী ফরিদউদ্দিন বলেন, ‘আমাদের উপার্জন বাড়েনি। কিন্তু সব কিছুর খরচ বেড়ে গেছে। এখন পরিবহন ভাড়াও ৬০ ভাগ বাড়ানো হয়েছে। যা আমাদের মতো যাত্রীদের জন্য কষ্টকর।’

বন্ধন পরিবহনের যাত্রী মশিউর বলেন, ‘দুই মাস ধরে মানুষের আয় উপার্জন বন্ধ। কারো পকেটে টাকা নেই। তারপর এখন গাড়ি ভাড়া বাড়িয়ে দিয়েছে। আজকে যখন পরিবহন ভাড়া বেড়েছে কাল থেকে নিত্যপন্যের দামও বাড়বে। কারণ এ দেশে অজুহাত খুঁজে মানুষ। বলবে পরিবহন ভাড়া বেড়েছে দামও বাড়েছে। তাই বিষয়ে সরকারকে সঠিক তদারকি করা প্রয়োজন। অন্যথায় আমাদের মতো নি¤œ আয়ের মানুষের মরার উপর খাড়ার ঘা হবে এ পরিবহন ভাড়া।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও