৩ মাঘ ১৪২৪, মঙ্গলবার ১৬ জানুয়ারি ২০১৮ , ১:৫৫ অপরাহ্ণ

ঘোষণার এক বছর পর শামীম ওসমানের প্রথম জয়


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ১০:১৭ পিএম, ৬ জানুয়ারি ২০১৮ শনিবার | আপডেট: ০৮:৫৩ পিএম, ৮ জানুয়ারি ২০১৮ সোমবার


ঘোষণার এক বছর পর শামীম ওসমানের প্রথম জয়

প্রায় এক বছর পূর্বে ঘোষণা দিয়েছিলেন শামীম ওসমান। সেই ঘোষণা থেকে এক বছর পরেও সরে দাঁড়াননি তিনি। কথায় আছে, শামীম ওসমান যা বলেন তিনি তা করেন। এবার নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে তিনি তাই দেখালেন। এক বছর পূর্বের এ ঘোষণায় নির্বাচনকে ঘিরে শামীম ওসমানের এটি প্রথম জয়। কারণ শামীম ওসমানের ঘোষণাটিকে ঘুরিয়ে নেয়ার জন্য চেষ্টা করেছিলেন বেশকজন প্রভাবশালী আইনজীবী ও আওয়ামীলীগ নেতা। তবে এখন শামীম ওসমান তার ঘোষণার দ্বিতীয় জয় হবে যদি তার পূর্ব ঘোষিত সভাপতি পদে হাসান ফেরদৌস জুয়েল ও সাধারণ সম্পাদক পদে মুহাম্মদ মোহসীন মিয়াকে জয়ী করে নিয়ে আসতে পারেন। নতুবা তার ঘোষণা ও জয়ের বাস্তবায়ন দুটিই নস্যাৎ হবে। তবে আইনজীবীরা বলছেন, শামীম ওসমান সেই সুযোগটি কাউকে দিবেন না।

জানা গেছে, আগামী ৩০ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনে আওয়ামীলীগ সমর্থিত সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ প্যানেল থেকে সভাপতি পদে চূড়ান্ত প্রার্থী অ্যাডভোকেট হাসান ফেরদৌস জুয়েল ও সাধারণ সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট মুহাম্মদ মোহসীন মিয়া প্রতিদ্বন্ধিতা করবেন।

৬ জানুয়ারী শনিবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট এসএম ওয়াজেদ আলী খোকনের কনফারেন্স রুমে মনোনয়ন বোর্ডের বৈঠক শেষে সভাপতি ও সেক্রেটারি পদে হাসান ফেরদৌস জুয়েল ও মুহাম্মদ মোহসীন মিয়ার নাম ঘোষণা করেন মনোনয়ন বোর্ডের যুগ্ম সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট এসএম ওয়াজেদ আলী খোকন। সাংবাদিকদের তিনি এর সত্যতা জানান।

এর আগে গত বুধবার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত টানা কয়েক ঘণ্টা জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি সেক্রেটারি সহ আদালতের শীর্ষ আইনজীবীদের নিয়ে রুদ্ধদার বৈঠকে তার পূর্ব ঘোষণায় অটল রয়েছেন বলে জানান শামীম ওসমান। বৈঠকে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন তার বক্তব্যে শামীম ওসমানের পূর্ব ঘোষণার দ্বিমত পোষণ করলেও বৈঠকের শেষ পর্যায়ে শামীম ওসমানের ঘোষণার সঙ্গে একমত প্রকাশ করেন তিনিও।

বৈঠকে শামীম ওসমান বলেন, আমি গত নির্বাচনে আপনাদের সকলের কথাতেই জুয়েল মোহসীনের নাম ঘোষণা দিয়েছিলাম। এখন কেন ঘোষণা পাল্টাতে বলেন? আমি যেটা ঘোষণা দিয়েছি সেটাই থাকবে। বাকিটা আপনারা দেখেন। বাকি পদগুলো আপনারা দেখেন।

এছাড়াও শামীম ওসমান শীর্ষ নেতাদের বলেন, আমি খোঁজ খবর নিয়েছি জুয়েল মোহসীনকে নিয়ে পরিষদ হলেই নির্বাচনে আওয়ামীলীগের ফলাফল ভাল হবে। তখন বৈঠকে উপস্থিত নারায়ণগঞ্জ সংরক্ষিত আসনের নারী সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট হোসনে আরা বেগম বাবলি শামীম ওসমানের মতামতকে সমর্থন করেন। একইভাবে নীরব থেকে শামীম ওসমানের মতের প্রতি সমর্থন জানান জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আবদুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদ বাদল।

আইনজীবীরা জানিয়েছেন, বিএনপি ইতিমধ্যে একটি সভা করলেও তেমন একটা চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি। তবে ইতিমধ্যে বিএনপির বিরোধ মিটিয়ে সকল পক্ষের আইনজীবীরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন। তারপরও এখনও তাদের প্রার্থী চূড়ান্ত করতে পারেনি। নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় এখন আওয়ামীলীগ পন্থী আইনজীবীদের মাঝে আলোচনায় স্থানীয় প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমান, তার বন্ধু কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের নির্বাহী পরিষদ সদস্য সমিতির বর্তমান সভাপতি অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু, মহানগর আওয়ামীলীগের সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট খোকন সাহা, জেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদ বাদল ও নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক জেলা আদালতের পাবলিক প্রসিকিউটর অ্যাডভোকেট এসএম ওয়াজেদ আলী খোকন। এসব নেতা ছাড়াও রয়েছেন সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট নুুরুল ইসলাম ও সদস্য সচিব যিনি জেলা আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাসুদ উর রউফ সহ আরো বেশকজন সিনিয়র আইনজীবী।

এদিকে জানাগেছে, আনিসুর রহমান দিপু ও অ্যাডভোকেট খোকন সাহা চেয়েছিলেন সভাপতি পদে অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান ও সাধারণ সম্পাদক পদে সমিতির বর্তমান সেক্রেটারি অ্যাডভোকেট হাবিব আল মুজাহিদকে। কিন্তু শামীম ওসমান এক বছর পূর্বে ঘোষণা করায় সেটা থেকে সরে আসতে পারেননি শামীম ওসমান। তবে সামনের নির্বাচনে হয়তো হাবিব আল মুজাহিদ পলুর অগ্রাধিকার থাকতে পারে।

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ