৪ আশ্বিন ১৪২৫, বৃহস্পতিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ৭:৪৫ পূর্বাহ্ণ

স্মৃতি হত্যার বিচার চেয়ে মানববন্ধন


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৪০ পিএম, ১৯ আগস্ট ২০১৮ রবিবার


স্মৃতি হত্যার বিচার চেয়ে মানববন্ধন

নাারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের গৃহবধূ স্মৃতি রানী বর্মণ হত্যার বিচার চেয়ে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ১৯ আগষ্ট রোববার সকালে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে রোটারী ক্লাব অব নারায়ণগঞ্জ রিভার সাইডের উদ্যোগে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন রোটারী ক্লাব অব নারায়ণগঞ্জ রিভার সাইডের সভাপতি এম এ মতিন, সাধারন সম্পাদক আরিফ হাসান, সুমন, নিহত স্মতি রানী বর্মণের বাবা হরিচরন বর্মনসহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

রোটারী ক্লাব অব নারায়ণগঞ্জ রিভার সাইডের সভাপতি এম এ মতিন বলেন, আমরা এভাবে আর নারীর মৃত্যু দেখতে চাই না। আমরা স্মৃতি রানী বর্মণ হত্যার দ্রুত বিচার চাই। এসকল হত্যাকান্ডের বিচার হয় না বলেই খুনীদের দৌরাত্ম্য বেড়ে চলছে। স্মৃতি হত্যার আসামীরা দেশের বাইরে পালিয়ে যাওয়ার পায়তারা করছে। তারা যেন কোনভাবেই দেশ ছেড়ে পালিয়ে যেতে না পারে সেই ব্যবস্থা করতে হবে পাশাপাশি খুবই দ্রুত তাদেরকে আইনের আওতায় আনতে হবে।

স্মৃতি রানী বর্মণের বাবা হরি চরণ বর্মণ বলেন, বিয়ের পর অনেকবার যৌতুকের টাকা দিয়েও আমার মেয়েকে তার পাষন্ড স্বামীর হাত থেকে রক্ষা করতে পারেনি। সবমিলিয়ে তাকে ১০ লাখ টাকা যৌতুক দিয়েছি। তারপরেও যৌতুকের দাবিতে মেয়েকে নির্যাতন করতে করতে তাকে মেরেই ফেলেছে। এখনো কোনো আসামীকে গ্রেফতার করা হয় নাই। আমি আমার মেয়ে হত্যার দ্রুত বিচার চাই।

মামলা সূত্রে জানা যায়, স্মৃতি রাণী বর্মণকে বিয়ের পর শ^শুরবাড়ির ৬ লাখ টাকা দিয়ে লন্ডনে যায় স্বামী রিপন চন্দ্র বমর্ণ। এর মধ্যে স্মৃতি বর্মণের একটি কন্যা সন্তানের জন্ম দেন। রিপন ৬ বছর লন্ডনে থাকা অবস্থায় স্মৃতি ও তাঁর মেয়ের কোনো রকম ভরণ পোষণ করেনি। এমনতাবস্থায় বাবা হরিচরণ মেয়ে ও নাতনিকে নিজেরে কাছে রেখে লালন পালন করেন।

এদিকে লন্ডন থেকে ফিরে এসে রিপন চন্দ্র স্মৃতি ও তার মেয়েকে তাঁদের বাড়ি নিয়ে যায়। এরই মধ্যে বিভিন্ন ভাবে কয়েক ধাপে ১০ লাখ টাকা যৌতুক গ্রহণ করে রিপন। এক পর্যায়ে আরও ৪ লাখ টাকার জন্য স্মৃতিকে রানীকে চাপ প্রয়োগ করতে থাকে। এতে স্মৃতি কোনো টাকা এনে দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে রিপন ও তাঁর মা ও ভাইয়েরা মিলে ৯ আগস্ট স্মৃতি রাণীকে নির্মম নির্যাতন করে গুরুতর আহত করে। গুরুতর আহত অবস্থায় রাত ১০ টার দিকে স্মৃতিকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত ডাক্তার স্মৃতির অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে ঢাকা মেডিক্যাল হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। পরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে গেলে সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

সংগঠন সংবাদ -এর সর্বশেষ