বাস সংকটে বন্ধ মেট্রোহল বিআরটিসি বাস কাউন্টার

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৩৮ পিএম, ১১ জুন ২০১৯ মঙ্গলবার

বাস সংকটে বন্ধ মেট্রোহল বিআরটিসি বাস কাউন্টার

নাটকীয়তার মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় বারের মত ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে চালু হয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ব সেবা দানকারী প্রতিষ্ঠান বিআরটিসির বাস সার্ভিস। প্রায় দুই বছর আগে একবার চালু হলেও প্রভাশালীদের দাপটে টিকতে পারেনি। মাত্র ৭দিনের মাথায় বন্ধ করতে বাধ্য হয় কর্তৃপক্ষ। প্রভাবশালীদের দাপটে এবারও চালু হবার দ্বিতীয় দিনেই বন্ধ হতে বসেছিল বাস চলাচল। শেষ পর্যন্ত অসংখ্য প্রতিকূল পরিবেশ আর নাটকিয়তার মধ্য দিয়ে টিকে গেছে। তবে এবার বাস সংকটের নাম দিয়ে কর্তৃপক্ষই বন্ধ করে দিয়েছে বাস কাউন্টার।

জানা গেছে, গত ২২ মে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিসি) শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত বাস সার্ভিসের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। উদ্বোধনের সময় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে ১৫টি বাস চলাচলের কথা বললেও মূলত চলাচল করছে মাত্র ১১টি। ফলে এই রুটে দেখা দিয়েছে ভয়ংকর রকমের বাস সংকট। বাস সংকটের অজুহাত দেখিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে মেট্রোহল সংলগ্ন বাস কাউন্টার।

প্রথম পর্যায়ে মন্ডলপাড়া, মেট্রোহল মোড়, চাষাঢ়া, শিবু মার্কেট, জারকুড়ি মোট পাঁচটি স্থানে কাউন্টার স্থাপনের কথা বলা হয়েছিল। যার মধ্যে মন্ডলপাড়া থেকে ঢাকা ৫৫টাকা, অন্য কাউন্টারগুলো থেকে ৫০টাকা ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছিল। এরপর মাত্র দুইদিন মেট্রোহল মোড় থেকে যাত্রী উঠানো হলেও পরের দিন থেকে কাউন্টার বন্ধ করে দেওয়া হয়। ফলে বন্দরের যাত্রীদের ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। বিআরটিসির বাস কাউন্টার না পাওয়ায় বাধ্য হয়ে শীতল দিয়েই যাতায়াত করছেন তাঁরা।

১১ জুন মঙ্গলবার সরেজমিনে দেখা যায় কাউন্টার থাকলেও গেইটে তালা ঝুলছে। আশেপাশেও বিআরটিসির কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারী নেই। অনেকে রিকশা নিয়ে আসছেন বিআরটিসি বাসের জন্য। কিন্তু কাউন্টার বন্ধ পেয়ে হতাশ হয়ে শীতলের কাউন্টারে লাইন ধরছেন।

বন্দরের বাসিন্দা সৈকত হোসেন নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, ‘‘সেন্ট্রাল খেয়াঘাট থেকে রিকশা নিয়ে সোজা এখানে (মেট্রোহল মোড়) চলে এসেছি।  কারণ এখান থেকে বাস কাউন্টার সব থেকে কাছে। কিন্তু এসে দেখি বাস কাউন্টার বন্ধ। আবার চাষাঢ়া যেতে ভাড়া লাগবে ২৫-৩০ টাকা। কিন্তু শিতলের ভাড়া মাত্র ৫টাকা বেশি। আবার বাসের জন্য অপেক্ষাও করতে হবে না। তাই শীতলের কাউন্টারে যাচ্ছি।’’

এ প্রসঙ্গে বিআরটিসির ম্যানেজার অপারেশন ইঞ্জিনিয়ার কামরুজ্জামান নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, এই রুটে বাস চলাচল করে মাত্র ১১টি। এত অল্প বাস দিয়ে দুই জায়গা থেকে বাস ছাড়া সম্ভব না। তাই মেট্রোহলের কাউন্টার বন্ধ করে দিয়েছি। বাসের সংখ্যা আরো বড়তে পারে। যদি পর্যাপ্ত বাস পাওয়া যায় তাহলে কাউন্টারটি খুলে দেওয়া হবে এবং এখান থেকেও বাস ছাড়া হবে।


বিভাগ : ফিচার


নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও