মামলা জেল তবুও মদের বার চলতে দেওয়া হবে না

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:৩৯ পিএম, ১২ জুলাই ২০২০ রবিবার

মামলা জেল তবুও মদের বার চলতে দেওয়া হবে না

নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়ায় বালুর মাঠ এলাকাতে প্যারাডাইজ ভবনে আলোচিত মদের বার ব্লু পিয়ার নিয়ে নানা আলোচনা সমালোচনা চলছে। তারই ধারাবাহিকতায় এবার নারাণণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ফোরাম জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভাতেও বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

১২ জুলাই রোববার বেলা ১১ টায় নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের সম্মেলন কক্ষে এই সভা অনুষ্ঠিত হয়। এই সভায় ব্লু পিয়ার নামে মদের বার প্রসঙ্গে জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির অন্যতম সদস্য নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মাহবুবুর রহমান মাসুম বলেছেন, ব্লু পেয়ার হচ্ছে নারায়ণগঞ্জের এখন একটা অভিশাপ। এখানে একটি মসজিদ নূর মসজিদ যেটা নারায়ণগঞ্জের অন্যতম কেন্দ্রীয় মসজিদ। তার পাশে প্রেসক্লাব তার পাশে ইসলাম হার্ট সেন্টার। তার পাশে তোলারাম কলেজ মহিলা কলেজ। যেখানে অসংখ্য লোক যাতায়াত করে। সেখানে রয়েছে ব্লু পেয়ার মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর নিষেধ করেছে। সেই ব্লু পেয়ারে মদের ব্যবসা চলছে। ছোট করে ওপেন লেখা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, মুসুল্লিরা এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছে, গণমাধ্যম কর্মীরা সবার আগে বলেছে। আজকেও বলেছি প্রয়োজনে মামলা খাবো, প্রয়োজনে জেলে যাবো কিন্তু ব্লু পেয়ারকে এখানে মদ বিক্রি করতে দেয়া হবে না। গণমাধ্যম কর্মীরা ঝুঁকিতে যাবে। কোনো অবস্থায় ব্লু পেয়ারকে ব্যবসা করতে দেয়া হবে না। এ ব্যাপারে ডিসি এসপিকে আমরা আহবান করেছি আইনগত ব্যবস্থা নিন। লাইসেন্স যেন রিনিউ না করা হয়। আর ব্লু পেয়ার যেহেতু রেস্টুরেন্টের নামে অন্যায়ভাবে পার্সেলের মাধ্যমে মদের ব্যবসা চালু করেছে সেহেতু মেয়রের কাছে আহবান করেছি তাদের ট্রেড লাইসেন্স যেন রিনিউ না করা হয়।

প্রসঙ্গত, শহরের ভাষা সৈনিক সড়ক যেটা বালুরমাট হিসেবে পরিচিত সেখানে রয়েছে প্যারাডাইজ ক্যাবলস গ্রুপের মালিকানাধীন বহুতল ভবন। এ ভবনের ৮, ৯ ও ১০ এ তিনটি ফ্লোর ৪০ লাখ টাকা অ্যাডভান্সে ভাড়া নিয়ে ‘ব্লু পেয়ার’ নামক একটি সুসজ্জিত বারের ডেকোরেশনের কাজ সম্পন্ন করেন এর মালিক গাজী মুক্তার। প্যারাডাইজের পক্ষে ভাড়া দিয়েছেন মোবারক হোসেন। গত ২৯ জানুয়ারি ব্লু পিয়ার রেস্টুরেন্টেরর নামে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন ঘোষণা করে মালিক পক্ষ। উদ্বোধনের দিন মালিকপক্ষ মদের বিষয়টি আড়াল করার চেষ্টা করার চেষ্টা করলেও ধীরে ধীরে তাদের মদের ব্যবসার বিষয়টি প্রকাশ হয়ে আসে।

আর এ নিয়ে নারায়ণগঞ্জের আলেম সমাজ ও সচেতন মহল এবং রাজনৈতিক ব্যক্তিরা নানাভাবে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন। সেই সাথে আলেম সমাজ কঠোর আন্দোলনে যাওয়ার ঘোষণা দেন। ওই ঘোষণার পরে ১২ ফেব্রুয়ারী মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের ডিজির নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল পরিদর্শন করে চাষাঢ়ায় বালুর মাঠ এলাকাতে প্যারাডাইজ ভবনে আলোচিত মদের বারটি বন্ধের নির্দেশ দেন। করোনাকালে নিরবতার সুযোগ নিয়ে সেটি আবার গোপনীয়ভাবে পার্সেলের মাধ্যমে মদের ব্যবসা চালু করছে। যা নিয়ে নারায়ণগঞ্জের সর্ব মহলে আবারো ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও