৩০ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪, শুক্রবার ১৫ ডিসেম্বর ২০১৭ , ১২:৪২ পূর্বাহ্ণ

‘রক্তভেজা বিএনপির উপর দাঁড়িয়ে এ তামাশা সহনীয় না’


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:৩২ পিএম, ২১ নভেম্বর ২০১৭ মঙ্গলবার | আপডেট: ০৮:২৮ পিএম, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ বৃহস্পতিবার


‘রক্তভেজা বিএনপির উপর দাঁড়িয়ে এ তামাশা সহনীয় না’

আবারো চরম বিতর্কে বিঁধেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি। একজন বহুল বিতর্কিত সহ সভাপতিকে সঙ্গে নিয়ে দলের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারণী ব্যক্তি সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যানের জন্মদিন পালন করায় দলের ভেতরে ও বাইরে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

দলের একাধিক নেতা জানান, বিএনপি রক্তেভেজা অবস্থায় দাঁড়িয়ে আছে। সেই বিএনপির নেতারা যখন আওয়ামী লীগের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হন আবার সেই নেতাকে আমাদের দলের নেতারা সমীহ করে তখন কষ্ট অনুভব হয়।

গত ১৯ অক্টোবর ফতুল্লার দেলপাড়ায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাতে আয়োজিত সমাবেশে সরকারি দলের এমপি মন্ত্রীদের সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও ফতুল্লা থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস। ওই অনুষ্ঠানে আজাদ বিশ্বাস বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেছিলেন, ‘আমার নেতা শামীম ওসমান। আমি বিএনপি নেতা হয়ে শামীম ওসমানকে স্যালুট জানাই।’

ওই ঘটনার পর জেলা বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়। জেলা বিএনপির সহ সভাপতি জান্নাতুল ফেরদৌস, সাংগঠনিক সম্পাদক মাসুকুল ইসলাম রাজীব এর আগে বলেছিলেন, ‘সরকার দলীয় অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে পারেন আজাদ বিশ্বাস কিন্তু সেখানে কাউকে নিজের নেতা হিসেবে জাহির করাটা আজাদ বিশ্বাসের দোষ।’

ওই ঘটনার পর জেলা বিএনপির সেক্রেটারি অধ্যাপক মামুন মাহামুদ দাবি করেছিলেন আজাদ বিশ্বাসকে শোকজ করা হয়েছে। কিন্তু আসলেই কি শোকজ করা হলো কিনা সেটা নেতাকর্মীরা জানতে পারেনি। কারণ নিয়মিতই আজাদ বিশ্বাসকে নিয়ে তারা কর্মসূচি পালন করছেন। এর আগে নারায়ণগঞ্জ চাষাঢ়া  বালুর মাঠে জেলা বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশের সভাপতিত্বও করেছিলেন আজাদ বিশ্বাস। ওই সময় বেশকজন নেতাকর্মীরা বলেছিলেন, আজাদ বিশ্বাস তো শামীম ওসমানের কর্মী। কারণ আজাদ বিশ্বাস বলেছিলেন তার নেতা শামীম ওসমান। তো শামীম ওসমানের কর্মীকে নিয়ে জেলা বিএনপি কর্মসূচি পালন করছে। এনিয়ে নেতাকর্মীদের মধ্যে বেশ ক্ষোভ সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫৩ তম জন্মদিন উদযাপন করেছেন নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি। এ উপলক্ষ্যে সোমবার সন্ধ্যায় সিদ্ধিরগঞ্জে দলের অস্থায়ী কার্যালয়ে কেক কাটা,আলোচনা সভা ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়েছে। জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহামুদ, সহ-সভাপতি আব্দুল হাই রাজু, অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, মনিরুল ইসলাম রবি, যুগ্ম সম্পাদক এম,এ আকবর, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হাসান রোজেল, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা মাহাবুবুর রহমান প্রমুখ।

নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সহ সভাপতি জান্নাতুল ফেরদৌস। তিনি বলেন, ‘আজাদ বিশ্বাসরা একচুয়ালী বিএনপির না। এই বিএনপি রক্তে ভেজা বিএনপি। বিএনপির অনেকে মামলার আসামী, জেল খেটেছে, রাস্তায় মার খেয়েছে, রক্ত ঝরেছে। বিএনপির কর্মীরা জান জীবন দিচ্ছে। আর এই রক্তভেজা বিএনপির উপর দাঁড়িয়ে আজাদ বিশ্বাসের মত লোকেরা আওয়ামীলীগের মঞ্চে প্রকাশ্যে বক্তব্য রাখেছেন। তিনি আওয়ামীলীগের অমুককে নেতা বলে স্বীকার করেছেন। তার বন্দনা করে উচ্চ কণ্ঠে বক্তব্য দিয়েছেন। কতো নির্মম প্রহসন।’

জেলা বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ এ নেতা বলেন, ‘সেই সময়ে মনের ক্ষোভ থেকে জেলা প্রেসিডেন্টসহ কয়েক জনের বহিষ্কার চেয়েছিলাম। কারণ তারা বিচার করতে পারে নাই। দল থেকে আজাদ বিশ্বাসকে সাথে সাথে বহিষ্কার করা দরকার ছিল।’

এই আজাদ বিশ্বাসের মত কিছু লোক রয়ে গেছে বলে বিএনপির এই অবস্থা বলে মন্তব্য করেছেন জান্নাতুল ফেরদৌস।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ