ফতুল্লায় দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ককটেল বিস্ফোরণ, আহত ১০

৫ ভাদ্র ১৪২৫, সোমবার ২০ আগস্ট ২০১৮ , ১২:৩৭ অপরাহ্ণ

ফতুল্লায় দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ককটেল বিস্ফোরণ, আহত ১০


ফতুল্লা করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৭:২০ পিএম, ২১ জুলাই ২০১৮ শনিবার | আপডেট: ০১:২০ পিএম, ২১ জুলাই ২০১৮ শনিবার


ফতুল্লায় দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ককটেল বিস্ফোরণ, আহত ১০

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় বাড়ি নির্মাণে ইট বালু কন্ট্রাকের দেয়ার নামে চাঁদাবাজির ঘটনার জের ধরে দু’গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ ভাঙচুর ঘটনা ঘটেছে। আর এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করতে কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটনানো হয়। এসময় ছাত্রলীগ নেতা জসিমসহ উভয় গ্রুপের ৮ থেকে ১০ জন লোক আহত হয়েছে।

এদের মধ্যে ছাত্রলীগ নেতা জসিমের ভাই বিপ্লবকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় প্রথমে নারায়ণগঞ্জ খানপুর ৩’শ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে পরে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে নেয়া হয়। আর সংঘর্ষে দুটি মটরসাইকেলসহ সাদ্দাম (২৫) নামে একজনকে উত্তম মাধ্যম দিয়ে আটক পুলিশে সোপর্দ করে।

শুক্রবার (২০ জুলাই) রাতে ফতুল্লার পূর্বগোপালনগর এলাকায় এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। আর দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় পূর্বগোপালনগর এলাকায় থমথম অবস্থায় বিরাজ করছে এবং এলাকার সাধারন মানুষের মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ফতুল্লার পূর্বগোপালনগর এলাকায় জমি ক্রয় করে বাড়ি নির্মাণ করে সাইদুর রহমান নামে এক ব্যক্তি। আর সাইদুরের বাড়ি নির্মান কাজে ইট বালু, সিমেন্ট দেয়ার কন্ট্রাক নেয়ার জন্য চাপ করে স্থানীয় ক্যাডার মেহেবুর, ইউসুফ, নজরুল গংরা। এতে সাইদুর তাদের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় স্থানীয় ক্যাডাররা ৫০ হাজার টাকা চাঁদাদাবি করে। আর চাঁদা না দিয়ে বাড়ির নির্মান কাজ বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দেয়া হয়। স্থানীয় চাঁদাবাজদের ভয়ে  সাইদুর তার পূর্ব পরিচিত মাসদাইর ও গাবতলী এলাকার সরকারী দলের ক্যাডাররা শুক্রবার রাতে কয়েকটি মটরসাইকেল নিয়ে ছুটে যায়। পরে তারা ঘটনার বিষয়ে জানতে গিয়ে চাঁদাবাজদের সাথে আলোচনা করতে গেলে ছুটে আসে ছাত্রলীগ ক্যাডার জসিম, বিল্লাল, ইউসুফ, নাসির। একপর্যায়ে মাসদাইরের ক্যাডারদের সাথে পূর্ব গোপালনগর এলাকার সন্ত্রাসীদের মধ্যে তর্কবিতর্কের একপর্যায়ে সংঘর্ষে রূপ নেয়। এসময় আহত হয় বিপ্লব, জসিম, বিল্লাল, নাসির, ফজর আলী, মেহেবুব সহ ৮/১০ জন। এদের মধ্যে ছাত্রলীগ ক্যাডার জসিমের ভাই বিল্পবকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। পরে এলাকাবাসী মাসদাইর ও গাবতলীর ক্যাডারদের ঘেরাও করতে গেলে তারা কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে এলাকা ত্যাগ করলেও দুটি মটরসাইকেল ফেলে পালিয়ে যায়। এসময় পূর্ব গোপালনগরের ক্যাডাররা দৌড়ে গাবতলীর সাদ্দাম নামের একজনকে আটক করে। পরে তাকে পুলিশে সোপর্দ করে।

স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য জাহাঙ্গীর মাস্টার জানান, এলাকার সাইদুর নামে এক ব্যক্তির বাড়ি নির্মাণে ইট বালু দেয়া নিয়ে দ্বন্ধ সৃষ্টি হয়। আর সেই দ্বন্ধ নিয়ে সাইদুরের পক্ষে মাসদাইর,গাবতলীর ক্যাডাররা এসে বিচারে বসতে গিয়ে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তারা স্থানীয় কয়েকজন লোককে পিটিয়ে আহত করে এবং জসিমের ভাই বিপ্লবকে কুপিয়ে জখম করে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। আর ঘটনার খোজ খবর নিয়ে বাকী তথ্য জানাতে পারবো।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানার এসআই আব্দুস সালাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনার সংবাদে ঘটনাস্থলে গিয়ে বাহিরের লোকদের গিয়ে পাওয়া যায়নি। আর স্থানীয় লোকজন গাবতলীর সাদ্দাম নামের এক ব্যক্তিকে আটক করা রাখা হলে তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা নিয়ে আসা হয়। আর ঘটনাস্থল থেকে দুটি মটরসাইকেল জব্দ করা হয়। ঘটনার তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

শহরের বাইরে -এর সর্বশেষ