৯ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, বৃহস্পতিবার ২৩ নভেম্বর ২০১৭ , ১:৪৪ অপরাহ্ণ

আজাদ বিশ্বাসের ‘ওই বক্তব্য’ শুনতে চায় না বিএনপি : মামুন মাহমুদ


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:০১ পিএম, ২০ অক্টোবর ২০১৭ শুক্রবার | আপডেট: ০৪:০৪ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০১৭ শনিবার


আজাদ বিশ্বাসের ‘ওই বক্তব্য’ শুনতে চায় না বিএনপি : মামুন মাহমুদ

দুই দিন যাবত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জের বিএনপির দুজন নেতাকে নিয়ে ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়েছে। ওই দুজন নেতাকে বিএনপি থেকে বহিষ্কারের দাবি তুলেছেন নেতাকর্মীরা। ফেসবুকে ওই দুজন নেতাকে আওয়ামীলীগের দালাল হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন।

বৃহস্পতিবার (১৯অক্টোবর) বিকেলে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার দেলপাড়া মাঠে ডিএনডির মেগা প্রকল্পের উদ্বোধনের প্রাক্কালে প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাতে আয়োজিত সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ফতুল্লা থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আজাদ বিশ্বাস ও ফতুল্লা থানা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মনিরুল আলম সেন্টু। ওইসময় বিএনপির এ দুজন নেতা প্রধানমন্ত্রী ও সরকারি দলের এমপি শামীম ওসমানের প্রসংশা করেছেন।

আজাদ বিশ্বাস তাঁর বক্তব্যের এক পর্যায়ে শামীম ওসমানকে ‘আমার নেতা শামীম ওসমান’ শব্দটি ব্যবহার করেছেন। তিনি বলেছেন, আমি বিএনপি নেতা হয়ে শামীম ওসমানকে স্যালুট জানাই। একই অনুষ্ঠানে মনিরুল আলম সেন্টু বলেছেন, এমপি শামীম ওসমান উন্নয়ন করে ইতিহাস সৃষ্টি করেছেন।

ওইসব বিএনপি নেতাদের বক্তব্যে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ হয় কিনা জানতে চাইলে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহামুদ নিউজ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আসলে এ  ধরনের বক্তব্য দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গে পরেনা। তবে ওই এ ধরনের বক্তব্য নেতাকর্মীরা শুনতে চায়না। এমন বক্তব্যে কর্মীরা বিব্রত বিভ্রান্তিতে পড়ে। যারাই এ ধরনের বক্তব্য দেন তাদের আরো সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত।

বিএনপির একজন শীর্ষ নেতা আওয়ামীলীগের এমপিকে বলেছেন ‘আমার নেতা’ তাহলে আপনারা কি তার নেতা নন জানতে চাইলে মামুন মাহামুদ বলেন, ‘উনি আমাদেরকেও নেতা মানেন। আমাদেরও এভাবে সম্বোধন করেন।’

বিএনপি এ সরকারকে অবৈধ দাবি করেন কিন্তু বিএনপি নেতারা প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাতে আয়োজিত সমাবেশে উপস্থিত হয়ে প্রধানমন্ত্রীর প্রসংশা করেছেন বিষয়টি কিভাবে দেখেন  জানতে চাইলে তিনি বলেন, আসলে উন্নয়নের পূর্ব শর্ত হলো গণতন্ত্র। যেখানে মানুষের অধিকার নাই সেখানে কিসের উন্নয়ন। সেখানে যাওয়ার কোন মানেই হয়না। আগে তো গণতন্ত্র ও মানুষের অধিকার রক্ষার উন্নয়ন করতে হবে। আমরা তো গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করি।

ফতুল্লা থানা বিএনপির সাবেক সভাপতি অধ্যাপক খন্দকার মনিরুল ইসলাম তার ফেসবুকে লিখেছেন, ফতুল্লা থানা বিএনপির কলঙ্ক অধ্যায় চলছে। এর জন্য দায়ী হলেন ফতুল্লা থানা বিএনপির সভাপতি মুহাম্মদ শাহআলম। তিনি এও মন্তব্য লিখেছেন, প্রশ্ন ওঠেছে আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কোন দল সমর্থন করবেন? শাহআলমের থানা বিএনপির কি হাল।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ