নাসিকের জমি অধিগ্রহণের টাকা নিয়ে সংবাদ সম্মেলন

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৪৬ পিএম, ১৫ জুলাই ২০২০ বুধবার

নাসিকের জমি অধিগ্রহণের টাকা নিয়ে সংবাদ সম্মেলন

জালকুড়ি মৌজায় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের পক্ষ থেকে অধিগ্রহণকৃত জমির দুইজন মালিকানা দাবি করায় টাকা পরিশোধ করতে গিয়ে বেকায়দায় পড়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন। জমির মালিকানা নিয়ে মিসকেস চলা অবস্থায় অপর পক্ষকে চেক দিয়ে দেওয়ার অভিযোগ করে লিভিং ভিশন লি. নামে একটি হাউজিং কোম্পানি। তবে আবেদনের পর দুই পক্ষকে সামনে রেখে শুনানির পর প্রকৃত মালিককে অর্থ পরিশোধের আশ্বাস দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন।

১৫ জুলাই বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবে এ বিষয়ে কথা বলার জন্য সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছিলেন লিভিং ভিশন লি. কর্তৃপক্ষ। এসময় উপস্থিত ছিলেন লিভিং ভিশন লি. এর এমডি দেলোয়ার হোসেন, চেয়ারম্যান রাশেদুল আহসান ও মিডিয়া পার্সন জিল্লুর রহমান।

তবে সংবাদ সম্মেলনের আগের দিন জেলা প্রশাসক মো. জসিম উদ্দিন তাঁদেরকে ডেকে দুই পক্ষকে এক সাথে রেখে প্রকৃত মালিকের হাতে টাকা তুলে দেওয়ার আশ্বাস দিলে সংবাদ সম্মেলন করেনি লিভিং ভিশন লি. কর্তৃপক্ষ।

লিভিং ভিশন লি. এর এমডি দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘অনেক আগে থেকেই ডিসি অফিসে আমার একটি ক্ষতিপূরণের ফাইল জমা পরেছিল। একজন আমাকে ইনফরমেশন দিয়েছিলেন যে ক্ষতিপূরণ আমি পাবো না। আমাদের অনুপস্থিতিতে ফয়সালা হয়ে যাবে। সেই আশঙ্কা থেকেই সংবাদ সম্মেলন করার জন্য এসেছিলাম। কিন্তু জেলা প্রশাসক মহোদয় আমাদেরকে জানিয়েছেন যে সেরকম কিছুই হবে না। তাঁর আশ্বাসে আমরা সংবাদ সম্মেলন বাতিল করেছি।’

চেয়ারম্যান রাশেদুল আহসান বলেন, ‘আমাদের যখন আশঙ্কা হলো যে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হতে যাচ্ছি। তখন আমাদের শেষ ভরসা হিসেবে যে আমরা সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করি। এরপর ওনারা আমাদের সাথে যোগাযোগ করেছেন। যেমনটা আশঙ্কা করেছিলাম সেরকম হবে না। আমাদেরকে আশ্বাস দেওয়া হয়েছে যে সবাইকে ডেকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তাই আমাদের কারো বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ নেই।’

লিভিং ভিশন লি. এর মিডিয়া পার্সন জিল্লুর রহমান বলেন, ‘গতকাল পর্যন্ত আমাদের অভিযোগ ছিল যে আমাদেরকে না জানিয়ে মামলা চলা অবস্থায় এলএ অফিস অপর পক্ষকে চেক দিয়েছে। টাকার পরিমাণ প্রায় ৭০ থেকে ৮০ লাখ টাকা। জালকুড়ি মৌজায় আমাদের সাড়ে ১৯ শতাংশ জায়গা সিটি করপোরেশন অধিগ্রহণ করেছে। সেই জমি অধিগ্রহণের পরে আমাদেরকে নোটিশ দেওয়া হয় টাকা গ্রহণের জন্য। পরে একজন মিসকেস করার পরে ওনার মামলা গ্রহণ করা হয় এবং ওনার পক্ষে রায় হয়। গত পরশু ওনাকে একটি চেক প্রদাণ করা হয়। তখন আমরা এলএ অফিসে দরখাস্ত করেছি যে টাকা দেওয়া যাবে না। পরবর্তিতে আমাদের অভিযোগ শুনে ওনারা ব্যাংকে বলে দিয়েছেন যাতে টাকা ক্যাশ করা না হয়। এক সপ্তাহ পরে আবারো শুনানি হবে। তখন যে পক্ষকে টাকা দেওয়া দরকার এলএ অফিস সেই পক্ষকে টাকা দিয়ে দিবে।


বিভাগ : মহানগর


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও