৩০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, শুক্রবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ , ২:৫৪ পূর্বাহ্ণ

নারায়ণগঞ্জ বিএনপিকে চাঙ্গা করতে মহাসচিবের চিঠি


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৩৯ পিএম, ১৯ নভেম্বর ২০১৭ রবিবার | আপডেট: ০৬:১৬ পিএম, ২০ নভেম্বর ২০১৭ সোমবার


নারায়ণগঞ্জ বিএনপিকে চাঙ্গা করতে মহাসচিবের চিঠি

নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপি সহ থানা উপজেলা পর্যায়ের শীর্ষ নেতাদের চিঠি দিয়েছেন কেন্দ্রীয় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মূলত নারায়ণগঞ্জ বিএনপিকে চাঙ্গা করতেই এমন উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্রীয় বিএনপি। গত ১২ নভেম্বর ঢাকায় বিএনপির জনসভা সফল করার লক্ষ্যে নারায়ণগঞ্জের নেতাদের চিঠি পান মহাসচিব। এদের মধ্যে মহানগর বিএনপির শীর্ষ দুই নেতা ওই জনসভায় না গেলেও চিঠি পেয়েছেন তারা!

জানা গেছে, গত ১২ নভেম্বর ঢাকার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষ্যে জনসভা করে কেন্দ্রীয় বিএনপি। ওই জনসভায় উপস্থিত না হলেও চিঠি পেয়েছেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম ও সেক্রেটারি এটিএম কামাল। যদিও ওই জনসভায় নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রতিটি থানা এলাকা থেকে নেতাকর্মীরা যোগদান করেছেন। গিয়েছেন এখানকার ৫টি আসন থেকে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশি নেতারাও। যদিও নারায়ণগঞ্জ মহানগর থেকে ঢাকায় মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান ও মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ শোডাউন করেছেন। গিয়েছেন জেলা বিএনপির সভাপতি সেক্রেটারি সহ অন্যান্য নেতার সভাপতি সেক্রেটারিরাও।

নেতাকর্মীরা জানিয়েছেন, রবিবার ১২ নভেম্বর ঢাকায় সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জনসভায় নারায়ণগঞ্জের শীর্ষ পর্যায়ের কোন নেতা যাননি তো খুঁজে পাওয়া দূরহ থাকলেও মহানগর বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম ও সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল যাননি। সভাপতি ছিলেন এসি রুমে সেক্রেটারি গেছেন ভারতে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এটিএম কামালের সামনেই নাকি বেগম খালেদা জিয়া আবুল কালামের মনোনয়ন নিশ্চিত করেছেন বলে সাক্ষ দেন। যে  কারনে আবুল কালামের আর রাজনৈতিক কর্মকান্ড পালন না করলেও চলবে। হয়তো সেই হিসেবে নিকেষ করেই ঢাকায় যাননি আবুল কালাম।

ঢাকায় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষ্যে জনসভার আয়োজন করে বিএনপি যেখানে পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী উপস্থিত ছিলেন বেগম খালেদা জিয়া। ১২ নভেম্বর সকাল থেকে নারায়ণগঞ্জের গণপরিবহনগুলো বন্ধ করে দেয় পরিবহন মালিকরা। কঠিন এমন পরিস্থিতিতেও ঢাকায় গিয়েছেন সাখাওয়াত হোসেন খান ও খোরশেদ। তারা ঢাকায় গিয়ে শোডাউন করেছেন। কিন্তু নারায়ণগঞ্জের মত স্থানে মহানগরীর রাজনীতির দুইজন কর্ণধার আবুল কালাম ও এটিএম কামাল ছিলেন বেগম খালেদা জিয়ার জনসভায় অনুপুস্থিত। যদিও এটিএম কামাল চিকিৎসার জন্য ভারতে গিয়েছেন বলে জানাগেছে।

ঢাকায় বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারও নেতাকর্মীদের নিয়ে বিশাল শোডাউন করেছেন। বিভিন্ন অঙ্গসহযোগী সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীরাও নিজ নিজ বলয়ের নেতাদের সঙ্গে ঢাকায় শোডাউন করেছেন। জনসভা সফল করায় নারায়ণগঞ্জের বিএনপি নেতাদের চিঠি দিয়ে ধন্যবাদ জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মূলত নেতাকর্মীদর চাঙ্গা রাখতেই নেতাদের প্রতি এ চিঠি ইস্যূ করা হয় বলে দাবি করেছেন নেতাকর্মীরা।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ