আকবরনগরে প্রভাবশালী সামাদ ও রহিম হাজী বাহিনীর সংঘর্ষে আহত ১০

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৩০ পিএম, ১৮ নভেম্বর ২০১৯ সোমবার

আকবরনগরে প্রভাবশালী সামাদ ও রহিম হাজী বাহিনীর সংঘর্ষে আহত ১০

নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সিগঞ্জ জেলার সীমান্তবর্তী এলাকা ফতুল্লার আকবরনগরে প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে সামাদ আলী ও রহিম হাজী গ্রুপ আবারো সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছে।

১৮ নভেম্বর সোমবার বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত দুই গ্রুপের লোকজন ধারালো রাম দা, ছুরি, টেটা ও লোহার রড হাতে নিয়ে প্রকাশ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষে জড়ায়। এতে অন্তত ৮-১০ জন আহত হয়েছে। তাৎক্ষনিক আহতদের নাম পরিচয় পাওয়া যায়। আহতদের নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সিগঞ্জে চিকিৎসার জন্য নেয়া হয়েছে।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানার এসআই মিজানুর রহমান জানান, প্রথমে সামাদ আলীর লোকজন রহিম হাজীকে মারধর করে। এসময় খবর পেয়ে রহিম হাজীর লোকজন গিয়ে সামাদ আলীর বাড়ি ঘর ঘেরাও করে ভাংচুরের চেষ্টা চালায়। এতে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়ে কয়েকজন আহত হয়েছে। তখন খবর পেয়ে উভয় পক্ষকে শান্ত করে সামাদ আলীর স্ত্রী নাছিমা বেগম ও রহিম হাজীকে আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এখন পরিস্থিত শান্ত রয়েছে।

এলাকাবাসী জানান, আকবরনগর এলাকায় সামাদ আলী ও রহিম হাজী পৃথক দুটি বাহিনী তৈরী করে চাঁদাবাজী, মাদক ব্যবসা, ডাকাতিসহ নানা অপরাধ কর্মকান্ড পরিচালনা করেন। এতে প্রভাব বিস্তার নিয়ে দুই বাহিনীর মধ্যে প্রায় সময় সংঘর্ষে বাড়ি ঘরে আগুন দেয়াসহ হতাহতের ঘটনা ঘটে। আর এসব সংঘর্ষের ভয়ে আকবর নগর এলাকার কয়েক হাজার মানুষ আতংকে দিন কাটাতে হয়। সবশেষ গত বছরের ৯ আগষ্ট দুই পক্ষের সংঘর্ষে জয়নাল নামে এক ব্যক্তি টেটাবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়। এলাকাবাসী উভয় বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রশাসনের কঠোর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও