দুষ্টচক্র নিয়ে ডিসির শঙ্কা ‘জিরো বানাতে ২ তিন মাসের বেশি লাগবেনা

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:৫৮ পিএম, ২ জুলাই ২০২০ বৃহস্পতিবার

দুষ্টচক্র নিয়ে ডিসির শঙ্কা ‘জিরো বানাতে ২ তিন মাসের বেশি লাগবেনা

নারায়ণগঞ্জের ৩০০ শয্যা হাসপাতালে (কোভিড ডেডিকেটেট হাসপাতাল) নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রের (আইসিইউ) কার্যক্রম চালু হওয়ায় সৃষ্টিকর্তা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো: জসিম উদ্দিন। সেই সঙ্গে দুষ্টচক্রের জন্য ভয় ও শঙ্কা প্রকাশ করে বলেছেন,‘এটাকেও জিরো বানাতে দুই তিন মাসের বেশি লাগবে না।’

বৃহস্পতিবার ২ জুলাই দুপুরে শহরের খানপুর এলাকায় কোভিড হাসপাতালে আইসিইউ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক (ডিসি) মো: জসিম উদ্দিন বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের জন্য আজকের দিনটি বিশেষ একটি দিন। স্মরনীয় হয়ে থাকবে। অবশেষে আমরা আইসিইউ চালু করতে পেরেছি। এর জন্য মাননীয় সংসদ সদস্যদের প্রচেষ্টা তো অবশ্যই আছে তার সঙ্গে সংসদ সদস্য-৪, আমাদের স্বাস্থ্য সচিব মহোদয়, লতিফ স্যার থেকে শুরু করে সবাই আইসিইউর বিষয়ে চেষ্টা করেছেন। নারায়ণগঞ্জের সাংবাদিক মহল, সুধীজন কেউ কিন্তু কম করেনি সবাই চেষ্টা করেছে যার যার অবস্থান থেকে। আমরা আশা করছি আজকের হাসপাতালের টিম সুন্দর সফল ভাবে নারায়ণগঞ্জের পাশাপাশি সারা দেশের কাছে তুলে ধরবেন।’

ডিসি আরো বলেন, ‘তবে একটি গ্রুপ কিন্তু ক্ষেপে যাবে আপনারা ভয় পাবেন না। যে একটি গ্রুপ আইসিইউ ব্যবসা করেছিল। নারায়ণগঞ্জ হাসপাতালে না থাকায়। তারা কিন্তু মনে মনে ক্ষেপে যাবে। আইসিইউ চালু হয়ে গেলো। তাদের অর্ধেক ব্যবসা তো বন্ধ হয়ে গেলো। কারণ এখানে ১০টি বেড কম নয়। এটা বিরাট ব্যাপার। অর্থাৎ তাদের যে চিপায় চাপায় আইসিইউ বেড ছিল তাদের অবস্থা খারাপ। এখন হাসপাতালের সহযোগিরা যদি আন্তরিক ভাবে চালায় তাহলে আমরা পারবো।

তিনি আরো বলেন, ‘একজন বলে গেছে যতদিন এ হাসপাতাল থাকবে ততদিন থাকবে। কিন্তু এটাকেও জিরো বানাতে দুই তিন মাসের বেশি লাগবে না। যদি কেউ তার খুলে পিছন দিকে রেখে দেয়। তখন অক্সিজেন যাবে না। হলো কি আসলে এখান দিয়ে তার খুলে রাখা হয়েছে। এ ঝুঁকিটা আছে। কারণ মূল ব্যবসা তারা অন্য জনের লগে ব্যবসা আছেতো। তাই এ বিষয়ে সবাই সর্তক থাকবেন। আমরা এগুলো নজর রাখবে।’

করোনা ভাইরাস বা কোভিড-১৯ নারায়ণগঞ্জের পরিস্থিতি নিয়ে ডিসি বলেন, ‘বর্তমানে আমরা একটা স্থিতিশীল পরিস্থিতিতে এসেছি। রূপগঞ্জে আমাদের যে লকডাউন ছিল রূপগঞ্জ ইউনিয়নে, সেটা সুন্দর সফল ভাবে সমাপ্ত করা হয়েছে। সেখানে কোন নতুন রোগী হয়নি। কোন মানুষকে না খাইয়ে রাখিনি। কোন মানুষের চাকরি হারাতে দেইনি। আমরা যে রোগী নিয়ে শুরু করেছিলাম সেখানে মাত্র ১২জন রোগী আছে। আজকে ৫ থেকে ৬জনের নেগেটিভ আসবে। হয়তো দুই একজনের থাকবে তাদের জন্য চিন্তা করতে হবে না। এরকম আমরা আরো দুই একটি জায়গায় দিতে পারি। যেটা স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জেলা স্বাস্থ্য বিভাগকে বলবে আমরা সেটা করবো।’

খানপুরের ৩০০ শয্যা হাসপাতালে আইসিইউ চালু হওয়ার পজেটিভ দিক হিসেবে ব্যাখায় তিনি বলেন, ‘আপনাদের সব থেকে বড় আশার জায়গাটি হলো, আইসিইউ সাপোর্ট দিক বা না দিক। সাধারণ একজন রোগী যখন জানবে সে পজেটিভ তখন তার ভিতরে অর্ধেক ভয় কমে যাবে। সে জানবে যে আমার বাড়ির পাশে এ খানপুরে ৩০০ বেড হাসপাতালে আইসিইউ আছে। আমাকে দৌড়ে এসে ছেলেরা এখানে নিতে পারবে অথবা পাশের বাড়ি লোকেরা নিতে পারে। তাতেই কিন্তু সে ভালো হয়ে যাবে। যখন এখনকার ডাক্তার তাকে বলবে, যেটা ডাক্তার জাহিদ করে, আমি করি, ‘চাচী আপনার কি হয়েছে, জ্বর। বুঝলেন কিভাবে গলায় ব্যথা আবার রাতে যখন জিজ্ঞাসা করি শ্বাসপ্রশ্বাস নিতে কষ্ট হয়। কেমন কেমন জানি লাগে। তারপর যখন বলি আপনার কোন সমস্যা নাই আপনি জোরে জোরে শ্বাস নিতে থাকেন। তখন সে অর্ধেক ভালো হয়ে যায়। পরে কথাটা যখন ডাক্তার জাহিদকে আমি বলি, আচ্ছা সাজেদা ফাউন্ডেশনে চারটা আইসিইউ আছে, অক্সিজেন আছে, এখানে অক্সিজেন আছে আপনি ভয় পাইয়েন না। সকাল বেলা দেখি এমনিতেই সুস্থ হয়ে যায়।

তিনি আরো বলেন, ‘অনেক পরিবারকে আমরা এভাবে কথা বলে দুর্যোগে ফেলে দেইনি। কিন্তু সারা বাংলাদেশে এখানে অনেক মানুষ ইচ্ছা করে দুর্যোগে বলে দিছে, আরে ভাই তুমি তো বাঁচবে না, তোমার পজেটিভ হয়েছে। এটা থেকে আমরা উঠেছি। অনেকজন তার মধ্যে দুই তিনজন কাউন্সিলরের নাম না বললেই নয়। তারা এখন বাংলাদেশে মডেল হয়েছে। এখানেও অনেকগুলো স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন তারা মানুষের মন জয় করেছে।

গণমাধ্যমকর্মীদের উদ্দেশ্যে ডিসি বলেন, বাংলাদেশের অন্য জেলার তুলনায় আপনারা কিন্তু অনেক বেশি নিউজ করেছেন। এতে প্রথম দিন ভয় লেগেছে আমার অনেক সাংবাদিক বুঝি আক্রান্ত হয়ে যাবে। কিন্তু সে ভাবে হয়নি। শীতলক্ষ্যা থেকে একজন, আরো দুইএকজন হয়েছে। আমরা সেই জায়গাটাও কভার করতে পেরেছি।’

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার বিষয়ে তিনি বলেন,‘নারায়ণগঞ্জবাসীর কাছে অনুরোধ আমরা যে স্বাস্থ্যবিধির কথা বলি সেটা মানতে হবে। আপনার না মানলে কিন্তু আমরা পারবো না। অনেক কিছু খুলে দেয়া হয়েছে। আজকে ফেরী ঘাটও খুলে দেয়া হয়েছে। তাই সব নিয়ম সুন্দর ও সঠিক ভাবে মানবেন। মাস্ক ব্যবহার করবেন।’


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও