১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, সোমবার ২৮ মে ২০১৮ , ৩:৫৯ অপরাহ্ণ

পঞ্চবটির সড়কে যেন গাড়ি চলে না!


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৮:৩০ পিএম, ২৫ এপ্রিল ২০১৮ বুধবার | আপডেট: ০২:৩০ পিএম, ২৫ এপ্রিল ২০১৮ বুধবার


ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

সকাল ৮ টা থেকে শুরু, একেবারে রাত ১১ টা পর্যন্ত নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পঞ্চবটির সড়কে গাড়ির চাকা যেন চলেই না। মাত্র ৫ থেকে ১০ মিনিটের সড়কটি পার হতে এ সড়কে চলাচল করা মানুষের লেগে যায় দুই ঘন্টা পর্যন্তও। সাথে রয়েছে ধুলাবালির বিব্রতকর যন্ত্রনাও।

সরেজমিনে দেখা যায়, চাষাঢ়া অক্টো অফিসের সামনে থেকে শুরু হওয়া যানজট লেগে থাকে সকাল থেকেই। এ যানজট শেষ হয়ে ফতুল্লা পোস্ট অফিসের মোড় পার হলে। এতদূর পর্যন্ত যেন গাড়ির চাকা চলতেই চায়না। পুরো এ সড়কে ট্রাফিক রয়েছেন মাত্র একজন, যিনি অবস্থান করেন পঞ্চবটির মোড়ে। সেখানে তিন রাস্তার সংযোগ সড়কে তিনি দায়িত্ব পালন করেন। যানজট ও গাড়ির চাপে তিনি নিজেও মাঝে মধ্যে হাঁপিয়ে উঠেন।

জানা যায়, সকাল থেকেই মালবাহী বিভিন্ন ট্রাক, অটোরিক্সা, লরি ও বাসের বেপরোয়া চলাচল ও ট্রাফিক আইন না মেনে চলাচলের কারণেই সড়কে এমন যানজটের সৃষ্টি হয়। যানজটে পড়ে সাধারণ মানুষ তাদের কোন কাজই সময়মত করতে পারেন না। বিশেষ করে ফতুল্লা থেকে নারায়ণগঞ্জগামী ও নারায়ণগঞ্জ থেকে ফতুল্লাগামী সাধারণ যাত্রীরা এ যানজটে পড়ে ব্যাপক হয়রানির শিকার হন।

বুধবার (২৫ এপ্রিল) এইচএসসি পরীক্ষা দিতে আসা যাত্রী ফারিয়া হোসাইন জানান, আমি ফতুল্লা থেকে মর্গ্যান কলেজে যাই পরীক্ষা দিতে। পরীক্ষা দিতে বের হই দেড় ঘণ্টা আগে তবুও পরীক্ষা কেন্দ্রে সময়মত পৌছাতে পারিনা। এই সড়কে প্রতিদিনই এমন যানজট লেগেই থাকে।

ছোটবোনকে স্কুল থেকে বাড়িতে আনতে যাওয়া আলভী সরদার জানান, আমি আমার ছোটবোনকে স্কুলে আনতে যাই সেখানে আমি ১ ঘন্টা হাতে সময় নিয়ে বের হই। স্কুল ছুটি হয় ১২ টায় আম তাকে নিয়ে বাড়ি ফিরতে ফিরতে সময় লেগে যায় ২টা। অথচ এই সড়কে মাত্র ১০ মিনিট সময় প্রয়োজন হয় যেতে আসতে।

চাকরিজীবী শৈবাল হোসেন জানান, পঞ্চবটির সড়কে জ্যামের কারণ মূলত মালবাহী বিভিন্ন ট্রাক, অটোরিক্সা, লরী ও বাস। এসব বেপরোয়াকে কার আগে যাবে প্রতিযোগিতা শুরু করে। ফলে নিয়মের বাইরে গিয়ে একে অপরের সঙ্গে এই প্রতিযোগিতায় সৃষ্টি হয় জ্যামের। আর দিনের বেলায় ট্রাক ও মালবাহী লরীগুলো বেশি যানজটের সৃষ্টি করে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) আব্দুর রশিদ জানান, যানজট এখন অনেকাংশেই কমিয়ে আনা হয়েছে। মূলত বিসিকের সড়কটি ভাঙা থাকায় বৃষ্টির কারণে বিসিকের যানবাহনগুলো পঞ্চবটির সড়কটি ব্যবহার করতো, এখন বিসিকের ভেতর দিয়ে আমরা ডাইভারশন করে দিয়েছি। আপাতত যানজট অনেকাংশে কমে গেছে। এখন কারখানাগুলো শুরু, ছুটি ও বিরতির সময় কিছু সময়ের জন্য যানজট দেখা যায়।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

শহরের বাইরে -এর সর্বশেষ