২৯ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, বুধবার ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭ , ৭:১৭ অপরাহ্ণ

সাখাওয়াত পন্থীরা ঐক্য দাবি করেও তৈমূর পন্থীদের বললেন ‘কুলাঙ্গার’


সিটি করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:২৩ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৩:২৩ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার


সাখাওয়াত পন্থীরা ঐক্য দাবি করেও তৈমূর পন্থীদের বললেন ‘কুলাঙ্গার’

আসন্ন নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে ক্ষমতাসীন দলের প্যানেলকে নির্বাচিত করার জন্যই আওয়ামীলীগের নীল নকশায় আইনজীবী ফোরামের পাল্টা কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির সাখাওয়াত হোসেন খান পন্থী আইনজীবীরা। একই সঙ্গে পাল্টা কমিটির আইনজীবী ফোরামের সদস্যদের ‘কুলাঙ্গার’ মন্তব্য করে তাদের দল থেকে বহিস্কার করার দাবি জানিয়েছেন তারা।

শুধু ‘কুলাঙ্গার’নয় তৈমূর আলমকে ইঙ্গিত করে সরকার হুমায়ুন কবির ‘পাগল ছাগল’ শব্দটি ব্যবহার করেছেন। যদিও এ হুমায়ুন কবিরকে কারাগারে থাকাবস্থায় তৈমূর আলম পরীক্ষা দেয়ার ব্যবস্থা করিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। কয়েক ঘণ্টাব্যাপী সভায় তৈমূর আলম ও তার অনুগত আইনজীবীদের নিয়েই বক্তব্য রাখা হয়েছে।

এমনকি সেইসব নেতাদের আওয়ামীলীগের দালাল আখ্যায়িত করে তাদের বাদ দিয়ে নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহণের পক্ষে প্রস্তাব করেছেন বিএনপির সাখাওয়াত পন্থী আইনজীবীরা।

২১ নভেম্বর মঙ্গলবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির ভবনের ৪র্থ তলার সম্মেলন কক্ষে আইনজীবী সমিতির বার্ষিক সাধারণ সভায় বিএনপির আইনজীবীদের ভূমিকা নিয়ে সাখাওয়াত পন্থী আইনজীবী ফোরামের প্রস্তুতিমূলক সভায় বক্তারা এসব মন্তব্য করেন।

জানা গেছে, আগামী ২৩ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হবে জেলা আইনজীবী সমিতির  বার্ষিক সাধারণ সভা। বিএনপি আইনজীবীদের সভায় নিজ দলের আইনজীবীদের বিষোদাগারই ছিল অধিকাংশ বক্তাদের বক্তব্য। এজিএমে বিএনপির আইনজীবীদের ভূমিকা কি থাকবে এমন বিষয় নিয়ে সভা আহ্বান করা হলেও তারা বিএনপির অপর অংশের আইনজীবীদের নিয়ে নানা অপ্রীতিকর মন্তব্য করেছেন। ওই মন্তব্য থেকে ছাড় পায়নি বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা  জিয়ার উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকারও। তাকে ইঙ্গিত করেও অনেক বক্তারা বক্তব্য রেখেছেন।

সভার শুরুতেই তৈমূর আলম খন্দকারের অনুগত আইনজীবীদের নিয়ে গঠিত পাল্টা আইনজীবী ফোরামের আইনজীবীদের নিয়ে কঠোর সমালোচনা করা হয়। সভায় তারা বিএনপির আইনজীবীদের মধ্যে ঐক্য চান দাবি করলেও সভাতেই তারা বিএনপির আইনজীবীদের নিয়ে নানা ধরনের মন্তব্য করে বক্তব্য রেখেছেন।

সভায় অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান তৈমূর আলমকে ইঙ্গিত করে বলেন, ‘কয়েকটি পত্রিকায় লিখেছে সাখাওয়াত পন্থী ও আরেকজন সিনিয়র নেতার পন্থী। তবে সাখাওয়াতের কোন গ্রুপ নাই। ওই সিনিয়র নেতার গ্রুপ থাকতে পারে। কিন্তু আমরা জাতীয়তাবাদের আদর্শে বেগম খালেদা জিয়ার গ্রুপ করি।’

তিনি ফোরামের পাল্টা কমিটির ধিক্কার ও নিন্দা জানিয়ে বলেন, ‘ভুল পথ থেকে ফিরে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের ছায়াতলে আসুন। জাতীয় আইনজীবী ফোরামে অভিযোগ দেন। সেখান থেকে সভাপতি ও সেক্রেটারী যাকে করে দিবে আমরা তাদের পক্ষেই কাজ করবো। বৈধ বিএনপির কমিটি আছে। জেলা বিএনপির সভাপতি মনিরুজ্জামান, মহানগর বিএনপির সভাপতি আবুল কালাম, কেন্দ্রীয় আইনজীবী ফোরামের সেক্রেটারী সুপারিশ করেছে তারপর বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষে মহাসচিব অনুমোদন দিয়েছেন নারায়ণগঞ্জের কমিটির অনুমোদন দিয়েছে। কারো বাসায় বসে দুই চারজনকে নিয়ে কমিটি করলে আইনজীবীরা মেনে নিবে না। চাওয়া পাওয়া থাকলে নিয়মতান্ত্রিকভাবে চান আমরা চেষ্টা করবো।’

তিনি আরো বলেন,‘আমরা শক্তিশালী প্যানেল দিবো ও নির্বাচিত করবো। যারা প্রার্থীর বিরোধীতা করবে তারা নাজমুল হুদার প্রেতাত্মা হিসেবে গণ্য হবেন। নারায়ণগঞ্জে সাখাওয়াত, জাকির ও হুমায়ুন পন্থী খালেদা জিয়ার পন্থী।

অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবিরও তৈমূরকে ইঙ্গিত করে বলেন, জেলা বিএনপির পদ হারিয়েছে, মহানগর বিএনপির পদ হারিয়েছে, এখন কেন্দ্রে পদ পেয়েছে। জেলা ও মহানগরে পদ হারিয়ে পাগল হয়ে গেছেন। সে পাগল আইনজীবীদের উপর ভর করেছে। পাগল ছাগলের কথায় ভুল করবেন না।’

তৈমূরকে ইঙ্গিত করে তিনি আরো বলেন, আপনি ভালো হয়ে যান। আইনজীবীরা এখন নাজমুল হুদার প্রেতাত্মা বানিয়েছে আরো বানানোর চেষ্টা করবেন না।

সভায় অ্যাডভোকেট জাকির হোসেন বলেন, ‘বাড়িওয়ালা হয়েছে ভাড়াটিয়া আর ভাড়াটিয়া হয়েছে বাড়িওয়ালা। তার জন্যই দলের এ অবস্থা। এ বারে বিএনপি পন্থী আইনজীবীর সংখ্যা বেশি। নির্বাচনে আমরাই জয়ী হবো। আমাদের মধ্যে বেঈমানদের কারণে আওয়ামীলীগ পাশ করেছে। আইনজীবী ফোরামের মধ্যে দুইটি ভাগ করে আওয়ামীলীগের আইনজীবীরা সুবিধা নিতে চাইবে। এ সুবিধার জন্য আওয়ামীলীগের নলী নকশায় পাল্টা কমিটি গঠন করা হয়েছে। চার পাঁচজন কুলাঙ্গার মিলে বাসায় বসে কমিটি গঠন করেছে। ওই চার পাঁচ কুলাঙ্গারের দরকার নেই।’

নির্বাচন নিয়ে জাকির হোসেন বলেন, ‘আগামী ২৩ তারিখ সবাইকে সর্তক থাকতে হবে। এজিএমে বিশৃঙ্খলায় আমরা বিশ্বাসী না। ব্যক্তি ও ভাইয়ের রাজনীতি করবেন না। আদর্শের রাজনীতি করুন।’

নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির আপ্যায়ন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট এইচএম আনোয়ার প্রধান বলেন, ‘দল আপনাকে অনেক কিছু দিয়েছে। খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা হয়েছেন। আর কোন ষড়যন্ত্র করবেন না। এতো দিন দলের স্বার্থে চুপ করেছিলাম। তবে আর চুপ থাকবো না। তাই বলছি সমস্ত ভেদাভেদ ভুলে ফিরে আসুন। ঐক্য বিনষ্ট করতে চেষ্টা করবেন না।’

অ্যাডভোকেট রফিক আহমেদ বলেন, ‘আগামী নিবার্চনে আইনজীবী ফোরামের প্যানেল হবে একটি। বিএনপির পক্ষে প্যানেলে বেগম খালেদা জিয়ার স্বাক্ষর থাকতে হবে। যে প্যানেলে স্বাক্ষর থাকবে সেটাই হবে আইনজীবী ফোরামের প্যানেল। সকল আইনজীবী ওই প্যানেলের পক্ষে কাজ করবে।’

অ্যাডভোকেট আজিজুল হক হান্টু বলেন, ‘পদ ছাড়ে। এটা কি বাপ দাদার পৈত্রিক সম্পত্তি। যারা কেন্দ্র ঘোষিত মহাসচিবের অনুমোদনকৃত কমিটি আইনজীবী ফোরামের বিরোধীতা করে তারা জাতীয়তাবাদীর শত্রু। আইনজীবী ফোরামের শত্রু। প্রতিটি আইনজীবীর শত্রু। এখনও সময় আছে শেষ অনুরোধ করছি আসুন। আমরা এক হয়ে নির্বাচন করি।’

অ্যাডভোকেট এসএম মাহমুদুল হক আলমগীর বলেন, ‘নির্বাচনের দালালদের চিহ্নিত করতে হবে। তাদের বহিস্কার করতে হবে। পাল্টা কমিটির নেতাদের বহিস্কার করুন। এসব দালালদের চিহ্নিত করে বিচার করতে হবে।’

জানাে গছে, গত সোমবার বিএনপির তারেক রহমানের জন্মদিনে বিএনপির দুই গ্রুপের আইনজীবীরা পৃথকভাবে কর্মসূচি পালন করে। তৈমূর পন্থী  আইনজীবীরা আগে থেকেই আইনজীবী সমিতিতে কর্মসূচি পালনের অনুমতি নিয়ে নেয়ার কারনে সাখাওয়াত পন্থীরা সমিতির বর্ধিত টিনসেড ভবনের নিচে দোয়া মাহফিল ও সমিতির সামনে কেক কেটে কর্মসূচি পালন করেন।

প্রসঙ্গত চলতি বছরের ৭ জুন অ্যাডভোকেট সরকার হুমায়ুন কবিরকে সভাপতি ও অ্যাডভোকেট খোরশেদ আলম মোল্লাকে সাধারণ সম্পাদক ২৮৭জন আইনজীবীকে নিয়ে জেলা জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের একটি কমিটি গঠন করে কেন্দ্রয়ি ফোরামের সেক্রেটারী ব্যারিস্টার মাহাবুব উদ্দীন খোকন। আর এ কমিটি বাতিলের দাবিতে ১২ জুন আদালতে বিক্ষোভ মিছিল করে বিএনপি পন্থী আইনজীবীরা। পরে সংবাদ সম্মেলন করে ২৮৭ জনের মধ্যে ১৪৪ জন আইনজীবী পদত্যাগ করেন। ওই কমিটির পর গত ১১ নভেম্বর পাল্টা কমিটি গঠন করেন পদত্যাগী নেতারা যারা তৈমূর আলম খন্দকারের অনুগত আইনজীবী।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ