করোনা নেগেটিভ ও মৃত ব্যক্তির স্বজনদের পাশে দিনা

স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৮:৩৩ পিএম, ১১ জুন ২০২০ বৃহস্পতিবার

করোনা নেগেটিভ ও মৃত ব্যক্তির স্বজনদের পাশে দিনা

প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের শুরু থেকেই নানাভাবে কাজ করে যাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনা। তারই ধারাবাহিকতায় এবার সামাজিক ভয়ভীতি দূর করতে করোনা নেগেটিভ আসা পরিবারের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন এবং তাদেরকে বুকে টেনে নিচ্ছেন। সেই সাথে বিভিন্নভাবে অপপ্রচারের শিকার হওয়া পরিবারের পাশেও এসে দাঁড়িয়েছেন তিনি।

কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনা জানান, পটুয়াখালি জেলার তানিয়া নামে একটি মেয়ে সিদ্ধিরগঞ্জের নয়াপাড়া এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করে আসছিল। মেয়েটি গার্মেন্টসে চাকরি করতো। গত কয়েকদিন আগে মেয়েটির জ্বর সর্দির উপসর্গ দেখা দিলে মেয়েটি করোনা টেস্ট করায় এবং পজিটিভ রেজাল্ট আসে। পরবর্তীতে তানিয়া নামে ওই মেয়েটি সাজেদা ক্লিনিকে ভর্তি হয় এবং সেখানকার চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে আবার নমুনা পরীক্ষা করালে তার করোনা নেগেটিভ আসে।

কিন্তু মেয়েটি যেই ভাড়া বাসায় বসবাস করতো সেই বাসায় তাকে ঢুকতে দিচ্ছিল না। এই ঘটনাটি শুনতে পেরে আমি ও যুবলীগ নেতা রিপন সহ ৭ নং ওয়ার্ড স্বেচ্ছাসেবক কমিটি নিয়ে ওই এলাকাতে যাই। ঘটনাস্থলে গিয়ে অনুরোধ করে মেয়েটিকে বাসায় দিয়ে আসি। সেই সাথে সবার সামনে আমি গিয়ে মেয়েটিকে জড়িয়ে ধরি। সবাইকে বুঝানোর চেষ্টা করি করোনা হলে তাকে ঘৃণার চেখে নয় বরং ভালোবাসা এবং সহানুভূতির চোখে দেখতে হবে। এরপর ঐ মেয়েকে আমি ও রিপন এক মাসের যাবতীয় খাবার ও কিছু টাকা হাতে দিয়ে আসি। পাশাপাশি এলাকার সবাই ঐ মেয়েটাকে এবং ঐ বাড়িওয়ালাদের যেন কোন দৃষ্টিকটু ভাবে না দেখে সে বিষয়টি নিশ্চিত করে আসি।

ঠিক এরকম একটি ঘটনা ঘটে ভান্ডারী পুল এলাকায়। সেখানে গত পরশু রাতে হানিফ নামে একজন লিভার সমস্যায় মারা যায় কিন্তু এলাকার কিছু লোক এটাকে করোনায় মারা গেছে বলে অপপ্রচার চালায়। পরিবারের লোকদের মসজিদে গিয়ে নামাজ পড়তে নিষেধ করে এমনকি মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া পড়ালে সেই দোয়ার তোবারকও ভয়ে কেও নিতে চায় না। এলাকার দোকানদার হতে শুরু করে অনেক মানুষই তাদের সাথে অস্বাভাবিক আচরণ শুরু করে। তাদের বাড়ীর সীমানা দিয়েও কেউ হাঁটেনা ভয়ে। ফলে তারা একদিকে মৃত্যু শোকে কাতর অন্য দিকে এলাকাবাসীর এই ব্যবহারে মানসিকভাবে ভেঙ্গে পরে।

এখবর পেয়ে আমি আমার স্বেচ্ছাসেবক টিম সহ ঐ বাড়ীতে যাই এবং মৃত ব্যাক্তির স্ত্রীকে জড়িয়ে ধরে সান্তনা দেই। তাকে জড়িয়ে ধরার সাথে সাথে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে আসে। তারপর ঐ এলাকার আশে পাশের সবাইকে বুঝাই এবং অপপ্রচার থেকে বিরত থাকতে বলি এবং এও বলি যে কেও অপপ্রচার করে এলাকায় ভয়ের সঞ্চার করলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সকলের প্রতি আহবান রেখে কাউন্সিলর দিনা বলেন, আসুন আমরা সবাই সচেতনতা বৃদ্ধি করে করোনাকে মোকাবেলা করি। অপপ্রচার থেকে বিরত থাকি। কারো করোনা হলে তাকে ঘৃণার চোখে নয় সহানুভূতির চোখে দেখুন। আজ আপনি করোনা রোগীকে ঘৃণা করছেন আগামীকাল যে আপনার করোনা হবে না তার কোন গ্যারান্টি নেই। এটা একটা মহামারী। আল্লাহ পাক এই মহামারী দিয়েছেন আবার তিনিই আমাদের রক্ষা করবেন। তাই সবাই আল্লাহকে ডাকুন, সচেতন হউন এবং আপনার আশেপাশে কেউ করোনায় আক্রান্ত হলে তাকে যতটুকু পারেন নিজেকে সেইফ রেখে সহযোগিতা করুন।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও