১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮ , ৩:১৭ অপরাহ্ণ

UMo

চাষাঢ়া সিটি হকার মার্কেটের নির্বাচন শনিবার, বিতর্কিতরা আলোচনায়


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:১১ পিএম, ১৯ অক্টোবর ২০১৮ শুক্রবার


চাষাঢ়া সিটি হকার মার্কেটের নির্বাচন শনিবার, বিতর্কিতরা আলোচনায়

২০ অক্টোবর শনিবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জ সিটি হকার্স মার্কেট সমবায় সমিতির নির্বাচন। বৃহস্পতিবার রাতে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের দফায় দফায় মিছিল ও গণসংযোগে মার্কেট এলাকা সরগরম থাকলেও শুক্রবার ছিলনা কোন ধরনের প্রচারণা।

এদিকে নির্বাচনে ভোটারদের প্রাধান্য পাচ্ছে বিগত দিনে মার্কেটে নানা অনিয়ম দুর্নীতি ও চাঁদাবাজির বিষয়টি। সমিতির ১২টি পদের বিপরীতে লড়ছেন ২৮ জন। তবে এসকল প্রার্থীদের অনেকেই রয়েছেন বিতর্কিত যাদের বিরুদ্ধে বিগত দিনে হকারদের অর্থ লোপাটের অভিযোগ ছিল। এছাড়া বিগত দিনে মাদকসহ গ্রেফতার হওয়া কয়েকজনও প্রার্থী হয়েছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। কখনোই ফুটপাতের হকার ছিল না তবে হকার্স মার্কেটের দোকান ক্রয় করে নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন একাধিক প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীও। যে কারণে এবছরের নির্বাচনে বিগত দিনের নানা অনিয়ম দুর্নীতি ও বহিরাগতদের প্রার্থী হওয়ার বিষয়টি বেশ আলোচিত হকারদের মধ্যেও।

ভোটারদের সঙ্গে আলাপকালে জানা গেছে, শহরের চাষাঢ়ায় নবাব সলিমুল্লাহ সড়কে অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ সিটি হকার্স মার্কেটের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের বিদ্যুৎ বিলের প্রায় সাড়ে ৭ লাখ টাকা লোপাটের অভিযোগ দীর্ঘদিনের। বিদ্যুৎ বিল বাবদ টাকা নিয়ে তা ডিপিডিসিকে পরিশোধ না করায় ৩দিন বিদ্যুতহীন ছিল চাষাঢ়াস্থ সিটি হকার্স মার্কেট। ৫ লক্ষাধিক টাকার উপরে বিদ্যুতের বিল বকেয়া থাকায় গত ২৪ জুন চাষাঢ়ায় নবাব সলিমুল্লাহ সড়কে অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ সিটি হকার্স মার্কেটের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয় ডিপিডিসি। পরে কিছু বকেয়া পরিশোধ করে গত ২৭ জুন পুণরায় সংযোগ পায় হকার্স মার্কেটের হকাররা।

গত ১ জুলাই মার্কেটের অভ্যন্তরে এক জরুরী সভা চলাকালে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী কমিটির নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ তুলে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। ওইসময় ব্যপক হট্টগোল ও চরম বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়। কমিটির নেতৃবৃন্দ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের তোপের মুখে পড়েন। পরে বিষয়টি সাময়িক সমস্যার সমাধান করা হলেও সেই ৭ লাখ টাকা লোপাটের বিষয়টি এখনো সুরহা হয়নি। ওই সময় ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা বলেছিলেন, প্রতি ইউনিট বিদ্যুৎ যেখানে ৯-১২টাকা সেখানে আমাদের কাছ থেকে কমিটি নিচ্ছে প্রতি ইউনিট ১৪ টাকা। এক্ষেত্রে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধ করেও কমিটির ফান্ডে আরো টাকা জমা থাকার কথা। কিন্তু কমিটির ফান্ডে টাকা তো দূরের কথা উল্টো কমিটিই বিদ্যুৎ খাতে দেনা রয়েছে প্রায় ৭ লাখ টাকা। আমরা লুটপাটের এ টাকা পয়সার হিসাব চাই। এছাড়াও তারা আরো অভিযোগ করে মার্কেটের বাইরের দিকেও অনেকগুলো দোকান বসানো হয়েছে। ওইসকল দোকানগুলো থেকেও অর্থ পাচ্ছে মার্কেট কমিটি। কিন্তু কোন টাকারই হিসাব নেই। তবে টাকার হিসাব দিতে না পারলেও বিগত কমিটির অনেকেই এবছরও প্রার্থী হয়েছেন।

২০ অক্টোবর শনিবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে নারায়ণগঞ্জ সিটি হকার্স মার্কেট সমবায় সমিতির নির্বাচন। চাষাঢ়া সিটি হকার্স মার্কেটে ৬৭২দোকান রয়েছে। ২০১৬ সালে আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করে সিটি হকার্স মার্কেট সমবায় সমিতি। শুধুমাত্র সমিতির ২৬৯ জন সদ্যসই এই নির্বাচনে ভোট দেয়ার অধিকার পাচ্ছেন। সকল দোকানী বা মালিকবৃন্দ এখন পর্যন্ত এই সমিতির সদস্যপদ গ্রহণ করেননি। সমিতির ১২ টি পদের বিপরীতে প্রার্থীর সংখ্যা ২৮ জন। যার মধ্যে সভাপতি পদের জন্য ৫ জন, সহ-সভাপতি পদের জন্য ৩ জন, সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য ৪ জন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য ৩ জন, কোষাধ্যক্ষ পদের জন্য ৩ জন ও ৭টি কার্যকরী সদস্য পদের জন্য লড়ছেন ১০ জন প্রার্থী। শনিবার ২০ অক্টোবর সকাল ১০ টা থেকে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত চলবে ভোট গ্রহণ। মার্কেটের অভ্যন্তরেই একটি দোকানে চলবে ভোটগ্রহণ।

হকার্স মার্কেট সমবায় সমিতি নির্বাচনে ১২টি পদের মধ্যে সভাপতি পদে প্রার্থী হয়েছেন খন্দকার নজরুল, ডালিম হোসেন, ফারুক হোসেন, আলাউদ্দিন সওদাগর, জাহাঙ্গীর হোসেন। সাধারণ সম্পাদক পদে নাজিম উদ্দিন, সহিদ হাওলাদার, শাহিন, গোলাপ। সহ সভাপতি (১জন) পদে নুরুজ্জামান মুন্সি, আনিস মুন্সি ও আবুল কালাম। যুগ্ম সম্পাদক (১ জন) পদে ফারুক মোল্লা, আশিকুর রহমান, সুলতান। কোষাধ্যক্ষ পদে ৩ জন হলেন মোর্শেদ, নাসির, ফয়েজ। কার্যকরি সদস্য পদে (৭জন) রাজু সাহা, মজিবুর, সালাম, রিপন, রিপন সরকার, রাজন ওরফে রাজু, কালাম, হীরু।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভোটাররা জানান, এবারের নির্বাচনে ভোটারদের মধ্যে প্রাধান্য পাচ্ছে বিগত দিনের অর্থ লোপাট, দুর্নীতি, অনিয়ম ও চাঁদাবাজির বিষয়টি। বিশেষ করে বিগত কমিটির ৭ লাখ টাকা লোপাট ও যথাযথ হিসাব দিতে না পারার বিষয়টিই প্রাধান্য পাচ্ছে। আর প্রার্থীরাও এইসকল বিষয়কে প্রাধান্য দিয়ে তাদের ব্যানার, ফেস্টুন, পোষ্টার সাটিয়েছেন। কয়েকজন প্রার্থীর বিরুদ্ধে বিগত দিনে মাদকসহ গ্রেফতার হওয়ার অভিযোগও রয়েছে। শনিবার অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে বেশ কয়েকজন প্রার্থী রয়েছেন যারা কখনোই হকার ছিলেন না তবে হকার্স মার্কেটের দোকান কিনে এখন নেতা বনে যেতে চাইছেন। তাদের অনেকেই প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীও। ফলে এসকল বিতর্কিত ও ব্যবসায়ী প্রার্থীদের বিষয়টি ভোটারদের মধ্যে আলোচিত বলে জানা গেছে। তবে ভোটাররা চান সৎ যোগ্য প্রার্থীকেই তারা ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

সংগঠন সংবাদ -এর সর্বশেষ