কামালের রক্তেও ন্যায্য মজুরি আদায় হয় নাই : ইসমাইল

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:২২ পিএম, ২ নভেম্বর ২০১৮ শুক্রবার



কামালের রক্তেও ন্যায্য মজুরি আদায় হয় নাই : ইসমাইল

ফতুল্লার বিসিকে ২০০৩ সালের ৩ নভেম্বর পুলিশের গুলিতে নিহত শ্রমিক আমজাদ হোসেন কামাল হত্যার প্রতিবাদে  ‘শ্রমিক জনসভা’ করেছে বাংলাদেশ টেক্সটাইল-গার্মেন্টস্ শ্রমিক ফেডারেশন।

শুক্রবার ২ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাব প্রাঙ্গণে বাংলাদেশ টেক্সটাইল-গার্মেন্টস্ শ্রমিক ফেডারেশন সভাপতি মাহমুদ হোসেনের সভাপতিত্বে জনসভাটি অনুষ্ঠতি হয়। শ্রমিক জনসভায় প্রধন অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শ্রমিক নেতা মাহবুবুর রহমান ইসমাইল।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে মাহবুবুর রহমান ইসমাইল বলেন, শ্রমিকেরা ন্যায্য দাবিতে সেদিন (৩ নভেম্বর ২০০৩) রাস্তায় নেমেছিল। তাদের সাথে কামালও ছিল। সেদিন নিজেদের দাবি আদায় করতে গিয়ে কামালকে নিজের জীবন দিতে হয়। কিন্তু শ্রমিকের ন্যায্য পাওনা এখনো তারা পায় নাই। ২০১৩ সালে শ্রমিকদের ন্যূনতম বেতন ঘোষণা কার হলো ৫৩০০ টাকা। এরপর চলতি বছর ৪ লাখ কোটি টাকার বাজেট ঘোষণা করা হলো। চাল, ডাল, তেল সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পেলো। কিন্তু শ্রমিকের বেতন বৃদ্ধি পেলো না।

এসময় তিনি আরো বলেন, লক্ষ টাকার বাজেট বাড়িয়ে আর্মি পুলিশের রেশনিং প্রদান করা হয়। অথচ শ্রমিকদের জন্য কোনো রেশনিং এর ব্যবস্থা নেইে। যে কারণে দ্রব্যমূল্যের দাম বৃদ্ধি পেলে শ্রমিকরা দিশেহারা হয়ে পড়ে। শ্রমিকদের সন্তানেরা সুবিধা বঞ্চিত হয়ে পড়ছে। তাদের শিক্ষা অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে। তাদের ভবিশ্যত অন্ধকার। স্বাস্থ্য, চিকিৎসা, শিক্ষা, আবাসন, রেশনিং এবং ন্যায্য মজুরি প্রতিষ্ঠা না হলে সরকারের উন্নয়নে শ্রমিকদের পেট ভরবে না।

জনসভায় আরো উপস্থিত ছিলেন গণসংহতি আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলার নির্বাহী সমন্বয়ক অঞ্জন দাস, আমরা নারায়ণড়ঞ্জবাসী সংগঠনের সভাপতি নূরুদ্দিন আহমেদ, জাতীয় পোষাক শিল্প শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন মুজিব, গার্মেন্টস শ্রমিক ঐক্য ফোরামের কেন্দ্রীয় সদস্য লিয়াকত আলী সহ অন্যান্য নের্তৃবৃন্দ ও বিভিন্ন গার্মেন্টস এর শ্রমিকরা উপস্থিত ছিলেন।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও