৬ আষাঢ় ১৪২৫, বুধবার ২০ জুন ২০১৮ , ৫:১৭ অপরাহ্ণ

৮ মাসের শিশুকে কোলে নিয়ে বেতনের দাবিতে মা


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৪৯ পিএম, ১৩ জুন ২০১৮ বুধবার | আপডেট: ০৩:৪৯ পিএম, ১৩ জুন ২০১৮ বুধবার


৮ মাসের শিশুকে কোলে নিয়ে বেতনের দাবিতে মা

মাত্র ৮ মাস বয়স। কথাও বলতে পারে না। ফুটফুটে হাসিমাখা ছোট চোখের অপূর্ব দেখতে শিশুটি। যাকে বাসায় থাকার কথা সেও মায়ের সঙ্গে রাস্তার ফুটপাতে বসে আছে। এতো জোরালো বক্তব্য ও তাপদাহের মধ্যেও কান্না করছে না। কখনো মায়ের কোলে আবার কখনো মায়ের সহকর্মীদের কোলে। কেউ কেউ বলছে বকেয়া বেতনের জন্য আজ শিশুটিকেও মায়ের সঙ্গে এসে এখানে বসে থাকতে হয়েছে।’

১৩ জুন বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে রিতিকা ফ্যাশন ওয়ার লিমিটেড এর শ্রমিকদের দ্বিতীয় দিনের মতো অবস্থান কর্মসূচিতে মা পপি আক্তারের সঙ্গে বসে থাকতে দেখা যায় ৮ মাসের শিশু রিমিকে।

পপি আক্তার রিতিকা ফ্যাশনওয়্যার লিমিটেডের সুইং বিভাগের শ্রমিক। তিনি ৬ হাজার টাকা মাসিক বেতনে বন্দরের মদনপুর থেকে টানবাজার এলাকার কারখানায় এসে চাকরি করেন। মদনপুর বোনের বাসায় থেকে কাজ করেন বলে বাসা ভাড়া না দিলেও খাবার খরচ দিতে হয়।

পপি আক্তার জানান, তার স্বামী একজন ট্রাক চালক। তিনি গর্ভবতী তখনই তার স্বামী তাকে রেখে চলে যান। সেই থেকে রিমি ও সিমি জমজ দুই মেয়েকে নিয়ে মদনপুর বোনের বাসায় বসবাস করছেন।

তিনি বলেন, ‘তিন মাসের বেতন বকেয়া খাবার খরচের টাকা দিতে পারছিনা। তার চেয়ে বড় দুই মেয়ের জন্য খাবার জোগাড় করতেই কষ্ট হয়। আমি না খেয়ে থাকতে পারি কিন্তু তাদের তো না খাইয়ে রাখতে পারি না। দুইটা মেয়ে জমজ। যখন ক্ষুধা লাগে দুইটা এক সঙ্গে কান্না করে। তাই বাধ্য হয়ে একটাকে নিয়ে এসে পড়েছি। আরেকটাকে বোন দেখবে। ওদের নতুন জামা কিনে দিবো তো দূরের কথা এখনও পর্যন্ত আগামী মাসের জন্য ওদের দুধ কিনতে পারি নাই। এভাবে থাকলে ঈদের মধ্যে মেয়েদের নিয়ে না খেয়ে থাকতে হবে।’

পপির মতো রিতিকা ফ্যাশন ওয়ার লিমিটেডের ৯০ জন শ্রমিক রোদ বৃষ্টির মধ্যেই তিন মাসের বকেয়া বেতনের দাবিতে গত ৭ মে থেকে ধারাবাহিক আন্দোলন করছেন। ৩০ মে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক ও ০৭ মে কালকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর নারায়ণগঞ্জ জেলা উপ মহা পরিদর্শক ইকবাল আহমেদ কাছে স্মরকলিপি দেওয়া হয়। তারপরও কোন সমাধান আসেনি।’

গার্মেন্ট ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি এমএ শাহিন বলেন, কতটা নিরূপায় হয়ে আজ ৮মাসের শিশু সন্তানকে নিয়ে ফুটপাতে বসে আন্দোলন করতে হয়েছে একজন মাকে। সন্তানের ও নিজের জন্য আজ আন্দোলন করতে হচ্ছে। এ শিশুটিকেও আজ মায়ের কষ্টের সম্মুখীন হতে হয়েছে। তারপরও এ পাষাণ মালিকদের হৃদয়ে মায়া হয় না। নিজেরা ঠিকই আরাম আয়েশে ঈদে আনন্দ করবে। কিন্তু শ্রমিক ও তাদের সন্তানরা না খেয়ে ঈদ উদযাপন করবে। এটা হতে পারে না অবিলম্বে শ্রমিকদের বেতন পরিশোধ না করা হলে কঠোর আন্দোলন করা হবে।

তিনি আরো বলেন, সদর থানা পুলিশের আশ্বাসা আমরা আমাদের কর্মসূচি আজকের মতো বিকাল ৪টায় স্থগিত করছি। পুলিশের পক্ষ থেকে আশ্বাস দিয়েছে মালিক পক্ষ আজ আমাদের কিছু টাকা দিবে। বাকি টাকা ঈদের পর দিবে। তাহলেও শ্রমিকেরা ঈদে খাবারে ব্যবস্থা করতে পারবে।’

কালকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর নারায়ণগঞ্জ জেলা উপ মহা পরিদর্শক ইকবাল আহমেদ বলেন, রিতিকা ফ্যাশন ওয়ার লিমিটেড এর মালিক পলাতক রয়েছে। পর পর তিনবার তারিখ দিয়েও শ্রমিকদের বেতন দেয়নি। তাই তাকে গ্রেফতারের জন্য ইতোমধ্যে শিল্প পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও আমরা ঈদের পর মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

সংগঠন সংবাদ -এর সর্বশেষ