শহীদ মিনারে ফুল দিতে যাওয়ায় স্বামীর মারধর : স্ত্রীর আত্মহত্যা

আড়াইহাজার করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:১১ পিএম, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ বুধবার



ছবি প্রতিকী
ছবি প্রতিকী

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও মহান শহীদ দিবস পালন করার জের ধরে স্বামী কর্তৃক মারধরের শিকার হয়ে অভিমানী স্ত্রী রানী আক্তার (১৭) গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে। বুধবার সকালে উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের সুলতানসাদী এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। রানী আক্তার এ বছর সুলতানসাদী উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল।

নিহত গৃহবধূ রানী আক্তারের মা ফাতেমা আক্তার জানান,একুশে ফেব্রুয়ারী বুধবার ভোরে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও মহান শহীদ দিবস পালনের উদ্দ্যেশে ফুলের তোরা নিয়ে তার মেয়ে রানী আক্তার সহপাঠীদের সাথে সুলতানসাদী উচ্চ বিদ্যালয়ে শহীদ মিনারে যায়। এ খবর পেয়ে রানী আক্তারের স্বামী হানিফ ক্ষুব্দ হয়ে রানী আক্তারকে স্কুল থেকে টেনে হেচড়ে বাড়িতে নিয়ে আসে এবং ফুল দিতে যাওয়ায় স্ত্রীকে মারধর করে। এ ঘটনায় বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পিত্রালয়ে ঘরের আড়ার সাথে গলায় ওড়না পেচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে রানী আক্তার। তিনি জানান, তার কন্যা রানী আক্তার এবার সুলতানসাদী স্কুল থেকে এস এস সি পরীক্ষা দিচ্ছেন। বিগত ১ বছর আগে পার্শ্ববর্তী লতবদী গ্রামের হানিফের সাথে রানী আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে রানী আক্তার এসএসসি পরীক্ষা দেওয়ার জন্য সুলতানসাদী গ্রামে তার পিত্রালয়ে বসবাস করে আসছিল। ঘটনার পর স্বামী হানিফ পালিয়ে যায়।

আড়াইহাজার থানার উপপরিদর্শক মোস্তাফিজুর রহমান জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ মর্গে প্রেরন করা হয়েছে।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও