ফেরারী থেকেও দিনার সহযোগিতায় আরও এক ফুটফুটে শিশুর জন্ম

সিটি করেসপন্ডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ ০৯:৪৪ পিএম, ২৪ জুন ২০২০ বুধবার

ফেরারী থেকেও দিনার সহযোগিতায় আরও এক ফুটফুটে শিশুর জন্ম

প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাসের সংক্রমনের শুরু থেকেই নানা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনা। একজন নারী হয়েও নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে প্রতিদিন সকাল থেকে শুরু করে রাত অবধি বিভিন্ন সাহায্য সহযোগিতা নিয়ে ও সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে ওয়ার্ডবাসীর দ্বারে দ্বারে ছুটে বেড়িয়েছেন তিনি। সেই সাথে তিনি গর্ভবর্তী মায়েদের নানাভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছেন।

কিন্তু তার এই পথচলাকে দমিয়ে দিতে চায় কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনার প্রতিপক্ষরা। তার বিরুদ্ধে নানামুখী ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে দেয়া হয় মামলা। আর এই মামলার আসামী হয়ে আয়েশা আক্তার দিনাকে ফেরারী জীবন যাপন করতে হচ্ছে। তারপরেও তিনি দমে যাননি। ফেরারী থেকেও তার সহযোগিতায় একের পর এক ফুটফুটে শিশুর জন্ম নিচ্ছে। সেই সাথে সেই প্রসূতি মায়েরা দেখছেন তাদের সন্তানের প্রিয় মুখ এবং আত্মীয় স্বজনদের মুখে ফুটে উঠছে হাসি।

তারই ধারাবাহিকতায় কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনার সহযোগিতায় ২৩ জুন মঙ্গলবার এক ফুটফুটে শিশুর জন্ম হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে আয়শা আক্তার দিনা জানান, ফেরারী জিবনে থেকেও মঙ্গলবার সাড়ে ৬টায় আমার সার্বিক সহযোগিতায় ষষ্ঠ বারের মতো জন্ম নিলো আরো এক পুত্র সন্তান। গোদনাইল ১০ নং ওয়ার্ড নিবাসী আমার এক পরিচিত বোন হঠাৎ করেই ফোন করে বললেন, সে গর্ভবতী এবং সকাল থেকেই তার ডেলিভারী ব্যাথা। লকডাউন এবং করোনায় তার স্বামী তিন মাস যাবত বেকার। সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত নানান ভাবে টাকা জোগার করার চেষ্টা করেও কোন উপায় না পেয়ে আমাকে ফোন দিয়েছে। লোক মুখে করোনা কালীন সময়ে অসহায় গর্ভবতী মায়েদের জন্য আমার ডেলিভারী কার্যক্রম এর কথা শুনে তারা আমার স্মরণাপন্ন হয়েছে। প্রথমে তারা আমার বাসায় যায় এবং বাসায় গিয়ে জানতে পারে একটি মামলায় আমরা পুরো পরিবার ফেরারী।

কিন্তু এই অবস্থায় থেকেও গত পরশু আরো এক অসহায় গর্ভবতী বোনকে ডেলিভারিতে সহোযোগিতা করেছি শুনে আমার নাম্বার জোগার করে আমাকে ফোন দেয় এবং এও বলে আমরা জানি আপনি নিজেই এখন বিপদে আছেন তাও আমরা উপায় না পেয়ে আপনার সহযোগিতা চাচ্ছি। তখন আমি সাথে সাথে তাদেরকে বলি ডনচেম্বার এলাকার আল মক্কা হাসপাতালে রোগীকে নিয়ে আসতে এবং আমিও ঐখানে আসতাছি। তারপর দুপুর ৩ টায় তারা হাসপাতালে আসলে আমি তাদের রিসিভ করে আল মক্কা হাসপাতালে নিয়ে যাই এবং সাথে সাথে ডাক্তার নার্স সহ আল মক্কা হাসপাতালের সকলের সহোযোগিতায় সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় সিজারের মাধ্যমে জন্ম নেয় এক ফুটফুটে পুত্র সন্তান। মা ও সন্তান দুজনই সুস্থ আছেন। প্রতিবারের মত এবার ও এই নবাগত শিশু ও মায়ের একমাসের খাবার ও হাসপাতালের বিল সহ সকল দায়িত্ব আমি নিলাম।

দিনার আরও বলেন, ধন্যবাদ জানাই, সাংবাদিক ও মানবাধীকার কর্মি সোনিয়া দেওয়ান প্রীতি আপাকে সার্বক্ষণিক সাপোর্টের জন্য। সেই সাথে ধন্যবাদ জানাই নারায়ণগঞ্জ ৫ আসনের সাবেক এমপি আবুল কালাম এবং একমাত্র সুযোগ্য পুত্র নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কাউসার আশাকে। সে সার্বক্ষণিক ভাবে লোকজন দিয়ে এই ডেলিভারি পর্যন্ত সকল কাজে আমাকে সহোযোগীতা করছে। পাশাপাশি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বারবার বলে দিয়েছে আমাকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করার জন্য।

সকলের প্রতি আহবান রেখে দিনা বলেন, এই মহামারিতে রাজনীতি বাদ দিয়ে আসুন আমরা সবাই মানব সেবায় নিজেকে নিয়োজিত রাখি। বেঁচে থাকলে রাজনীতি করার অনেক সময় পাবেন কিন্তু মানব সেবার সুযোগ আল্লাহপাক সবসময় দেন না। হেরে যাক হিংসা জিতে যাক আমাদের মানবতা। সবাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন। অপ্রয়োজনে ঘর থেকে বের হবেননা। নিয়মিত মাক্স ব্যবহার করুন, সর্বদা পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকুন এবং অবশ্যই আল্লাহপাকের দরবারে রহমত কামনা করুন। একমাত্র তিনিই পারবেন আমাদের এই মহামারী থেকে রক্ষা করতে।

প্রসঙ্গত মামলার ফেরারী আসামী থাকাঅবস্থায় এর আগেও ফেরারী থেকেও কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনার সহযোগিতায় আরও এক ফুটফুটে শিশু জন্ম হয়েছিল। এছাড়াও দিনার সহযোগিতায় এ পর্যন্ত আরও ৪ জন নবজাতকের জন্ম হয়েছে।



নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আরো খবর
এই বিভাগের আরও