১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫, সোমবার ২৮ মে ২০১৮ , ১১:৩৩ পূর্বাহ্ণ

হকার ইস্যুতে ব্যর্থ বিএনপি


স্টাফ করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ১০:১১ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০১৮ বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০৪:১১ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০১৮ বৃহস্পতিবার


হকার ইস্যুতে ব্যর্থ বিএনপি

নারায়ণগঞ্জে হকার ইস্যু নিয়ে যখন আওয়ামীলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ ঘটে গেল। প্রায় এক মাস ধরে হকার ইস্যু নিয়ে নারায়ণগঞ্জে তোলপাড় চলছে। সংঘর্ষের পূর্বে গত সোমবার স্থানীয় প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমান নারায়ণগঞ্জের বিএনপি নেতাদের বলেছেন কাপুরুষ। তবে হকারদের পক্ষে একদিন তৈমূর আলম খন্দকারকে দেখা গেলেও পরবর্তীতে তাদের আর দেখা যায়নি। যে কারণে নারায়ণগঞ্জে হকার সমস্যা নিয়ে সমাধানে বিএনপির কোন পদক্ষেপ দেখা যাচ্ছেনা। ফলে হকার ইস্যু নিয়ে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি পুরোপুরি ব্যর্থ। বিএনপি এ সমস্যা সমাধানের কোন প্রস্তাবও দিচ্ছেনা।

এদিকে ১৬ জানুয়ারী মঙ্গলবার হকারদের পক্ষে শামীম ওসমানের অবস্থান ও হকারদের উচ্ছেদের পক্ষে মেয়র আইভীর অবস্থানের কারনে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে মেয়র আইভী সহ অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় বুধবার তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। প্রায় এক মাস ধরে নারায়ণগঞ্জে হকার ইস্যু নিয়ে উত্তপ্ত রাজনীতি চললেও বিএনপি না বলছে হকারদের পক্ষে না বলছে পথচারী জনগনের পক্ষে। শামীম ওসমান গুরুত্ব দিচ্ছেন হকারদের পরিবারের দুর্ভিক্ষকে আর আইভী গুরুত্ব দিচ্ছেন মানুষের চলাচলের পথ ও যানজটের বিষয়টি নিয়ে। যে কারনে দুই জনের দুই দিকের অনঢ় অবস্থানের কারনে এ সংঘর্ষ ঘটেছে বলে মনে করছেন অনেকেই।

কিন্তু বিএনপি একটি রাজনৈতিক দল। তারা আগামীতে আবারো ক্ষমতায় আসার আশা দেখেন। ক্ষমতায় আসতে হলে জনগনের সমর্থন দরকার ও ভোটের দরকার। কিন্তু বিএনপি হকার ও পথচারী জনগণের কারোরই পক্ষে দাড়ায়নি। নারায়ণগঞ্জে বিএনপির অবস্থান দেখে মনে হচ্ছে নারায়ণগঞ্জের ভোটের ও সমর্থনের দরকার নেই বিএনপির। যে কারনে নারায়ণগঞ্জের বর্তমান জটিল এ সমস্যাটি নিরসনের কোন পথ দেখালো না বিএনপি। এমনকি সমস্যা সমাধানের কোন প্রস্তাবনাও দেখায়নি বিএনপি। মনে হচ্ছে  নারায়ণগঞ্জ বিএনপি এখন জনগণের বাইরের দলে পরিনত হয়েছে। সমাজে হকারদের প্রয়োজন ও পথচারী জনগনের হাটার সুবিধাটাও প্রয়োজন। কিন্তু নারায়ণগঞ্জ বিএনপি চুপ থাকার কারনে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করছেন নারায়ণগঞ্জ বিএনপি পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে।

এর আগে গত সোমবার বিকেলে চাষাড়ায় হকারদের সমাবেশে নারায়ণগঞ্জের বিএনপির নেতাদের কাপুরুষ বলেছেন নারায়ণগঞ্জে আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান। শামীম ওসমান বলেছিলেন, বিএনপি নির্বাচনের সময় বলবে আমরা গরীবের পক্ষে। কিন্তু নারায়ণগঞ্জের গরীব হকারদের পক্ষে তো তাদের মাঠে নামতে দেখলাম না। আমি যেভাবে বলছি এমপি হিসাবে এভাবে বলা ঠিক না। নারায়ণগঞ্জে কি বিএনপির নেতারা নাই? কোথায় আপনারা? কাপুরুষ হয়ে রাজনীতি করা উচিৎ না।

শামীম ওসমান আরো বলেছিলেন, আমি ভাবছিলাম হকারদের ইস্যুতে ২৫দিনে বিএনপি এই সুযোগে মাঠ দখল করে নিবে। কই কিছুতো করলো না। তারা লাইনবাজ। নির্বাচনের সময় বলবে আমরা গরীবের পক্ষে। বিএনপির নেতারা যেহেতু ২৫ দিনেও কিছু করতে পারেন নাই। আমার মনে হয় ২০১৮ সালেও চেষ্টা কইরেন না। তখন আর পারবেন না ইনশয়াল্লাহ। আর আমি মনে করছিলাম ২৫ দিনে হকার ইস্যুতে আপনারা অনেক কিছু একটা করে ফেলবেন। কিন্তু কেন পারলেন না? তার কারন বিএনপি গরীবের জন্য রাজনীতি করেন না।

তিনি আরো বলেছিলেন, বিএনপি রাজনীতি শুধু মানুষকে পোড়াইয়া মারা আর বাসে আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে পুড়িয়ে মারার রাজনীতি করার জন্য। ঐ সময় ঠিকই তাদের শক্তি ও সাহস থাকে। ককটেল মেরে পুলিশের মার খান কিন্তু হকারদের যখন পুলিশ মারে তখন আইসা বলেন না হকার মাইরেন না আমাদের মারেন। বিএনপি হকারদের জন্য সাহস ও শক্তি দেখায় না। আপনারা তো পুলিশের লাঠিপেটা খেয়ে বলতে পারতেন ঐ পুলিশ আপনারা হকারদের পেটে লাথি দিতে পারবেন না। নারায়ণগঞ্জের ছোট ছোট দল হকারদের জন্য মাঠে নেমেছে তারা পুলিশের লাঠিপেটা খাবে সেই চিন্তা করেন না। আমি এসব ছোট দলের নেতাদের দোয়া করেদিলাম।

যদিও গত ৩০ ডিসেম্বর হকার সংগ্রাম পরিষদের সভায় হকারদের পক্ষে অবস্থান নেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। এক সময়ে হকার সমিতির নেতা যিনি এখন বিএনপি নেতা তৈমূর ওইদিন বলেছিলেন, ‘হকারদের উচ্ছেদ করার আগে অবশ্যই তাদের পুনর্বাসন করতে হবে। পুনর্বাসন ছাড়া হকারদের কোনভাবেই উচ্ছেদ করতে দেওয়া হবে না। আমিও এক সময়ে হকারদের নেতা ছিলাম। মেহনতি মানুষের জন্য আমি আছি। ভবিষ্যতে হকারদের যে কোন কাজে আমি থাকবো।’

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ