আড়াইহাজারে ৪ যুবককে মাথায় গুলি করে হত্যা

স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:০৬ এএম, ২১ অক্টোবর ২০১৮ রবিবার

আড়াইহাজারে ৪ যুবককে মাথায় গুলি করে হত্যা

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার উপজেলায় ৪ যুবককে মাথার পেছনের দিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। রোববার ২১ অক্টোবর বিকেলে ময়নাতদন্ত শেষে এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নারায়ণগঞ্জ ১০০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আরএমও আসাদুজ্জামান। নিহতদের প্রত্যেকের মাথার পেছন দিকে শর্টগান দিয়ে গুলি করা হয়েছিল।

এর আগে ভোরে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সাতগ্রাম ইউনিয়নের পাচঁরুখী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে থেকে ওই লাশ গুলো উদ্ধার করা হয়। পরে ময়নাতদন্তের জন্য লাশগুলো নারায়ণগঞ্জ ১০০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়।

আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম আব্দুল হক জানান, ভোরে এলাকাবাসী জানালে পুলিশ গিয়ে লাশ গুলো উদ্ধার করে। এসময় লাশের পাশে পরে থাকায় অবস্থায় ২টি দেশীয় পিস্তল ও ১টি প্রাইভেটকার (নোয়া- ঢাকা মেট্রো-চ-১৩-০৫০১) জব্দ করে।

তিনি আরো জানান, প্রতিটি লাশের মাথাগুলো থেঁতলে দেওয়া হয়েছে যাতে পরিচয় না জানা যায়। তাদের প্রত্যেকের বয়স ৩০ থেকে ৩৫ এর মধ্যে। তবে শরীরে কোন গুলির চিহ্ন পাওয়া যায়নি।

আব্দুল হক বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যাচ্ছে, দুর্বৃত্তরা অন্য কোথাও থেকে হত্যা করে এখানে লাশগুলো ফেলে গেছে। আর যাতে পরিচয় শনাক্ত না করা যায় সেই জন্যই মাথা থেঁতলে দেওয়া হয়েছে। এরা ডাকাত দলের সদস্য কিনা তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

সাতগ্রাম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ওয়াদুদ মাহমুদ বলেন, স্থানীয়রা জানালে আমিও ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশগুলো পরে থাকতে দেখি। কিন্তু কেউ কিছু বলতে পারছে না। তবে রাতে কেউ কোন গুলির শব্দও পায়নি। আর লাশগুলো স্থানীয়রা কেউ চিনতে পারেনি।

এদিকে ব্যস্ত মহাসড়কের পাশে এভাবে লাশ পাওয়া যাওয়ায় সকালে শত শত মানুষ সেখানে ভিড় করে। বিকেলে নারায়ণগঞ্জ ১০০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে নিহতদের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ ১০০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের আরএমও আসাদুজ্জামান জানান, নিহত ৪ জনের মাথার পিছন দিকে শর্টগানের গুলি করা হয়েছে। নিহত ৪ জনের মধ্যে একটি পরিবার হাসপাতালে আসলেও এখনো তারা পরিচয় নিশ্চিত করতে পারেনি।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও