বিসিকের রাস্তায় কাঁদাজলের মধ্যেই জোড়াতালির মেরামত

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ১০:১৫ পিএম, ১৯ জুন ২০২০ শুক্রবার

বিসিকের রাস্তায় কাঁদাজলের মধ্যেই জোড়াতালির মেরামত

দীর্ঘদিন ধরেই শিল্পনগরী নারায়ণগঞ্জের অন্যতম শিল্পাঞ্চল বিসিকের সড়কের নাজেহাল অবস্থা। সম্প্রতি নিয়মিত বৃষ্টিতে যা রীতিমতো মরণ ফাঁদে পরিণত হয়েছে। প্রায় প্রতিদিন একাধিক গাড়ি উল্টে যাওয়ার ঘটনাও ঘটতে থাকে। এমতাবস্থায় কাঁদা-জলের মধ্যেই কোনো মতে জোড়াতালির মেরামত করছে সংশ্লীষ্ট কর্তৃপক্ষ।

নারায়ণগঞ্জের অন্যতম জনপ্রিয় ফেসবুক গ্রুপ নারায়ণগঞ্জস্থানে সড়কটির জোড়াতালির মেরামতের ছবি পোষ্ট করেন মো. তৌফিক আহমেদ। ছবিগুলোতে দেখা যায় সড়কটির বিভিন্ন স্থানে বড় বড় গর্ত তৈরী হয়ে আছে। যেসব গর্তে পানি জমে আছে। এসব গর্ত কোনোমতে পাশ কাটিয়ে যানবাহন চলাচল করছে ও পায়ে হেঁটে মানুষ যাতায়াত করছে। বৃষ্টির মধ্যেই কাঁদা-জলে ভর্তি গর্তে দুইটি ট্রাক থেকে রাস্তা মেরামতের সরঞ্জাম রাস্তার উপর ঢালা হচ্ছে। এবং একটি রোড রোলার দিয়ে কোনো রকমে রাস্তাটি মেরামতের চেষ্টা করা হচ্ছে।

পোস্টটিতে মো. তৌফিক আহমেদ লিখেন, ‘আমাদের প্রতিদিনের ভোগান্তির কি অবসান হবে না? বৃষ্টি হলে পুরো রাস্তা চলাচলের অনুপযোগী হয়ে যায়। লাস্ট আড়াই বছর যাবৎ একই অবস্থা।’

তৌফিক আহমেদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে নিউজ নারায়ণগঞ্জকে তিনি বলেন, ‘কয়েক মাস পর পরেই সড়টি কোনো রকমে মেরামত করে। কিন্তু দুইদিন পর পর এইরকম হয়। স্থায়ীত্ব থাকে না। আমরা স্থায়ী সমাধান চাই।’

ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ ও নারায়ণগঞ্জ সংযোগ এ সড়কটি সেতু বিভাগের আওতাধীন। সড়কটির পাশেই অবস্থিত বিসিক শিল্প নগরী। এছাড়া সড়কটির পাশে আরো অসংখ্য শিল্প কারখানা রয়েছে। বিসিক হোসিয়ারী শিল্প নগরীতে ৬৫৯ টি গার্মেন্টস কারখানায় প্রায় ২ লাখ ৬০ হাজার শ্রমিক কর্মরত। অন্যান্য শিল্প কারখানার শ্রমিক সহ প্রায় ৩ লাখ শ্রমিক এই অঞ্চলে কর্মরত। এসব কারখানা থেকে বছরে প্রায় পাঁচ হাজার কোটি টাকার বৈদেশিক মুদ্রা আয় করে দেশ। কিন্তু যাদের মাধ্যমে এ বিপুল টাকা আয় হয়, সেই শ্রমিকদের যাতায়াত করতে হয় পানির নিচে ডুবে থাকা সড়কেও ওপর দিয়ে।

সম্প্রতি বিকেএমইএ প্রথম সহ-সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম ফেসবুকে সড়কের ভিডিও আপলোড করে লিখেছেন, ‘এটা কোন ইরি ক্ষেতের হাল চাষের দৃশ্য নয়, এটা ঢাকা-মুন্সীগঞ্জ মহাসড়কের বা আন্তজেলা একটি প্রধান সড়কের নারায়ণগঞ্জের পঞ্চবটি-মোক্তারপুর অংশের প্রথম এক কিলোমিটার অংশের অর্থাৎ পঞ্চবটি থেকে বিসিক হোসিয়ারী শিল্প নগরী পর্যন্ত ১ কিলোমিটার অংশের রাস্তার করুন দৃশ্য এটি। দেখলে মনে হবে এর কোন অভিভাবক নেই, যদিও একসময় ভেবেছিলাম সড়ক বিভাগের অধিনস্ত রাস্তাটি। স্থানীয় সাংসদ বন্ধুবর শামীম ওসমানের মাধ্যমে জানলাম এর অভিভাবক ‘সেতু বিভাগ’। পাশেই রয়েছে বিসিক হোসিয়ারী শিল্প নগরী, যেখানে ছোট বড় মিলিয়ে ৬৫৯টি শিল্প কারখানার প্রায় ২ লক্ষ ৬০ হাজার শ্রমিক এবং আশে পাশে আরও প্রায় শ খানেক ফ্যাক্টরী মিলিয়ে প্রায় সাড়ে তিন লাখ শ্রমিক কর্মরত এ অঞ্চলে। যাদের একটা অংশের প্রতিদিনের যাতায়াত এ রাস্তা দিয়ে। তাছাড়া পঞ্চবটি থেকে মোক্তারপুর পর্যন্ত গার্মেন্টস সহ শত শত শিল্প কারখানা, বিসিকের শিল্প কারখানা সমূহ, মোক্তারপুর অঞ্চলের সিমেন্টসহ বৃহৎ শিল্প কারখানা সমূহ, সামিট গ্রুপের নৌবন্দর ইত্যাদি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান সমূহের প্রতিদিনের পণ্য পরিবহন এবং মুন্সীগঞ্জের বাসসহ মানুষের যাতায়াতের প্রধান রাস্তা এটি। স্থানীয় সাংসদসহ এলাকার জনগন দীর্ঘদিন যাবত দাবী জানিয়ে আসলেও সেতু বিভাগের নিরবতা আমাদেরকে ব্যথিত করছে প্রতিনিয়ত।’

এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে নারায়ণগঞ্জ-৪ (ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ) আসনের এমপি শামীম ওসমান বলেন, ‘সড়কের বেহাল দশা নিয়ে সেতু বিভাগের মন্ত্রী মহোদয়, চেয়ারম্যান ও সচিব মহোদয়ের সাথে কথা বলে বিষয়টি নজরে দেয়া হয়েছে। তারা কথা দিয়েছেন জরুরী ভিত্তিতে রাস্তাটি সংস্কারের ব্যবস্থা নিবেন।’

তিনি আরো জানান, ‘রাস্তাটি সড়ক ও জনপদের নয়। সেতু বিভাগের আওতায় পড়েছে। এখানে ভবিষৎতে ৬ কিলোমিটার মুন্সীগঞ্জের মোক্তারপুর পর্যন্ত সড়কে ফ্লাইওভার নির্মাণ কাজ শুরু হবে।’



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও