শামীম ওসমানকে কাউন্সিলর খোরশেদের চ্যালেঞ্জ

১ ভাদ্র ১৪২৫, শুক্রবার ১৭ আগস্ট ২০১৮ , ৩:৪৮ পূর্বাহ্ণ

শামীম ওসমানকে কাউন্সিলর খোরশেদের চ্যালেঞ্জ


স্পেশাল করেসপনডেন্ট || নিউজ নারায়ণগঞ্জ

প্রকাশিত : ১০:০৮ পিএম, ২১ জানুয়ারি ২০১৮ রবিবার | আপডেট: ০৯:৩১ পিএম, ২৩ জানুয়ারি ২০১৮ মঙ্গলবার


শামীম ওসমানকে কাউন্সিলর খোরশেদের চ্যালেঞ্জ

নারায়ণগঞ্জ শহরের চাষাঢ়ায় হকার ইস্যুতে সংঘর্ষের ঘটনায় নিজে কোনভাবেই সম্পৃক্ত না ও উপস্থিতি নেই দাবী করেছেন সিটি করপোরেশনের ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ যিনি একই সঙ্গে মহানগর যুবদলের আহবায়ক।

টানা তিনবারের নির্বাচিত কাউন্সিলর তিনটি নির্বাচনেই আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীদের পরাজিত করে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন ও ভোটের ব্যবধানও ছিল সবচেয়ে বেশী।

খোরশেদের অফিস সহকারী আল সাবাহ টিপুর পাঠানো বিবৃতিতে বলা হয়, গত ১৬ জানুয়ারী চাষাঢ়ায় হকার ইস্যু নিয়ে যে সংঘর্ষ ঘটেছে সেখানে আমি ছিলাম না। বিকেলে যখন সিটি করপোরেশনের নগর ভবন থেকে মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর নেতৃত্বে পদযাত্রা চাষাঢ়ার দিকে রওনা দেন তখন আমি ওই বহরে ছিলাম। সেদিন দাপ্তরিক কাজে আমি দুপুর থেকেই নগর ভবনে ছিলাম। আনুসঙ্গ সভা শেষে মেয়র ফুটপাত দখলমুক্ত রাখার ক্যাম্পেইনে আমাকে শরীক হতে বলেন। তিনি এও জানান, তিনি ফুটপাত ধরে পায়ে হেঁটে চাষাঢ়া আসবেন ও প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে নিজের অবস্থান ও সিটি করপোরেশনের দায়িত্ব ব্যাখা করবেন। যেহেতু চাষাঢ়া এলাকাটি আমার নির্বাচিত এলাকার ভেতরে সেহেতু আমি মেয়রের অনুরোধে সম্মত হই যে পদযাত্রায় থাকবো। পরে মেয়রের সঙ্গে পায়ে হেঁটে মন্ডলপাড়া ঢাল পর্যন্ত একত্রে আসি। মন্ডলপাড়ার উত্তর ঢালে আসার পর ব্যক্তিগত কাজে আমি বাসায় চলে যাই। মন্ডলপাড়ার পর আমার খোরশেদের আর কোন অবস্থান নাই।

আমি আমি বেশ অবাক হয়ে দেখলাম, সংঘর্ষের পর আমার নাম জড়িয়ে মাননীয় এমপি শামীম ওসমান যে অভিযোগের তীর ছুড়ে বলছে যে আমার নেতৃত্বে হামলা হয়েছে সেটাকে কল্পনাপ্রসূত ছাড়া আর কোন ভাষা নেই। আমি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে বলতে পারি, চাষাঢ়ায় সংঘর্ষে আমার ব্যক্তি উপস্থিতি ছিল না। এমনকি কোন ধরনের নির্দেশনা বা আমার অনুগামী লোকজনও ছিল না। নিছক রাজনৈতিক স্ট্যান্টবাজির জন্যই আমার নাম জড়ানো হচ্ছে।

খোরশেদ এও বলেন, ‘মন্ডলপাড়ার পর চাষাঢ়া অবধি আইভীর পদযাত্রার ফুটেজ ও ছবি নিশ্চয় গণমাধ্যম ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী সহ গোয়েন্দা সংস্থার কাছে রয়েছে। সেখানে আমার টিকিটি পর্যন্ত নেই। সুতরাং অহেতুক শুধুমাত্র জাতীয়তাবাদের আদর্শের বিএনপির রাজনীতি করার কারণে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যে প্রপাগা-া চালানো হয়েছে যা মোটেই বোধগম্য না। কারণ আমি একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি। আর সে কারণে মেয়রের পাশে আমাকে সক্রিয় দেখা গেলে তাতে মহাভারত অশুদ্ধ হওয়ার কথা নয়; বরং সেটাই স্বাভাবিক। প্রশ্ন হলো, যদি আমার বিরুদ্ধে অপরাধমূলক কাজে জড়িত থাকার অভিযোগ থাকে, শুধু বিএনপির নেতা হওয়া অপরাধ কি না?

আমি এও বলতে চাই, নারায়ণগঞ্জের অনেক বিএনপি নেতা বর্তমান সরকারের আমলে ঠুটো জগন্নাথ বনে গেছে। কিন্তু আমি ও আমর যুবদল সর্বদা মাঠে সক্রিয়। পুলিশের হামলা মামলা উপেক্ষা করে রাজপথে থাকার কারণেই আমাকে টার্গেট করে মিথ্যে অভিযোগ রটানো হচ্ছে। এক সময়ে এগুলো ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষেপ হবে।

প্রসঙ্গত ইতোমধ্যে সংবাদ সম্মেলনে শামীম ওসমান বলেন, মঙ্গলবার বিকেলে আমাকে পুলিশ থেকে জানানো হলো আইভী মিছিল করে আসবেন। আমি তখন হকারদের বলে দিলাম কেউ কোন বাধা দিবে না। আইভী তার কাজ করু। আমি অবাক হয়ে দেখলাম, মেয়র আইভীর সঙ্গে যুবদলের আহ্বায়ক একাধিক মামলার আসামি মাকসুদুল আলম খোরশেদ, বিএনপি ক্যাডার সুমন, যুবদলের ডাবল মার্ডারের আসামির স্ত্রী বিভা। তারা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। কিন্তু পরে জানলাম আইভী বিএনপির যুবদলের আহবায়ক মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ, বিএনপির ক্যাডার সুমন, জোড়া খুনের মামলার আসামীর লোকজন বেষ্টিত হয়ে মিছিল নিয়ে আসলো। তাদের মিছিল চাষাঢ়ায় আসার পর সুমন নামের একজনকে গুলি করতে দেখা গেছে।

শামীম ওসমান বলেন, ‘বিএনপির খোরেশদ গংরা আইভীর কাঁধে ভর করে এখনও আমাদের মারবে এখনও? এই আমলেও? এখনও মারবে, তখনও মারল? আমরা যারা কর্মী নিয়ে রাজনীতি করি, এই প্রশ্নের জবাব তাদের দিতে হয়।’ তিনি বলেন, ‘কিছু কিছু প্রিন্ট ও ইলেট্রনিক মিডিয়া ঘটনাটিকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য চেষ্টা করছে বা প্রকৃত তথ্য না পেয়ে যতটুকু পেয়েছে তা দিয়ে নিউজ করেছে। আমি মনে করি সেটা প্রকৃত সত্য তথ্য নয়।’

নিউজ নারায়ণগঞ্জ এ প্রকাশিত/প্রচারিত সংবাদ, তথ্য, ছবি, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট বিনা অনুমতিতে ব্যবহার বেআইনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন:
Shirt Piece

রাজনীতি -এর সর্বশেষ