ত্বকী হত্যার নির্দেশদাতা খুনী সংসদ সদস্য

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:৩৫ পিএম, ৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০ শনিবার

ত্বকী হত্যার নির্দেশদাতা খুনী সংসদ সদস্য

সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের আহ্বায়ক রফিউর রাব্বি বলেছেন, আমাদেরকে প্রতি মাসে দাঁড়াতে হচ্ছে, বিচার চাইতে হচ্ছে। অথচ হওয়ার কথা ছিল একটি দেশে অপরাধ সংঘঠিত হলে অপরাধীর স্বাভাবিক নিয়মে বিচার হবে। যদি একটি মানবিক মূল্যবোধ সম্পন্ন সরকার থাকে সেখানে অপরাধীর বিচার চাইতে হয় না। সরকার তাঁর তাগিদের কারণেই অপরাধীর বিচার করবে।

৮ ফেব্রুয়ারি শনিবার সন্ধা ৬টায় আলী আহাম্মদ চুনকা পাঠাগার ও নগর মিলনায়তনে নারায়ণগঞ্জের মেধাবী ছাত্র তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যার বিচারের দাবিতে নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিমাসের ধারাবাহিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে ৮৩তম মাসের মোমশিখা প্রজ্জলন কার্যক্রমে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, সরকার যখন নির্বাচিত হয় তাঁরা সংবিধানে হাত রেখে শপথ করে যে রাষ্ট্রের সকল নাগরিকের নিরাপত্তা তাঁরা নিশ্চিত করবে। কিন্তু তাঁরা সংবিধানে হাত রেখে মিথ্যাচার করে। তাঁরা সাধারণ মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা তো দুরের কথা তাঁরা অপরাধীদের পক্ষ অবলম্বন করে। আমরা পাকিস্তানি আমলে দেখেছি। আইয়ুব খানের সময় কিভাবে মানুষকে হত্যা করা হয়েছে। আমরা সেই সময়েও বিচার চেয়েছি। সেই সরকার অপরাধীদের পক্ষে দাঁড়িয়েছে। আজকে স্বাধীন দেশেও সেই একই চরিত্র দেখতে পাচ্ছি যে সরকার অপরাধীদের পক্ষ নেয়। আবার তাঁরা এটাকে মুক্তিযুদ্ধের সরকার বলে দাবি করে।

রাব্বি বলেন, আমাদের দেশে যখন কোন আইন তৈরী হয়। তখন প্রতিটি আইন দুই ভাবে ব্যবহার করা হয়। সরকারের জন্য একভাবে হয় এবং সাধারণ জনগনের জন্য একভাবে পরিচালিত হয়। যে আইন জনগনের সুরক্ষার জন্য তাঁরা করে। সেই আইন তাঁরা অপরাধীদের, সরকারি দলের লোকজনদের সুরক্ষা দেয়। যে প্রশাসন জনগনের টাকায় চলে। সেই প্রশাসন সরকার ও সরকার দলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে। জনগনের বিপক্ষে দাঁড়ায়। এইটাকে আবার মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বলে পরিচয় করাতে চায়।

এসময় সন্ত্রাস নির্মূল ত্বকী মঞ্চের সদস্য সচিব কবি সাংবাদিক হালিম আজাদ বলেন, কিছুদিন পর আমাদের প্রিয় সন্তানকে হত্যার ৭বছর পূর্ণ হবে। বিস্ময়করভাবে স্বাধীন দেশে একজন মেধাবী সন্তানকে হত্যার পরেও সেই হত্যার বিচার হচ্ছে না। অথচ হত্যাকারীরা শহরে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এবং নির্দেশদাতা সেই খুনি একজন সংসদ সদস্য। একজন খুনি যদি একজন সংসদ সদস্য হয় তাহলে সেই সংসদ সদস্যের কাছে আর কি সম্মান থাকতে পারে।

তিনি বলেন, আমরা আমাদের সংসদকে সম্মান করি। কাউকে এই সংসদের অসম্মান করার অধিকার দেওয়া হয়নি। কিন্তু আমার প্রিয় সন্তানকে যারা হত্যা করেছে তাঁরা নারায়ণগঞ্জে বীরদর্পে ঘুরে বেড়াচ্ছে। আমাদের ভাবতে অবাগ লাগে। হত্যাকারীরা শহরে ঘুরে বেড়াবে আর দিনের পর দিন হত্যার বিচার চাইতে হচ্ছে। কিন্তু বিচার হয় না। একটি চার্জশীট হয়েছিল। সেই চার্জশীটকে ঘুম পাড়িয়ে রাখা হয়েছে। আমরা বিশ্বাস করি অবশ্যই তানভীর মুহাম্মদ ত্বকী হত্যার বিচার হবে খুনিদের ফাঁসিতে ঝুলতে হবে। যতই অত্যাচার করে আপনাদের মুখোশ উন্মোচিত হবে। হয়তো এই সরকার থাকা কালে হবে না। ৭বছর কেন ৭০ বছর পর হলেও বিচার হবে।

নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ভবানী শংকর রায়ের সভাপতিত্ব ও সাধারণ সম্পাদক শাহীন মাহমুদের সঞ্চালনায় এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন নাগরিক কমিটির সভাপতি এবি সিদ্দিক, সাধারণ সম্পাকদ আব্দুর রহমান, সিপিবি নারায়ণগঞ্জ জেলার সভাপতি হাফিজুল ইসলাম, গণসংহতি আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ জেলার সমন্বয়ক তরিকুল সুজন প্রমুখ।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও