৮ আশ্বিন ১৪২৫, রবিবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ১০:৫৬ অপরাহ্ণ

তিন যুবককে গুলি করে হত্যা


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ১০:৩৫ এএম, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ শুক্রবার


তিন যুবককে গুলি করে হত্যা

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের পূর্বাচল উপশহর থেকে রাজধানীর ৩ ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ১৪ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সকালে উপজেলার পূর্বাচল উপ শহরের কাঞ্চন-কুড়িল বিশ্বরোড(৩০০ ফিট) সড়কের আলমপুর এলাকার ১১ নং সেতুর নিচ থেকে লাশগুলো উদ্ধার করা হয়। পরিবারগুলো দাবি করছেন তাদেরকে সাদা পোশাকধারী কিছু লোক পুলিশ পরিচয়ে তাদের আটকের পর পরিকল্পিতভাবে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

নিহতরা হলেন মুন্সিগঞ্জের টংগীবাড়ি উপজেলার বিক্রমপুর গ্রামের মৃত আব্দুল ওহাবের ছেলে নূর হোসেন বাবু (২৯), তার ভায়রা ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার গুড়েলা এলাকার আব্দুল মান্নানের ছেলে শিমুল আজাদ (২৬), বর্তমানে রাজধানীর মুগদা মান্ডা এলাকার হাজীর বাড়ির ভাড়াটিয়া এবং তাদের বন্ধু ও ব্যবসায়ীক অংশিদার রাজধানীর বনানী মহাখালী দক্ষিনপাড়া এলাকার মৃত শহিদুল্লাহর ছেলে সোহাগ ভূইয়া (৩৪)।

তারা ৩ জনই মুগদা এলাকায় অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে গার্মেন্ট পণ্যের ব্যবসা করতেন। এদের মধ্যে নিহত শিমুলের প্যান্টের পকেট থেকে নেশাজাত ৬৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে।

নিহত প্রত্যককেই মাথায় বুকেসহ একাধিকস্থানে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে বলে জানান রূপগঞ্জ থানার ওসি মনিরুজ্জামান।

তিনি জানান, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রূপগঞ্জের পূর্বাচল উপশহরের কাঞ্চন-কুড়িল বিশ্বরোড সড়কের আলমপুর এলাকার ১১ নং সেতুর নিচে পাশাপাশি গুলিবিদ্ধ অজ্ঞাতনামা ৩ যুবকের লাশ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ গুলো উদ্ধার করে। এ সময় লাশের দেহ তল্লাশী করে একজনের পকেট থেকে একটি ভিজিটিং কার্ড উদ্ধার করে নিহতের পরিবারে সাথে কথা বললে তারা এসে লাশের পরিচয় সনাক্ত করেন।

নিহতের ব্যবসায়ী শিমুলের স্ত্রী নীপা ইসলাম জানান, আমার স্বামী শিমুল ভগ্নীপতি নুর হোসেন বাবু ও তাদের ব্যবসার পার্টনার সোহাগ মিলে বুধবার সকালে তাদের গ্রামের বাড়ি ঝিনাইদহের গুরেলা গ্রামে বেড়াতে যায়। এর পর থেকে তাদের খুঁজে পাওয়া যায়নি। বৃহস্পতিবার ভোরে এক গাড়ির সুপারভাইজারের মাধ্যেমে জানতে পারেন মানিকগঞ্জের পাটুরিয়া ফেরীঘাটের সামনে থেকে বৃহস্পতিবার ভোরে ডিবি পুলিশের জ্যাকেটপরা ১৫ থেকে ১৬ জন ব্যক্তি তাদের আটক করে নিয়ে গেছেন। শুক্রবার সকালে রূপগঞ্জ থানা পুলিশের মাধ্যমে তার স্বামীসহ ৩ জন নিহতের সংবাদ পেয়ে তারা ঘটনাস্থলে এসে লাশগুলো সনাক্ত করেন।

তিনি বলেন, পুলিশ আটক করে তাদের অজ্ঞাত কারনে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। নিহতদের লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহতদের পরিবারের পক্ষ থেকে রূপগঞ্জ থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

শহরের বাইরে -এর সর্বশেষ