নারী ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনিরের কোটি টাকার পশুর হাট আলোচনায়

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:২২ পিএম, ৬ আগস্ট ২০১৯ মঙ্গলবার

নারী ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনিরের কোটি টাকার পশুর হাট আলোচনায়

নারায়ণগঞ্জে কোটি টাকার কোরবানীর একটি পশুর হাট এখন আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে। সদর উপজেলার নারী ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনির ফতুল্লার আলীগঞ্জের গণপূর্তের খেলার মাঠের অস্থায়ী ওই হাটটি ইজারা নেন ১ কোটি ১৫ লাখ ৫শ টাকায়। এবার এ হাটের ইজারা নিয়ে ফাতেমা মনিরের অনুগামীদের সঙ্গে আলীগঞ্জ পাগলা এলাকার আলোচিত শ্রমিক লীগ নেতা কাউসার আহমেদ পলাশ গ্রুপের মধ্যে দফায় দফায় হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছিল। গত বছর এটা ৮০ লাখ টাকায় ইজারা নেয় পলাশের লোকজন। এবার পলাশের অনুগামী হাজী হালিম খান ৯০ লাখ টাকা দর তুলেছিলেন।

৬ আগস্ট মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক আনুষ্ঠানিকভাবে ফাতেমা মনিরের হাতে দরপত্রের অনুমোদন পত্র তুলে দেন। এর আগে সোমবার সদর উপজেলার ১৭টি পশুর হাটের ইজারা সম্পন্ন হয়। সবগুলো হাটের সরকারী দরের চেয়ে ৫শ থেকে ৫ হাজার টাকা বেশী দরে ইজারা দেওয়া হলেও আলীগঞ্জের ওই হাটটি তিন গুণ বেশী মূল্যে দেওয়ায় সৃষ্টি হয়েছে আলোচনায়।

স্থানীয়রা বলছেন, ইজারার সঙ্গে সরকারী ভ্যাট, হাটের প্যান্ডেল, ডেকোরেশন সহ আনুসাঙ্গিক আরো ২০ লাখ টাকার মত খরচ যাবে। তার পরে উঠবে লাভের টাকা। ফলে এবার ১ কোটি ১৫ লাখ ইজারার কারণে এর মূলধন উঠানো একটি বড় চ্যালেঞ্জ।

ফাতেমা মনির জানান, অন্যরা কে কত দিয়েছে সেটা আমার জানা নাই। আমি এ হাটের ১ কোটি ১৫ লাখ ৫শ টাকা দর তুলেছিলাম। সর্বোচ্চ দর হওয়ায় আমি পেয়েছি। মঙ্গলবার অনুমোদন পত্র পেয়েই হাটের কাজ শুরু করেছি।

স্থানীয় সূত্র মতে, আলীগঞ্জ গরুর হাটকে ঘিরে ফতুল্লা, কুতুবপুর, আলীগঞ্জ, পাগলা ও শ্যামপুরের লোকজন গরু কিনতে আসেন। নদী ও সড়ক উভয় পথে এই হাটে গরু প্রবেশ করতে পারায় বিপুল পরিমাণ গরু এই হাটে প্রবেশ করে। যাতায়াত ব্যবস্থা ও কয়েক হাজার গরুর সমাগম হওয়ায় ক্রেতা ও গরুর ব্যাপারীদের পছন্দের তালিকায় থাকে এই হাটটি। সেই কারণেই এই হাটের ইজারাকে ঘিরে স্থানীয় প্রভাবশালীদের দৌড়ঝাঁপ।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও