২ কার্তিক ১৪২৫, বুধবার ১৭ অক্টোবর ২০১৮ , ২:৩৩ অপরাহ্ণ

UMo

যানজট নিয়ে নাগরিক কমিটির অভিমত


প্রেস বিজ্ঞপ্তি || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:০৫ পিএম, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ মঙ্গলবার


ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

নারায়ণগঞ্জ নাগরিক কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট এ.বি. সিদ্দিক প্রেরিত বিবৃতিতে বলা হয়, নারায়ণগঞ্জ শহর জনসংখ্যার দিক দিয়ে শুধু দেশের মধ্যে নয় পৃথিবীর মধ্যেও অন্যতম প্রধান ঘনবসতিপূর্ণ জনপদ। শিল্পে, ব্যবসা বাণিজ্যে এর গুরুত্ব বাড়ার কারণে পাল্লা দিয়ে জন সংখ্যাও বৃদ্ধি পাচ্ছে কিন্তু এর পরিধি বাড়ার কোন সুযোগ নেই। ফলে শহরের যানজট সমস্যা তীব্র থেকে তীব্রতর হয়েই চলেছে।

এই প্রেক্ষাপটে আমাদের ১৩ নং ওয়ার্ডের দীর্ঘদিন থেকে নির্বাচিত কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার শহরের যানজট বিষয়ে তার ভাবনা প্রশাংসার দাবীদার। তিনি বেশ কিছু সুপারিশও করেছেন। বলেছেন নারায়ণগঞ্জ রেল ষ্টেশনে দিনে ৩২ বার ট্রের আসা-যাওয়ায় ৩টি রেলক্রসিংয়ে “৯ মিনিটি সময় ব্যয় হয় যা যানজটের মূল কারণ”।

সুতরাং মাথায় ব্যথা হয়েছে অতএব কেটে ফেল। আসলে এখানে ব্যয় হয় ৪-৫ মিনিট। তার সাথে দ্বি-মত পোষণ করে নারায়ণগঞ্জ রেলস্টেশন যানজটের জন্য সামান্যই দায়ী এবং এর ঐতিহাসিক গুরুত্ব ও উন্নয়নে স্বীকৃত অবদান মাথায় রেখে বিলুপ্ত প্রায় অতীত ঐতিহ্য ফিরে পেতে এই ষ্টেশন এখনও তাৎপর্য ভূমিকা রাখতে পারে।

যানজটের মূল কারণগুলি উল্লেখ পূর্বক যানজট নিরসনে কয়েকটি বিষয়ে উল্লেখ করতে চাইঃ- সভ্যতার চরম ক্ষনেও গুরুত্বপূর্ণ এই শহরে এখনো ট্রাফিক সিগনাল নেই, জেবরা ক্রসিং নেই। গুরত্বপূর্ণ মোড়গুলিতে পর্যাপ্ত ট্রাফিক নেই, রিকসা , সিএনজি, ইজি বাইক এর কোন নির্দিষ্ট ষ্টপেজ নেই। ইউনিয়ন পরিষদের রিকসা  অবাধে শহরে প্রবেশ , টেম্পু ও প্রাইভেট কার (ভাড়ার) সহ ঔষধ কোম্পানীর প্রতিনিধিদের মটর  সাইকেলের প্রদর্শনি বঙ্গবন্ধু সড়কে নিত্যদিনের ঘটনা। আন্তঃজেলা বাসের প্রবেশাধীকার সহ হাজার হাজার অবৈধ রিকসার বিচরন এবং চাষাঢ়ায় ডাকবাংলা ও পুলিশ ফাঁড়ির অসম অবস্থানের ফলে যানবাহন আটকা পড়ে, ফলে অধিকাংশ সময় যানজট লেগেই থাকে, তার প্রভাব পড়ে বঙ্গবন্ধু সড়কে, লিংক রোডে , ফতুল্লা রোড সহ নবাব সলিমুল্লাহ সড়কে।  সৃষ্ট এই যানজট দূর করতে হলে

(ক) ডাকবাংলো ও পুলিশ ফাঁড়ির আংশিক অপসারণ করতে হবে, যেটি সরানোর জন্য দীর্ঘ দিন থেকে আন্দোলন হয়ে আসছে। (খ) নারায়ণগঞ্জ কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের অবস্থান শহরের কেন্দ্রস্থল থেকে সরিয়ে চাষাঢ়ার অদূরে স্থানান্তর করতে হবে। (গ) শহরে ট্রাকের প্রবেশাধীকার সকাল ৭ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত নিষিদ্ধ রাখতে হবে। (ঘ) ইউনিয়ন পরিষদের রিকসা শহরে প্রবেশ নিষিদ্ধ করতে হবে। (ঙ) রিকসা, সিএনজি, ইজি বাইক এর নির্দিষ্ট স্টপেজ করতে হবে। (চ)     সিটি কর্পোরেশন এলাকায় আধুনিক সিটি বাস সার্ভিস সময়ের দাবী এবং সেই সাথে ক্রমান্বয়ে রিকসা উঠিয়ে দিতে হবে। (ছ) আধুনিক ট্রাফিক সিগনাল সিষ্টেম অতি সত্তর স্থাপন করতে হবে। (জ)    শোনা যাচ্ছে টংঙ্গী থেকে রেল লাইনের উপর দিয়ে ফ্লাইওভার নির্মাণের মহা পরিকল্পনা হাতে নেয়ার কাজ এগিয়ে চলছে যা নারায়ণগঞ্জ পর্যন্ত সম্প্রসারিত হবে। এই পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হলে সমস্ত রেলক্রসিং গুলি কভার হওয়া সহ যোগাযোগ ব্যবস্থায় বাংলাদেশ উন্নত বিশে^র কাতারে প্রবেশ করবে। (ঝ) নারায়ণগঞ্জ ডিসি অফিস থেকে মন্ডলপাড়া পুল পর্যন্ত ফ্লাইওভার নির্মাণ যানজট নিরসনে একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।

আলোচিত পদক্ষেপ যথাযথ বিবেচিত হলে এবং ট্রেনে বগীর সংখ্যা কম পক্ষে ১০টিতে উন্নীত করে প্রয়োজনে ট্রেনের সংখ্যা ২-৩টি কমিয়ে দিয়ে হলেও নারায়ণগঞ্জ রেল ষ্টেশন ও শীতলক্ষ্যা নদীর অতীত গৌরবোজ্জল ভূমিকা অক্ষুন্ন রাখতে নারায়ণগঞ্জ রেল ষ্টেশনকে টিকেয়ে রাখা নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নের স্বার্থেই প্রয়োজন। এদিকে নারায়ণগঞ্জ রেল ষ্টেশনের বিরাট জমিটি অত্যন্ত মূল্যবান। লোভী, ভূমি দস্যূদের শ্যান দৃষ্টি পড়া খুবই স্বাভাবিক। ষ্টেশনটি উঠিয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্রও এখানে অস্বাভাবিক নয়।  অন্যদিকে প্রাচ্যের ডান্ডি হিসেবে প্রাপ্ত খ্যাতির মূলে ষ্টেশনের সাথে শীতলক্ষ্যা নদীর অবদান অনস্বীকার্য। তাই ষ্টেশন রক্ষা করতে না পারলে শীতলক্ষ্যা নদীও গুরুত্বহীন হয়ে ক্রমান্বয়ে ধ্বংসের দিকে ধাবিত হবে। ফলশ্রুতিতে নারায়ণগঞ্জের অতীত গৌরব ফিরে পাবার সম্ভবনাও চিরতরে বিলীন হবে যার কৈফিয়ত দিতে হবে আমাদেরকেই আগামী প্রজন্মের কাছে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

সংগঠন সংবাদ -এর সর্বশেষ