৬৫ কেজি গরুর মাংস নেয়ার সময়ে হাতেনাতে ভুয়া সেনা সদস্য গ্রেপ্তার

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৩:৪১ পিএম, ২৮ জুন ২০২০ রবিবার

৬৫ কেজি গরুর মাংস নেয়ার সময়ে হাতেনাতে ভুয়া সেনা সদস্য গ্রেপ্তার

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লা থানার পাগলা বাজার এলাকায় সেনাবাহিনীর সদস্য পরিচয় দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে একটি বাজার হতে ৬৫ কেজি গরুর গোস্ত নেয়ার সময় আফজাল মিনহাজ সংগ্রাম (৪৮) নামের প্রতারককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এসময় তার কাছ থেকে একটি ভুয়া আইডি কার্ড ও একটি লাঠি জব্দ করা হয়।

রোববার (২৮ জুন) সকালে গ্রেপ্তারকৃত আফজাল মিনহাজ সংগ্রাম নাটোরের বড়াই গ্রাম থানার চন্দিপুর এলাকার এরশাদ আলীর ছেলে। সে গাজীপুর কাশিমপুরের লালদীঘি এলাকায় ভাড়াটিয়া হিসাবে বসবাস করে।

প্রতারণার ঘটনায় ফতুল্লার পাগলা বাজারস্থ মাংস বিক্রেতা হারুন অর রশিদ বাদী হয়ে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করে।

ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. শাহাদাত হোসেন জানান, রোববার সকালে আফজাল মিনহাজ সংগ্রাম পাগলা বাজারে এসে নিজেকে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সেনাবাহিনীর সদস্য পরিচয় দিয়ে একটি লাঠি হাতে নিয়ে মানুষ কেন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখছে না তা নিয়ে স্থানীয় লোকদের এলোপাথারীভাবে মারধর করে লিলাফুলা জখম করে। লোকদের ভয়ভীতি ও হুমকি দিয়ে রাস্তা ফাঁকা করে আতঙ্ক সৃষ্টি করে। একপর্যায়ে বাজারের ভিতরে গিয়ে গরুর মাংস ব্যবসায়ী হারুন অর রশিদের দোকানে গিয়ে ৬৫ কেজি ক্রয় করে ও ৬৫০ কেজি দরে মেমো করার জন্য বলা হয়। সংগ্রাম তখন মাংসগুলো সিএনজিতে তুলে দাও আর ব্যাংকের বুথ থেকে টাকা তুলে দিবে জানায়। সংগ্রামের আচরণে সন্দেহ হলে হারুন বাজার সমিতিকে অবহিত করেন। পরে বাজার সমিতির লোকজন এসে সংগ্রামকে জিজ্ঞেস করলে ভুয়া সেনাবাহিনী হিসাবে প্রমাণিত হয়। এসময় বাজার কমিটির লোকজন ফতুল্লা থানা পুলিশকে ফোন করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ভুয়া সেনাবাহিনীর সদস্য সংগ্রাম আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

তিনি আরো জানান, সংগ্রাম ইতোপূর্বে বিভিন্ন এলাকার গরুর মাংসের দোকানদারকে বোকা বানিয়ে মাংস নেয়ারও অভিযোগ রয়েছে। আর গত কয়েকদিন আগে একই কৌশলে ফতুল্লার শিবুমাকেট এলাকার এক গরুর গোস্তের ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ৩০ কেজি মাংস নিয়ে যায়।

 



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও