৫ আশ্বিন ১৪২৫, বৃহস্পতিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ , ১২:০৭ অপরাহ্ণ

শামীম-আইভী ইস্যুতে উত্তাপ


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ০৯:২৩ পিএম, ১২ জানুয়ারি ২০১৮ শুক্রবার


শামীম-আইভী ইস্যুতে উত্তাপ

আগামী জাতীয় নির্বাচনের বছর খানিক সময় বাকি। দীর্ঘদিন নারায়ণগঞ্জের শহর কেন্দ্রীক রাজনীতিতে এমপি শামীম ওসমান ও মেয়র আইভীর মধ্যে পাল্টাপাল্টি রাজনীতিতে নীরবতা ছিল। কিন্তু আবারো নারায়ণগঞ্জের ফুটপাতের হকার উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে ভাই বোনের পাল্টাপাল্টি বক্তব্যে মৃদু উত্তাপ ছড়িয়ে পড়ছে আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে। এখানে আওয়ামীলীগের মধ্যে এমন উত্তাপ দেখে বিএনপির নেতাদের মুখে মুচকি হাসিও দেখা যায়। কারণ বিএনপির কাজটি তারা নিজেদের ঠেকাতে নিজেরাই করে চলেছেন। তবে শামীম ওসমান তার বোন আইভীর নাম মুখে না নিয়ে বক্তব্য রাখলেও এক্ষেত্রে শামীম ওসমানের নাম ঠিকই মুখে এনেই বক্তব্য রেখেছেন। শামীম ওসমান যেমন আইভীকে কথায় কথায় ছোট বোন বলেন কিন্তু তার উল্টো দিকে শামীম ওসমানের নামের আগে মেয়র আইভী কখনও ভাই সম্বোধনটা করেনা।

১১ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার দুপুরে ইসদাইর ওসমানী স্টেডিয়ামের পাশের মাঠে জেলা প্রশাসনের উন্নয়ন মেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখতে গিয়ে নারায়ণগঞ্জের প্রভাবশালী এমপি একেএম শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভীকে ইঙ্গিত করে বলেছেন, আমার আদরের ভাইবোনেরা দেখলাম বেশ দাম্ভিকতার সুরে কথা বলছেন। আগামী নির্বাচনে আমাকে সহযোগীতা করবেন সেই দাম্ভিকতা দেখাচ্ছেন। মনে রাখতে হবে আল্লাহ অহংকারী ও দাম্ভিকদের পছন্দ করেন না। আমার শামীম ওসমানের কারো সমর্থন দরকার নাই। আমার জন্য আল্লাহই যথেষ্ট। আল্লাহ যদি হুকুম করেন তাহলে কোন বান্দাকে কেউ আটকাতে পারে না।

শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জের হকারদের উচ্ছেদের বিষয়ে আরো বলেন, একটি বিশেষ শ্রেণির মানুষ এই হকারদের মিথ্যা স্বপ্ন দেখিয়ে তাদের নিয়ে রাজনীতি শুরু করেছে। অনশন করছে। চাষাঢ়ায় শহীদ মিনারে দাঁড়িয়ে যখন তারা বলে যে, শেখ হাসিনা গরীবের পেটে লাথি দিয়েছে, তখন আমি ধৈর্য্য ধরে রাখতে পারি না। কারন ওই বিশেষ শ্রেণির মানুষ তাদেরই প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী চলছে, যারা এই হকারদের উচ্ছেদ করেছে। তবে ধৈর্য্যরেও একটা সীমা আছে।

এর আগে গত মঙ্গলবার বিকেলে দেওভোগ এলাকায় জনতার মুখোমুখী অনুষ্ঠানে নারায়ণগঞ্জের হকার উচ্ছেদের বিষয়ে এমপি শামীম ওসমানের নাম উল্লেখ্য করে মেয়র আইভী বলেছিলেন, ‘এমপি শামীম ওসমান বলেন আমি আইভী নাকি হকারদের পেটে লাথি মারছি। অথচ ২০০৭ সালে আমি হকার্স মার্কেট করে সেখানে হকারদের পুনর্বাসন করেছি। হকার্স মার্কেটে দোকানপ্রাপ্তরা ৬ থেকে ৭ লাখ টাকায় দোকান বিক্রি করে দিয়েছে। যে এমপি তার ছেলের বিয়েতে ২৫ কোটি টাকা খরচ করতে পারে সে এমপি তো পারে চাষাঢ়ায় রাজউকের নামে দখল করে বিক্রির জন্য পায়তারা করা প্লটে ২ থেকে ৪টি মার্কেট স্থাপন করে হকারদের পুনর্বাসন করতে। দুবাইতে কোটি কোটি টাকা পাচার করবে আর হকারদের জন্য মায়াকান্না করবে সে ইস্যুতে নারায়ণগঞ্জবাসী যে সিদ্ধান্ত নিবে আমি সেই সিদ্ধান্তের পক্ষে আছি।’

এছাড়াও মেয়র আইভী শামীম ওসমানকে আরো বলেছেন, ‘সামনে জাতীয় নির্বাচন। নির্বাচন নিয়ে কাজ করেন। জমি বিক্রি কিংবা উল্টাপাল্টা চিন্তা করবেন না। করলে আমিও রাস্তায় নামবো। সেলিম ওসমান সিটি করপোরেশনের বাজেট অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে জঞ্জালখ্যাত ট্রাক স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করেছেন। অথচ হাইকোর্টের নির্দেশেও সেটা হয়নি। সে কারণে তাকে করতালি দিয়ে সাধুবাদ জানাতে হবে।’

এখন শামীম ওসমান ও আইভীর পাল্টাপাল্টি বক্তব্যের উত্তাপন ছড়িয়ে যাচ্ছে আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের মধ্যেও। যেমনটা  দেখা গেল বুধবার নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর কর্মসূচিতে গত মঙ্গলবার আইভীর রাখা বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে নানা বক্তব্য দিয়েছেন ওসমান পন্থী আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতারা। তারা পাল্টা আইভীর কাছে নানা প্রশ্ন রেখে বক্তব্য দিয়েছেন।

একই দিন সেলিম ওসমান বলেন,  যতটুকু জানি শামীম ওসমান মেয়র আইভীর বাড়িতে নিজে আমন্ত্রন পত্র নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু অনুষ্ঠানে মেয়র উপস্থিত হননি। সামাজিক ভদ্রতা অনুযায়ী যতই শত্রুতা মনোমালিন্য থাকুক না কেন মানুষের সুখে দুঃখে পাশে থাকাটাই আল্লাহ পছন্দ করেন। সেই সাথে বুঝতে হবে অয়ন ওসমান শুধু শামীম ওসমানের সন্তান নয় সেলিম ওসমানের ভাতিজা ও শামসুজ্জোহার নাতি। আল্লাহ গীবত সব থেকে বেশি অপছন্দ করেন। মেয়র আইভীর সাথে আমার সুসম্পর্ক রয়েছে। মন্তব্য করার আগে পারিবারিক সূত্রে উনি আমার কাছে জানতে চাইতে পারতেন কি পরিমান অর্থ খরচ হয়েছে অথবা কোন সাংবাদিক এ প্রশ্ন করতে পারতেন। আমরা প্রায়ই সাংবাদিকদের দোষারোপ করি জনপ্রতিনিধিদের বক্তব্য না নিয়েই পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ করেন। এখানে প্রশ্ন থাকতেই পারে একজন সিটি মেয়র কেন কারো বিয়ের খরচ নিয়ে প্রকাশ্যে এমন মন্তব্য করে উত্তেজনার সৃষ্টি করলো। যেখানে সাধারণ মানুষও জানে একজন সংসদ সদস্যের সকল আয় ব্যয়ের হিসাব সরকারকে প্রেরণ করতে হয়। সব কথার একথা এতো সুন্দর একটি অনুষ্ঠানে এ বিষয়টি আমার কাছে শোভনীয় বলে মনে  হয়নি।

গত বুধবার চাষাঢ়া শহীদ মিনারে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে ছাত্রলীগের একটি কর্মসূচিতে শামীম ওসমানের অনুসারি নেতারা আইভীর দিকে প্রশ্ন রেখেছেন। নেতারা বলেছেন, ‘শামীম ওসমানের ছেলের ওই বিয়ের খরচের ২৫ কোটি টাকার অংকের কথা জানিয়েছিলেন আইভী। জবাবে আওয়ামী লীগের একজন নেতা প্রশ্ন তুলেছেন, তাহলে কী আইভী বিয়ের খরচের একাউন্টটেন্ড ছিলেন কী না?

ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী ও বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে ১০ জানুয়ারী বুধবার বিকেলে শহরের চাষাঢ়া শহীদ মিনারে নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের চিত্রাংকন প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে মহানগর আওয়ামলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ নিজাম বলেন, শামীম ওসমানের ছেলে অয়ন ওসমানের বিয়েতে কত কোটি টাকা খরচ হয়েছে সেই হিসেব নিয়ে মেয়র ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। আমি বলতে চাই সেই বিয়ের একাউন্টটেন্ড কি মেয়র ছিল নাকি?

শামীম ওসমানের অনুসারি আওয়ামীলীগ নেতা শাহ নিজাম বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জ জেলাকে নিয়ে যখন কোন ভিন্ন জেলার মানুষ নানা কথা বলে তখন আমরা প্রতিবাদ করি। স্বাধীনতা যুদ্ধে এ জেলার অবদানের কথা বলে শেষ করা যাবেনা। তবে এই জেলার উন্নয়নের মধ্যে সরকারি তোলারাম কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নিত করা হয়েছে। এছাড়া একই সময়ে অনার্স ও মাষ্টার্স কোর্স চালু করা হয়েছে যা এর আগে কোন অঞ্চলে হয়নি। তবে এসবের পেছনে এমপি শামীম ওসমানের অসামান্য অবদান রয়েছে। লিংকরোড থেকে শুরু করে শিক্ষাখাত, ডিজিটাল টেলিফোনের উন্নয়ন সহ জেলার দেড়শ বছরের কলঙ্ক পতিতাপল্লীকে উচ্ছেদ করে সোনার বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে এ জেলাকে এগিয়ে নিয়েছে এমপি শামীম ওসমান। কিন্তু সেই সময় মেয়র আইভী জনতার মুখোমুখি অনুষ্ঠান করে শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে চাইছে। এছাড়া মেয়র বলেছিলেন, সজল ভাইয়ের (কাউন্সিলর) ১৬ নং ওয়ার্ডে ২১ কোটি টাকার কাজ হয়েছে। কিন্তু সজল ভাই বলছেন,  আমার ওয়ার্ডের কোথায়  ২১ কোটি টাকার উন্নয়ন হয়েছে আমিতো জানিনা। এখানেই দুর্নীতির গন্ধ পাওয়া যায়।’

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ