নারায়ণগঞ্জের মানুষের বিপক্ষে গিয়ে কোন সিদ্ধান্ত দিবেন না : রাব্বি

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৪৯ পিএম, ২ নভেম্বর ২০১৯ শনিবার

নারায়ণগঞ্জের মানুষের বিপক্ষে গিয়ে কোন সিদ্ধান্ত দিবেন না : রাব্বি

নারায়ণগঞ্জ শহরের শেখ রাসেল পার্ক বাস্তবায়নে ও হাজীগঞ্জ কেল্লা উন্মুক্তকরণ বাধার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এসময় তারা বলেন, প্রয়োজনে জীবন দিয়ে হলেও পার্ক ও কেল্লা রক্ষা করবো।’

২ নভেম্বর শনিবার বিকেলে শহরের চাষাঢ়ায় নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের সামনে নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের উদ্যোগে ওই মানববন্ধন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ভবানী শংকর রায়ের সভাপতিত্ব ও সাধারণ সম্পাদক শাহীন মাহমুদের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন জোটের উপদেষ্টা রফিউর রাব্বী, আব্দুর রহমান, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি জেলার সেক্রেটারী শিব নাথ চক্রবর্তী, বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ জেলার সমন্বয়ক নিখিল দাস, গণসংহতি আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলার সমন্বয়ক তরিকুল সুজন, নারায়ণগঞ্জ চারুকলা ইনস্টিটিউট (আর্ট কলেজ) এর অধ্যক্ষ শামসুল আলম আজাদ প্রমুখ।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জোটের উপদেষ্টা প্রদীপ ঘোষ বাবু, সহ সভাপতি ধীমান সাহা জুয়ে, মনি সুপান্থ, অর্থ সম্পাদক দিনা তাজরিন, সাংগঠনিক সম্পাদক সুমিত রায়, কার্যকারী সদস্য জিয়াউল ইসলাম কাজল, গণসংহতি আন্দোলন মহানগরের আহবায়ক অঞ্জন দাস প্রমুখ।

রফিউর রাব্বী বলেন, নারায়ণগঞ্জের হাজীগঞ্জ কেল্লার মতো বাংলাদেশে খুব বেশি কেল্লার উপস্থিতি আর নাই। এটা নারায়ণগঞ্জের একটি গৌরব ও ঐতিহ্যের বিষয়। কিন্তু এ কেল্লার আশে পাশে পাট মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ দীর্ঘদিন ঘীরে রেখেছিল। বলা চলে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। আজকে যখন এ কেল্লাটিকে জনগনের জন্য উন্মুক্ত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে তখনই স্বার্থনেষী মহলের যারা জায়গাগুলো দখল করে রেখেছিল তারা উঠে পড়ে লেগেছে। এখনও পর্যন্ত কেল্লার যে পাশে দখলে রয়েছে তাদের উচ্ছেদ করে এটিকে অবমুক্ত করতে হবে নারায়ণগঞ্জের মানুষের স্বার্থে ঐতিহ্যের স্বার্থে।

তিনি বলেন, আমাদের নারায়ণগঞ্জে কিছু ভূমিদস্যু ব্যক্তিবর্গ রয়েছে। তারা বিভিন্ন সময়ে নারায়ণগঞ্জের রেলওয়ের জায়গা, রাজউকের জায়গা, বিআইডব্লিউটিএর জায়গা দখল করে নিচ্ছে। আমরা যেখানে দাঁড়িয়েছি তার পেছনে রাজউকের জায়গা দখল করে নিয়েছে। এ প্রতিষ্ঠানগুলোর অসাধু ব্যক্তিবর্গ, কিছু ভূমিদস্যু, ব্যবসায়ী এবং রাজনৈতিক কর্মকর্তারা এ দখলদারিত্ব তারা যুগের পর যুগ চালিয়ে আসছে।

রাব্বি বলেন, রাসলে পার্কে যে চেহারা তৈরি হয়েছে যার স্বীকৃতি বিশ্বে আন্তর্জাতিক ভাবে পেয়েছে সেটিকে বন্ধ করার জন্য নারায়ণগঞ্জের একটি চিহ্নিত গোষ্ঠি তারা ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। রেলওয়ের কতিপয় কিছু দুর্নীতিগ্রস্ত কর্মকর্তার সহযোগিতায় ও তাদেরকে টাকা দিয়ে আজকে ডাবল লাইন স্থাপনের এ কার্যক্রমটিকে ব্যবহার করে নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করার দূরভিসন্ধিতা চালিয়ে যাচ্ছে। ডাবল লাইনের জন্য আমরা দাবি জানিয়েছি তাই বলে ডাবল লাইনের সুযোগ আরেকটা বাণিজ্য করার সুযোগ আমরা দিতে পারি না।

রেলমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে রাব্বী বলেন, আমাদের নারায়ণগঞ্জে যে বিষয়গুলো প্রয়োজন জায়গার অভাবে আমরা করতে পারছি না। অথচ এ জায়গাগুলো তারা বিভিন্ন জনের কাছে বিক্রি করে দিচ্ছে। ভূমিদস্যুতের সঙ্গে আতাঁত করে বিক্রি করে দিচ্ছে। রেলমন্ত্রী অনেক স্বজন ব্যক্তি। আপনার মন্ত্রণালয়ে যেসমস্ত দুর্নীতিগ্রস্তবর্গ রয়েছে, জিম থেকে শুরু করে নিচ পর্যন্ত বিভিন্ন সময় তারা নারায়ণগঞ্জের এ জমি বিক্রি করেছে। এ সময়েও তারা আড়াই একক জমি তারা বিক্রি করেছে জিমখানা এলাকার। আপনি আপনার এ দুর্নীতিগ্রস্ত, অসৎ, চোর কর্মকর্তাদের কথায় নারায়ণগঞ্জের মানুষের বিপক্ষে গিয়ে কোন সিদ্ধান্ত দিবেন না।

তিনি বলেন, রেলওয়ের এ দুর্নীতিগ্রস্থ কর্মকর্তা বলেন রাসেল পার্ক পর্যন্ত উচ্ছেদ করা হবে। নারায়ণগঞ্জ এসে রাসেল পার্ক ভাঙতে চান? যান দখল করেন। কার জায়গায় আপনারা হাত দেন সেটা আমরা দেখতে চাই। সুতরাং আমরা ভালোই ভালোই চাই সরকারের নীতিমালা অনুযায়ী এখানে পার্ক স্থাপিত হয়েছে। পার্কটি যথাযথভাবে, সঠিকভাবে সম্পন্ন করার জন্য বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ে ঐক্যবদ্ধ ভাবে এটি সম্পন্ন করবে। আমরা অপ্রীতিকর কোন পরিস্থিতি তৈরি হোক সেটা চাই না। শান্তি কমিটির লোকের সন্তান ইতিহাস ঐতিহ্য নষ্ট করবে, ৭১ সাল না এটা।

‘‘জনগনের চেয়ে বড় কোন শক্তি নাই। নারায়ণগঞ্জের সম্পত্তি, নারায়ণগঞ্জের পার্ক, নারায়ণগঞ্জের যেই যেই জায়গা রয়েছে, রাজউকের, রেলওয়ের ও বিআইডব্লিউটিএর। এ জায়গা কাকে বগে খাবে এটা আমরা কখনো বরদাস্ত করবো না। আমরা তা রক্ষা করবো জীবন দিয়ে হলেও। আমরা আমাদের জমি রক্ষা করবো। তাই আমরা দাবি জানাই রেলমন্ত্রীর কাছে, যে আপনি আপনার এ অসাধু ও অসৎ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করুন।’’ বলেন রাব্বি।

সমাপনী বক্তব্যে ভবানী শংকর রায় বলেন, সর্ব শক্তি দিয়ে আমরা আমাদের পার্ক ও কেল্লা সহ ঐতিহ্য রক্ষা করবো।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও