‘ছেলে ধরা’ আতঙ্ক!

রূপগঞ্জ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:১০ পিএম, ৯ জুলাই ২০১৯ মঙ্গলবার

‘ছেলে ধরা’ আতঙ্ক!

রাজধানী ঢাকার পাশের রূপগঞ্জে হঠাৎ করেই ‘ছেলে ধরা’ আতঙ্ক বিরাজ করছে। ছেলে ধরা চক্র এলাকায় ছদ্মবেশে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং শিশু-কিশোরদের তুলে নিয়ে হত্যা করে মাথা কেটে নিয়ে যাচ্ছে এমন গুজবে ছড়িয়ে পড়েছে উপজেলার সর্বত্র। এতে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে অভিভাবক মহল। প্রাইমারি স্কুল ও কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলোতে সতর্কবস্থা জারি করা হয়েছে। তবে প্রশাসন বলছে, এটা নিছক গুজব।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি চক্র প্রচার করছে ‘পদ্মা সেতু নির্মাণ করতে গিয়ে নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। সেখানে অন্তত এক লাখ শিশু-কিশোরের কল্লা (মাথামুন্ড} দিতে হবে। সে মতে ৪২টি দল সারাদেশে শিশু-কিশোরদের কল্লা সংগ্রহে কাজ করছে।’

এমনই গুজব ছড়িয়ে পড়ছে উপজেলার প্রতিটি ঘরে এবং শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে। গুজব ছড়িয়ে পড়ার পর থেকে শিশু-কিশোরদের অভিভাবকরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে। স্কুলে স্কুলে জারি করা হয়েছে সতর্কবস্থা। বেশ কিছু শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ছাত্র ছাত্রীদের উপস্থিতির হার আগের চেয়ে কমে গেছে। অনেক অভিভাবক ভয়ে সন্তানদের স্কুলেও পাঠাচ্ছেন না। অথচ রূপগঞ্জের কোথাও কল্লা কাটার ঘটনা ঘটেছে-এমন খবর বা তথ্য পাওয়া যায়নি।

অপরিচিত লোক দেখলেই মানুষের মাঝে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে। এতে বিপাকে পড়ছে ভিক্ষুক-ফেরিওয়ালা। অপরিচিত কেউ ভিক্ষা চাইতে গেলে গৃহস্থরা ভিক্ষা না দিয়ে ফিরিয়ে দিচ্ছেন। উপজেলার কোথাও না কোথাও শিশু ধরে নিয়ে গলা কাটছে এমন গুজবে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে মানুষের মাঝে।

নগরপাড়া ব্রাইট শিশু কানন হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম রফিক বলেন, আগে স্কুলে উপস্থিতির হার ছিলো ৯০ ভাগ। ছেলে ধরার আতঙ্কের খবরের পর থেকে উপস্থিতির হার ৭০ নেমে এসেছে। আমরা অভিভাবকদের বুঝানোর চেষ্টা করেছি এটা গুজব।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মমতাজ বেগম বলেন, এমন কোন অভিযোগ এখনো পাইনি বা শুনিনি।

উপজেলা চেয়ারম্যান শাহজাহান ভূঁইয়া বলেন, এটা গুজব। একটি মহল রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে এমন গুজব ছড়াচ্ছে। তিনি এলাকাবাসীকে এমন মিথ্যা গুজবে কান না দেয়ার আহবান জানান।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও