জুনে নারায়ণগঞ্জে ৮ আত্মহত্যা একটি চেষ্টা

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৪৮ পিএম, ৪ জুলাই ২০২০ শনিবার

জুনে নারায়ণগঞ্জে ৮ আত্মহত্যা একটি চেষ্টা

নারায়ণগঞ্জে অভিমান হতাশায় বাড়ছে আত্মহননের মত ঘটনা। পারিবারিক কলহ, প্রেম, পরকীয়া প্রেম, ঋণ সহ নানা কারণে এসব আত্মহত্যার ঘটনা ঘটে চলেছে। এসব ঘটনায় আত্মীয় স্বজনরা সারা জীবন সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হয়। এসব ঘটনা কোন ধর্ম ও সমাজ ভাল চোখে দেখেনা।

জুনে জেলার বিভিন্ন স্থানে ঘটে যাওয়া আত্মহননের ঘটনার সচিত্র তুলে ধরা হল। এ মাসে ৮ টি আত্মহত্যা ও একটি আত্মহত্যা চেষ্টার ঘটনা ঘটেছে।

২৮ জুন বন্দরে সৎ বাবার সঙ্গে অভিমান করে কীটনাশক পানে আত্মহত্যা করেছে গৃহবধূ নিশি আক্তার(১৭)। নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

সম্প্রতি রূপগঞ্জে প্রেমিকের অপমান সহ্য করতে না পেরে প্রেমিকা ইরা আক্তার (১৬) নামে দশম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় শিক্ষার্থীর মা বাদী হয়ে একটি অভিযোগ দেন করেন। ইরা আক্তার উপজেলার গাইবান্ধা জেলার সদর থানার মুন্সিপাড়া এলাকার ইউসুফ আহমেদের মেয়ে। বর্তমানে উপজেলার তারাবো পৌরসভার হাটিপাড়া এলাকার শরীফ সাউদের বাড়ির ভাড়াটিয়া।

২৫ জুন আড়াইহাজারে অনার্সে অধ্যয়নরত একজন শিক্ষার্থী আত্মহত্যা করেছে। উপজেলার ধুপতারা ইউনিয়নের সত্যবান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম সিহাব (২০)। সে একই এলাকার নাসিরউদ্দিনের ছেলে ও ঢাকা কমার্স কলেজের অনার্স দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

২২ জুন বন্দরে সিনথিয়া (১২) নামে এক কিশোরী নিজ ঘরের আঁড়ার সাথে গামছা দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। উপজেলার হাফেজিবাগ এলাকায় এ আত্মহত্যার ঘটনাটি ঘটে। এলাকাবাসী মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে বন্দর ফাঁড়ী পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করেছে। আত্মহননকারি কিশোরী ¯িœথিয়া ওই এলাকার দিনমজুর মোঃ আশাবুদ্দিন মিয়ার মেয়ে বলে জানা গেছে।

২১ জুন বন্দরে মা ও বোনের সাথে অভিমান করে ওড়না দিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আকাশ (১৫) নামে এক কিশোর আত্মহত্যার ব্যর্থ চেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নস্থ সেলসারদী এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

১৪ জুন বন্দরে পারিবারিক কলোহের জের ধরে সুমি আক্তার (১৯) নামে এক নববধূ আত্মহত্যা করেছে। সকাল ১০ টায় বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়নের সাবদী কলাবাগ এলাকায় এ আত্মহত্যার ঘটনাটি ঘটে। সংবাদ পেয়ে মদনগঞ্জ ফাঁড়ী পুলিশ ওই দিন বেলা ১২ টায় দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে ওই নববধূর মৃতদেহ উদ্ধার করে র্মগে প্রেরণ করে। এ ব্যাপারে আত্মহননকারি নববধূর পিতা আলেক চাঁন মিয়া বাদী হয়ে ওই দিন বিকেলে বন্দর থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেন।

১৪ বছর আগে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় নিপার। গত ৫ বছর আগে তার স্বামী জীবিকার তাগিদে মালয়েশিয়া চলে যায়। বর্তমানে সেখানে লকডাউন থাকায় গ্রাম থেকে বিদেশে অর্থ পাঠাতে হতো। পাশাপাশি পরিবার চালাতে ও ঋণ এবং এনজিও এর কিস্তি পরিশোধ করতে হতো। গত কয়েকমাস ধরে কিস্তি ও ঋণের টাকা পরিশোধ করতে না পারায় চাপে পড়ে নিপা। সেই চাপ সামলাতে না পেরে তিন সন্তাদের জননী নিপা আত্মহত্যা করে।

৯ জুন আড়াইহাজারে পরিবার চালাতে গিয়ে হিমশিমের পাশাপাশি ঋণ ও এনজিও এর কিস্তি পরিশোধের চাপে আত্মহত্যা করেছেন তিন সন্তানের জননী নিপা আক্তার (৩১)। উপজেলার গোপালদী পৌরসভার রামচন্দ্রাদী গ্রামের বাড়িতে আত্মহত্যা করেন তিনি। নিপা স্থানীয় ওয়াদ আলীর স্ত্রী, তার বাবার বাড়ি উপজেলার মাহমুদপুর ইউনিয়নে।

৭ জুন আড়াইহাজার উপজেলার হাইজাদী ইউনিয়নের ভিটি কামালদী গ্রাম থেকে জনি আক্তার (১৮) নামে এক যুবতীর লাশ উদ্ধার করেছে আড়াইহাজার থানা পুলিশ। দুপুরে তাদের নিজ বাড়ী থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও