নারায়ণগঞ্জে ধর্ষণে বাড়ছে নৈতিক অবক্ষয়

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:২০ পিএম, ১৪ মে ২০১৯ মঙ্গলবার

নারায়ণগঞ্জে ধর্ষণে বাড়ছে নৈতিক অবক্ষয়

নারায়ণগঞ্জে প্রেমের আড়ালে ধর্ষণের ঘটনা অহরহ ঘটে চলেছে। সেই ধর্ষণ ঘটনায় নানা রকম চাঞ্চল্যকর ও লোমহর্ষক ঘটনা প্রকাশ্যে উঠে আসছে। একে একদিকে নৈতিক অবক্ষয় বাড়ছে; অন্যদিকে ধর্ষিতা সহ পুরো পরিবার মানসিকভাবে ভেঙে পড়ছে।

৭ মে থেকে ১৪ মে পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে ঘটে যাওয়া ধর্ষণের ঘটনার সচিত্র তুলে ধরা হল।

১৪ মে মায়ের অসুস্থতার অজুহাত দেখিয়ে ডেকে নিয়ে লম্পট প্রেমিক তার প্রেমিকাকে ধর্ষণ করেছে অভিযোগ উঠেছে। ধর্ষিতা স্কুল ছাত্রী রূপগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করেছে। মঙ্গলবার বিকেলে ধর্ষক রনি সহ তার দুই সহযোগী হৃদয় ও রাসেল মিয়াকে গ্রেফতার করেছে।

রূপগঞ্জ থানার এস আই সোহেল সিদ্দিকী স্কুল ছাত্রীর বরাত দিয়ে জানান, গত চার বছর আগে রূপগঞ্জের বরপা রসুলপুর এলাকার খান ডাক্তার বাড়ির ভাড়াটিয়া কাজল মিয়ার ছেলে মোঃ রনি মিয়ার সঙ্গে তার প্রেমের সর্ম্পক গড়ে উঠে। গত ৮ মে বুধবার বিকালে রনি মিয়া মুঠোফোনে প্রেমিকা স্কুল ছাত্রীকে জানায় তার মা গুরুতর অসুস্থ তাকে দেখতে চায়। অসুস্থতার খবরে স্কুল ছাত্রী রাজধানী ঢাকার লালবাগ থানার ভাগালপুর লেনের বাসা থেকে সিএনজিযোগে এসে রনির সঙ্গে দেখা করে।

এক পর্যায়ে রনি সুকৌশলে তাকে তার মায়ের কাছে না নিয়ে রসুলপুর এলাকার খান ডাক্তারে বাড়ির নিচতলার রুমে নিয়ে যায়। পরে শারীরিক সম্পর্কের প্রস্তাব দেয়। এতে রাজি না হওয়ায় স্কুল ছাত্রীকে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। এসময় রনির দুই বন্ধু একই এলাকার হাবিবুর রহমানের ছেলে হৃদয় ও রাসেল বাহিরে পাহারারত অবস্থায় ছিলো।

১৪ মে নারায়ণগঞ্জ মহানগরের সিদ্ধিরগঞ্জে টিভি ও মোবাইল ফোনে পর্ণো ভিডিও দেখিয়ে ৭ বছরের দুই শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগে রিয়াজ (৩৮) নামে লম্পটকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শিশু দু’টি স্থানীয় একটি মাদ্রাসার প্রথম শ্রেণীর ছাত্রী।

অভিযুক্তকে আটক করে পুলিশের হাতে তুলে দেয় এলাকাবাসী। এ ঘটনায় সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন এক শিশুর মা। সে সিদ্ধিরগঞ্জের ৬নং ওয়ার্ডের শিমুলপাড়া এলাকায় থাকেন।

মামলার বরাত দিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (অপারেশন) এইচ এম জসীম উদ্দিন জানান, অভিযোগকারী ও তার প্রতিবেশী তারা স্বামী স্ত্রী উভয়ে গার্মেন্টে কাজ করে। প্রতিদিন তারা কাজে যাওয়ার পর তাদের দুই সন্তানকে (৭ বছর বয়সের) ডেকে নিয়ে টিভি দেখার কথা বলে নীল ছবি দেখিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে রিয়াজ।

গত ৮, ৯ ও ১০ মে সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত ওই লম্পট শিশু দু’টিকে ধর্ষণ করার চেষ্টা করে। শিশু দুটির মা-বাবারা কর্মস্থলে যাওয়ায় লম্পট রিয়াজ শিশুদেরকে মোবাইল ফোনে পর্ণো ছবি দেখিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করে বলে উল্লেখ কর হয় মামলায়। পরবর্তীতে শিশু দুটি এ ঘটনা তাদের মা-বাবাকে জানালে তাদের মা-বাবা এলাকাবাসীকে অবহিত করলে এলাকাবাসী তাকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে। এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা নেওয়া হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ধর্ষণ শুধু একটি জীবনকেই নষ্ট করে দেয়না। এর পাশাপাশি একটি পুরো পরিবারকে ধ্বংস হয়ে যায়। একে করে সামাজিক অবক্ষয়ও দেখা দেয়া যা সমাজ ও দেশের জন্যও ক্ষতিকর বটে। এসব কারণে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর উপর থেকে জনগণের আস্থা দিন দিন কমে যাচ্ছে।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও