১ অগ্রাহায়ণ ১৪২৫, বৃহস্পতিবার ১৫ নভেম্বর ২০১৮ , ৩:১৫ অপরাহ্ণ

UMo

পুলিশকে হত্যার চেষ্টার মিশনে ৪ অস্ত্রধারী (ভিডিও)


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ১২:৩৬ এএম, ২৪ অক্টোবর ২০১৮ বুধবার


পুলিশকে হত্যার চেষ্টার মিশনে ৪ অস্ত্রধারী (ভিডিও)

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় চেকপোস্ট পয়েন্টে পুলিশকে লক্ষ্য করে সন্ত্রাসীদের গুলি ছোড়ার ঘটনার পেছনের কারণ উদঘাটনের চেষ্টা করা হচ্ছে। পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে ঘটনাটি পরিকল্পিত। কারণ যাত্রীবাহী বাসে পুলিশ সদস্যকে গুলি করার পরেই নিচে নামার পরেই মটরসাইকেলে করে পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা। ফলে মটরসাইকেলের সঙ্গে ওই সন্ত্রাসীদের যোগসাজশ ও সম্পৃক্ততা রয়েছে ধারণা করা হচ্ছে। সন্ত্রাসীদের লক্ষ্য করে পুলিশও কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়লেও তাদের নাগাল পায়নি। পুলিশের ধারণা পালিয়ে যায় সন্ত্রাসীরা অস্ত্রধারী সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্য।

২৩ অক্টোবর মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার পাগলায় ঢাকা-পাগলা-নারায়ণগঞ্জ সড়কে চেকপোস্টে ওই ঘটনায় গুলিবিদ্ধ কনস্টেবলের নাম সোহেল মিয়া।

এদিকে সিসি ফুটেজে দেখা গেছে ৩ সন্ত্রাসী দৌড়ে যাচ্ছে। আর তাদের জন্য আগে থেকে একটি মটরসাইকেল দাঁড়িয়ে ছিল অদূরে। চালকের মাথায় ছিল হেলমেট। তিনজন দৌড়ে ওই মটরসাইকেলে উঠে যায়। পেছন থেকে পুলিশের একজন কনস্টেবল গুলি করছে। পরে ৪জন মিলে পালিয়ে যায়।

চেকপোস্টে থাকা পুলিশ সদস্যদের বরাত দিয়ে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মনিরুল ইসলাম জানান, নিয়মিত ডিউটিতে ছিল আমাদের সদস্যরা। ফতুল্লা মডেল থানার এএসআই মোর্শেদ আলমের নেতৃত্বের পুলিশের একটি টিম পাগলা চেকপোস্টে তল্লাশী করছিল। ওই সময়ে রাজধানী থেকে পঞ্চবটি পর্যন্ত চলাচলা করা বোরাক পরিবহনের একটি বাস (ঢাকা মেট্রো-জ-১৪-২০৮৫) থামানো হয়। নারায়ণগঞ্জগামী বাসটিতে উঠে পুলিশ সদস্যরা একে একে যাত্রীদের তল্লাশী করছিল। তল্লাশীর এক পর্যায়ে সন্ত্রাসীদের একজন অস্ত্র বের করলে আমাদের পুলিশ সদস্যের সঙ্গে হাতাহাতি ঘটে। তখন আমাদের এক পুলিশ সদস্যের উরুতে গুলি লাগে। পরে কয়েকজন সন্ত্রাসী নিচে নেমে আরো কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। ওই সময়ে নিচে থাকা পুলিশ সদস্যরাও কয়েক রাউন্ড গুলি ছুড়ে। তারা নেমে সেখানে আগে থেকে থাকা মটরসাইকেলে করে তারা পালিয়ে যায়। আমরা ধারণা করছি আগে থেকে সেখানেই থাকা মটরসাইকেলটির সাথে তাদের একটা যোগসাজস রয়েছে। আমরা সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করেছি। আশা করি দ্রুতই সন্ত্রাসীদের ধরতে সক্ষম হবো।

চেকপোস্টের দায়িত্বে থাকা সহকারি উপ পরিদর্শক (এএসআই) মোর্শেদ জানান, সন্ত্রাসীদের থাকলেও অস্ত্র আমার কাছে অস্ত্র ছিলনা বলে আমরা তাৎক্ষনিক তাদের ধাওয়া করে ধরতে পারিনি। তিনজন যুবক ছিল ধারণা করছি তাদের সকলের কাছেই অস্ত্র ছিল। সন্ত্রাসীরা বাস থেকে নেমেও কয়েক রাউন্ড গুলি করে আতংক সৃষ্টি করে। তাদেরকে লক্ষ্য করে আমাদের কনস্টেবলরা তিন রাউন্ড শর্টগানের গুলি করেছে।

কনস্টেবল সোহেল জানান, গুলির পরে বাসে থাকা যাত্রীরাও কিছু বলেনি। আশেপাশের লোকজনও ছিল নীরব দর্শকের মত। আমি একজন সন্ত্রাসীর হাত ধরার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু যাত্রী ও আশেপাশের লোকজনের সহায়তা না পাওয়ায় সন্ত্রাসীরা পালাতে সক্ষম হয়।

শহরের খানপুর ৩০০ শয্যা হাসপাতালের জরুরী বিভাগের ডাক্তার ডা. সরোয়ার জানান, আহত পুলিশ সদস্যকে ঢাকা  মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

rabbhaban

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

শহরের বাইরে -এর সর্বশেষ